রাত ৯ টার মধ্যে ৫ জেলায় শুরু হচ্ছে বজ্রবিদ্যুত-সহ তাণ্ডবলীলা

4224

মার্চ মাসের মাঝামাঝি বসন্তও হার মেনেছে৷ ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল অবস্থা শহরবাসীর৷ প্যাচপেচে গরমে দমবন্ধ অবস্থা৷ হঠাৎ করেই প্রচন্ড গরমে নাজেহাল বাংলার মানুষ৷ কিন্তু অপেক্ষার অবসান৷ রাত ৯ টার মধ্যে কলকাতা সহ ৫ জেলায় বজ্র বিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হতে চলেছে৷

হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, আজ বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে৷  বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বীরভূম, দুই বর্ধমান, ঝাড়গ্রাম,পঃ মেদিনীপুরে বেশি বৃষ্টি হতে পারে৷ শুক্রবারও কলকাতায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে৷ আগামিকাল ঝোড়ো হাওয়াও বইতে পারে৷

দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বৃষ্টি না হলেও, আকাশ আংশিক মেঘলা থাকবে। কিছুটা তাপমাত্রাও কমতে পারে বলে আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পৌঁছে গিয়েছে ৩৪.২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি বেশি। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ক্ষেত্রেও তা স্বাভাবিকের থেকে ৪ ডিগ্রি বেশি।

তবে, রাজ্যে বৃষ্টিপাতের কারণে তাপমাত্রা কিছুটা নামবে। রবিবার থেকে পরবর্তী কয়েকদিন কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪-৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি থাকবে। বাতাসে জলীয় বাষ্প থাকায় আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণও বেশি রয়েছে। আবহাওয়াবিদদের মতে, এর ফলেই অস্বস্তি বাড়ছে।

বাঁকুড়া, বীরভূম, পুরুলিয়া, মালদহ, দুই মেদিনীপুর-সহ অন্যান্য জেলাগুলিতেও পারদ ঊর্ধমুখী। বঙ্গোপসাগরে বিপরীত ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে ওই বৃষ্টি বলে জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতরের পূর্বাঞ্চলীয় অধিকর্তা সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “পশ্চিমের জেলাগুলিতে বৃষ্টিপাত হবে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে। অন্যান্য জেলাগুলিতে আকাশ আংশিক মেঘলা থাকবে। কিছুটা তাপমাত্রা কমলেও, ফের গরম বাড়বে।”