কিরকম দেখতে হবে রাম মন্দির? দেখুন মন্দিরের প্রস্তাবিত নকশার 3D মডেল

১৯৮৮ সালে প্রথম এর প্রাথমিক নকশা তৈরি করা হয়। তখন সিদ্ধান্ত হয় এর উচ্চতা হবে ১৪১ ফুট। বর্তমানে নতুন নকশায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এর উচ্চতা হবে ১৬১ ফুট। নতুন করে যোগ করা হয়েছে দুটো মন্ডপ। ১৯৮৮ সালের প্রাথমিক খসড়ায় স্তম্ভ ও পাথরের যে নকশা করা হয়েছিল বর্তমানে সেই নকশায় ব্যবহার করা হবে।

মন্দির গড়ে উঠবে পাঁচটি মন্ডপ ঘিরে। আর থাকবে একটি উচ্চ শিখর। পিলার বা স্তম্ভের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে  ২১২ থেকে ৩৬০টি।

রাজস্থানের গোলাপি পাথর কেটে তৈরি হবে মন্দির। এর জন্য প্রয়োজন এই কাজে দক্ষ কারিগড় যা আজকের দিনে বেশ অপ্রতুল৷ গুজরাত ও রাজস্থানের ২৫০ কারিগরকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে৷ তাঁরাই তৈরি করবেন মন্দির৷

ফ্লোর বা মন্দিরে চাতাল থাকবে ৩ টি। সিঁড়িগুলোর উচ্চতা হবে ১৬ ফুট। ভারতীয় শিল্পশাস্ত্রের নিয়ম মেনে ‘নাগরা’ রীতিতে এই রামমন্দির গড়ে উঠবে।

এই মন্দিরকে ঘিরে থাকবে ৪ টি ছোট ছোট মন্দির। মন্দির রঞ্জিত হবে হলুদ রঙ দিয়ে। ২ লক্ষ রাম নাম লেখা ইঁট দিয়ে এই মন্দিরের মূল কাঠামো নির্মাণ হবে। এই ইঁট আসবে রাজস্থানের বানশি পাহাড় থেকে।

এই মন্দির নির্মাণের সময়সীমা ধরা হয়েছে সাড়ে তিন বছর। রাম মন্দির নির্মাণে খরচ পড়বে প্রায় ৩০০ কোটি টাকার মতো।

মন্দির তৈরি করতে ১ লক্ষ কিউবিক মিটার গোলাপি পাথর আনা হয়েছে৷ আরও ২ লক্ষ কিউবিক মিটার পাথর আনা হবে৷ মন্দির নির্মাণের মূল দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অনুভাই সোমপুরার ওপর। তাঁদের পারিবারিক সংস্থা মন্দিরের নকশা তৈরি করেছে।২০২৪ সালের হোলির দিন দর্শনার্থীদের জন্য মন্দির খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।