আগামী ৪৮ ঘণ্টায় রাজ্যের সাত জেলায় বজ্র-বিদ্যুত্‍ সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস

করোনার ভয় আর গুমোট গরম এই দুইয়ের জ্বালায় ওষ্ঠাগত মানুষের প্রাণ। দিন কয়েক ধরে গুমোট আবহাওয়া থাকলেও কালবৈশাখীর দেখা নেই। তবে জোড়া ঘূর্ণাবর্ত যেন এর মাঝেই একটু স্বস্তির বার্তা বহন করে এনেছে। আবহাওয়া দপ্তর সূত্র খবর, এই জোড়া ঘূর্ণাবর্তের জেরে ঝড় ও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে। কলকাতা-সহ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় আগামী ৪৮ ঘণ্টায় ঝোড়ো হাওয়া ও তার সঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে দু’এক জায়গায়। কোথাও কোথাও ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে দমকা হাওয়া বইতে পারে। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস আলিপুর আবহাওয়া দফতরের৷

বঙ্গোপসাগরে বিপরীত ঘূর্ণাবর্ত ও উচ্চচাপ বলয় এর ফলে প্রচুর জলীয়বাষ্প ঢুকছে। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে তাপমাত্রা ও ৩৭ ডিগ্রি ছুঁয়েছে। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উপর রয়েছে দুটি ঘূর্ণাবর্ত। এর প্রভাবে শনিবার পর্যন্ত ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের সাত জেলায়।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাঞ্চলীয় অধিকর্তা সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, উত্তর পশ্চিমের শীতল হাওয়া ও পূবালি হওয়ার সংঘাতে বৃষ্টি হবে। আগামীকাল কলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গে বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টিপাত হবে। উপকূলের জেলাগুলিতে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত হবে। এই ঝড়বৃষ্টি হ‌ওয়ার কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশে দুটি ঘূর্ণাবর্ত উৎপত্তি।

পূর্ব মেদিনীপুর ও পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া, কলকাতা সহ ঝাড়গ্রাম এবং উওর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আংশিক মেঘলা থাকবে আকাশ। শুক্রবার ঝড়বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে। তবে উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিম্পং এলাকাগুলিতে হালকা বৃষ্টিপাত হবে। আবহাওয়া দফতরের অনুমান, আগামী কয়েক দিন তাপমাত্রা আরও একটু বাড়বে।

উত্তর পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে আগামী দিনে তাপমাত্রা বাড়বে আরও ২-৩ ডিগ্রি মতো। এইরকমই দুই থেকে তিন ডিগ্রি তাপমাত্রা বাড়ার সম্ভবনা রয়েছে ওড়িশাতেও। কেরলে তাপমাত্রা আরও ৩-৪ ডিগ্রি মতো বাড়বে। আগামী কয়েক ঘণ্টায় জম্মু-কাশ্মীর-সহ উত্তর-পশ্চিম ভারতের কিছু জায়গাতে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে প্রবল। রবিবারে একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝাও আসার সম্ভাবনা রয়েছে।