‘আমিই নায়ক আমিই ইন্ডাস্ট্রি, এই ফর্মুলা অতীত’, ছবি ফ্লপ হতেই প্রসেনজিৎকে ধুয়ে দিলেন প্রযোজক

‘আয় আয় করে ডেকেও খুকু এল না’, ছবি ফ্লপ হতেই প্রসেনজিৎকে চাঁচাছোলা ভাষায় ধুয়ে দিলেন প্রযোজক

Rana Sarkar Criticizes Prosenjit Chatterjee`s Aay Khuku Aay

সম্প্রতি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জী (Prasenjit Chatterjee) এবং দিতিপ্রিয়া রায় (Ditipriya Roy) অভিনীত নতুন সিনেমা ‘আয় খুকু আয়’ (Aay Khuku Aay)। এই ছবিটিকে নিয়ে বেশ আশাবাদীই ছিল টলিউড। বিশেষত প্রসেনজিত এবং দিতিপ্রিয়ার মত কাস্টিং তার উপর আবার অভিনেতা জিতের প্রযোজনা, ছবি নির্মাণে কার্যত কোনও খামতি রাখেননি নির্মাতারা। তবুও বক্সঅফিসে সেভাবে সাড়া জাগাতে পারলো না ‘আয় খুকু আয়’। বাংলা ছবির ঘোর দুর্দিনের প্রভাব কার্যত এই ছবির উপরে এসেও পড়েছে।

এদিকে ‘আয় খুকু আয়’ এর হলে দর্শকের অভাব দেখে প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জীকে রীতিমতো বিঁধেছেন টলিউড প্রযোজক রানা সরকার (Rana Sarkar)। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি পোস্ট করেছিলেন তিনি। সেখানে প্রসেনজিতের ‘আয় খুকু আয়’, ছবিটিকে রীতিমতো ট্রোল করেছেন তিনি। লিখেছেন, “খুকু’ এলো না। এতো করে ডাকলো তবু খোকা খুকুরা হলে এলো না; এতবার বললো পাশে দাঁড়ান পাশে দাঁড়ান তবু টিকিট কাউন্টারের সামনে কেউ দাঁড়ালো না…”।

জিৎ এবং প্রসেনজিৎকে কটাক্ষ করে তিনি লিখেছেন, “দুজন সুপারস্টারের উদ্যোগ, একজন ষ্টার নায়ক অন্য একজন প্রযোজক, একজন বিনিয়োগ করলেন লাভের আশা নিয়ে, অন্যজন মাথার চুল পর্যন্ত্য জলাঞ্জলি দিয়ে সর্বস্ব ত্যাগ করে বাংলা সিনেমা কি একা টেনে নিয়ে যাওয়ার শেষ চেষ্টা করলেন, তবুও খোকা খুকুরা হলে এলো না; এভাবে কী করে চলবে বলুন তো ?”

এরপর প্রসেনজিৎকে সরাসরি বিঁধে তিনি লিখলেন, “একজন তিরিশ বছর ধরে একা টানার পর যদি তার “আয় আয়” ডাকে আপনারা সাড়া না দেন তাহলে তো উনি ঠিকই বলে ছিলেন যে “ইন্ডাস্ট্রি শ্মশান হয়ে যাবে”… এখনো সময় আছে, আজ ও নেক্সট তিনদিন সব হল ভর্তি করে ওনার সিনেমাটিকে ‘সুপারফ্লপ’ তকমা থেকে বাঁচান… নাহলে আমার কথা মিলে যাবে, সৃজিত, শিবু-নন্দিতা আর অতনু ঘোষের নির্দেশনার ছবি ছাড়া ‘ইন্ডাস্ট্রী’র ছবি দেখতে বাঙালী আর ইন্টারেস্টেড না…”।

এই প্রসঙ্গে আনন্দবাজারের কাছে তিনি বলেছেন, “ছবিটা সুপার ফ্লপ। যাঁদের আমরা ‘সুপারস্টার’ বলে মাথায় তুলে রাখি, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তাঁদের ছবি কাজ করে না। শেষ যে কয়েকটা ছবি হিট হয়েছে, ‘অপরাজিত’-তে নতুন মুখ আর ‘বেলাশুরু’-তে সে অর্থে সবাই নায়ক। দেবের ছবি যদিও চলে, প্রসেনজিৎ, জিতের ছবি চলছে কোথায়? তার মানেই দর্শকরা ইঙ্গিত দিচ্ছেন এ বার নতুন কিছু দিন।” সবশেষে প্রযোজকের মন্তব্য, “তাঁরা তো ‘সুপারস্টার’, নিজেদের পারিশ্রমিক কিছুটা কমিয়ে নতুনদের সুযোগ করে দিন। আমিই নায়ক, আমিই ইন্ডাস্ট্রি — এই ফর্মুলা আর কাজ করছে না। তবে প্রযোজকরা নতুন কিছু করার ঝুঁকি নিতে পারবেন।”