মানুষ পাচার থেকে মানি লন্ডারিং, ফাঁস হয়ে গেল টলিউডের বিখ্যাত প্রযোজকের কুকীর্তি

সিনেমা পাইরেসি থেকে মানুষ পাচার, বেআইনি কাজকর্মের দায়ে ফেঁসে গেল বিখ্যাত টলিউড প্রযোজক

Rana Sarkar Accused Ashok Dhanuka and Himanshu Dhanuka For their Conspiracy

রানা সরকার (Rana Sarkar), নামটির সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা আজ প্রায় সকলেই বেশ পরিচিত। বিশেষত টলিউড (Tollywood) সম্পর্কে যারা অল্প বিস্তর খোঁজ রাখতে চান, তারা রানা সরকারকে অবশ্যই চেনেন। বলতে গেলে ইন্ডাস্ট্রির হাল হকিকত সকলের সামনে তুলে ধরেছেন তিনি। রানা সরকার খোদ ‘ইন্ডাস্ট্রি’ প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জীকেও ভয় পান না।

যেখানে প্রসেনজিতের সম্পর্কে কেউ মুখ খুলতে সাহস পান না, সহ-অভিনেতা চিরঞ্জিতও যেখানে বলেন প্রসেনজিতের বিরুদ্ধে কিছুই বলা যায় না, রানা সরকারই অকপটে বলতে পারেন ‘বাংলা ইন্ডাস্ট্রি শ্মশান হলে ডোম আপনি’! সেই রানা সরকার এবার এক বিখ্যাত প্রযোজনা সংস্থার বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ আনলেন।

এক নয়, একাধিক অভিযোগ রয়েছে রানা সরকারের। বিখ্যাত অশোক ধানুকা এবং হিমাংশু ধানুকা, টলিউডের এই দুই প্রযোজকের বিরুদ্ধে সিনেমা পাইরেসি, মানি লন্ডারিং থেকে মানুষ পাচার, কোনও অভিযোগ বাদ রাখেননি রানা। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি পোস্ট করে তিনি লেখেন, “আপনি কি জানেন কলকাতায় সিনেমা পাইরেসি চক্রের জনক ও ধারক বাহক কে ? আপনি কি জানেন লন্ডনে শুটিং করে হিসেবে গরমিল করে বেআইনি ভাবে ভর্তুকি নিচ্ছে কে?”

বেআইনি ভাবে ব্রিটেনে মানুষ পাচার, লন্ডনে নিয়ে গিয়ে সিনেমা টেকনিশিয়ানদের না খাইয়ে রাখা, বাংলাদেশের প্রযোজকদের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনার ছলে মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তিনি ধানুকাদের বিরুদ্ধে। রানা শেয়ার করেছেন নিজের জীবনের এক অতি তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা। লিখেছেন ২০১৮ সালে ধানুকারা তার সঙ্গে অতি মিষ্টি ব্যবহার করে একটি এগ্রিমেন্টে সই করিয়ে নেয়। এরপর ধরা পড়ে তাদের ‘উগ্র রূপ’। নিজেদের ইচ্ছামত এগ্রিমেন্টের শর্ত পরিবর্তন না করলে শুটিং বন্ধের হুমকিও দেন।

শুধু তাই নয়, তার সঙ্গে ছলনা করে শেষমেশ তার বিরুদ্ধেই জালিয়াতির মামলা আনে ধানুকারা। তার সই নকল করে জাল প্রমাণপত্র দেওয়া হয়। এখন তাদের বিরুদ্ধে জালিয়াতির দায়ে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা হয়েছে। এখনও ধানুকাদের থেকে অনেক কোটি টাকা পাওনা আছে রানার।

সবশেষে তিনি সকলের সাহায্য এবং সমর্থন চেয়ে লিখেছেন, “এভাবেই কিছু অপরাধী ঠগ জোচ্চোর চিটিংবাজ টলিউডে বহাল তবিয়তে অপরাধ ও ষড়যন্ত্র করে চলছে , বাঙালী প্রযোজক যেকজন অবশিষ্ট আছে তাদের ক্ষতি করে চলেছে… এদের কঠোর সাজা দেন, নাহলে কিছু অসৎ লোকের কারণে বাঙালী প্রযোজকরা শেষ হয়ে যাবে…”।