১২০ বছর পর আসামে মিলল বিরল প্রজাতির হাঁস, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

মানুষ অনেক উন্নত হয়েগেলেও এখনও পৃথিবীর বুকে চলতে থাকা সব রহস্য খুঁজে বার করতে পারেনি,পারেনি প্রকৃতিকে আয়ত্তে আনতে।তবে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে ঘটে চলা বিস্ময়কর নানান ঘটনা আমাদের সামনে তুলে ধরার ক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়ার কৃতিত্বকে অস্বীকার করা যায়না।

সম্প্রতি এমনই এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।আসামের তিনসুকিয়া জেলার মাগুরি মোটাপুং বিলে দেখা মিলছে বিরল প্রজাতির মান্ডারিন হাঁসের (Mandarine Duck)।প্রথম ৪ঠা ফেব্রুয়ারি এই হাসের প্রথম দেখা মেলে। আগে এই অঞ্চল ২০২০ সালে প্রাকৃতিক গ্যাসের কূপে বিস্ফোরণ ঘটে।

এই বিরল হাসের সম্পর্কে তিনসুকিয়ার বাসিন্দা পাখি গাইড বিনন্দ হাতিবরুয়া এর কথায় তিনি যখন প্রথম শুনলেন এই পাখিটির দেখা মিলেছে তখন তিনি সেটা বিশ্বাস করেননি।তিনি এই পাখিটিকে দেখে আনন্দে আত্মহারা হয়ে মাধবকে জড়িয়ে ধরেছিলেন।তিনি জানান,এই পাখিটি শেষ আসামের এক অংশে দেখা গিয়েছিল ১৯০২ সালে।

এই পাখিটিকে প্রথম চিহ্নিত করা হয়েছিল ১৭৫৮ সালে। উদ্ভিদবিদ, চিকিৎসক এবং প্রাণীবিজ্ঞানী কার্ল লিনিয়াস প্রথম এটিকে সনাক্ত করেন।বিশ্বের সবথেকে সুন্দর হাস বলে বিবেচিত হয় এটি। এই হাঁসকে ২০১৮ সালে নিউইয়র্ক সিটির সেন্ট্রাল পার্কে দেখা গিয়েছিল।এই পাখি দেখা যাওয়ার পরেই পুরো অঞ্চলে বাসিন্দাদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।

বন বিভাগের প্রাক্তন যুগ্মসচিব আনোয়ারউদ্দিন চৌধুরি জানান এই বিরল প্রজাতির হাঁসকে কখন কোথায় পাওয়া যাবে তা বলা যায়না।এই সুন্দর পাখিটিকে দেখলে চোখ ফেরানো দায়।সোশ্যাল মিডিয়ার দরুন আবারও এই পাখির দেখা পেলেন নেট নাগরিকরা।