জঙ্গি হামলায় নিহত জওয়ানদের তালিকা, সেই বাসে ছিলেন একজন বাঙালি জওয়ানও

আজ বৃহস্পতিবার বিকেল সোয়া ৩টার দিকে জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার অবন্তীপোরার বাইপাসের কাছে গোরীপোরা এলাকায় জম্মু-শ্রীনগর ছয় নম্বর জাতীয় সড়কের ওপর এই হামলা চালানো হয়। ঘটনায় জখম হন বহু জওয়ান। তাঁদের মধ্যে অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

প্রায় ৭০টি গাড়িতে কমপক্ষে আড়াই হাজার সিআরপিএফ জওয়ানের বহর এদিন টহলদারিতে যাচ্ছিলেন। সাধারণত সেনা বাহিনীর বহর যাত্রার সময় রাস্তায় সাধারণ গাড়ি চলাচল থামিয়ে দেওয়া হয়। তবে পুলিশ বা সিআরপিএফের বহর যাত্রার সময় সেই নিষেধাজ্ঞা থাকে না। যে সুযোগকে কাজে লাগিয়ে গোরীপোরার কাছে আদিল আহমেদ দার নামে জইশ-ই-মুহাম্মদের এক আত্মঘাতী হামলাকারী প্রায় ২০০ কেজি বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ি নিয়ে বহরের মধ্যে ঢুকে পড়েন। ঢুকেই তিনি বহরের একটি গাড়িতে ধাক্কা মারেন। ফলে ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ঘটে।

যে গাড়ির সঙ্গে ধাক্কায় বিস্ফোরণ ঘটে সেটিতে ৫০ জনেরও বেশি জওয়ান ছিলেন বলে জানা যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় আট ভারতীয় সিআরপিএফ জওয়ানের। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় বাকিদের। বিস্ফোরণের পাশাপাশি এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে পালান হামলাকারীরা।

ঘটনার পর এলাকা ঘিরে ফেলে তল্লাশি শুরু করে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী। বন্ধ করে দেওয়া হয় ছয় নম্বর জাতীয় সড়ক। ঘটনার পর একটি স্থানীয় সংবাদ সংস্থার কাছে পাঠানো বার্তায় জইশ-ই-মুহাম্মদ এ হামলার দায় স্বীকার করেছে বলে জানা গেছে।

যে গাড়িটিকে লক্ষ্য করে বিস্ফোরণ ঘটে সেই গাড়ির ৪২জন জওয়ানের একটি তালিকা এসেছে প্রকাশ্যে৷ আশঙ্কা, এঁদের মধ্যে সকলেই শহিদ হয়েছেন৷ উরি হামলার পর এই ভয়াবহ জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটল৷ যে বাস লক্ষ্য করে এই হামলা চলে সেই বাসে ছিলেন ৪২ জন জওয়ান৷

আরও পড়ুন : জঙ্গিদের এমন শিক্ষা দেব যে জীবনেও ভুলবে না! পাল্টা জবাবের ইঙ্গিত

আরও পড়ুন : এবার কথা হবে যুদ্ধক্ষেত্রে, অনেক হয়েছে আর নয় গৌতম গম্ভীর

এই জওয়ানদের মধ্যে একজন এরাজ্যের বাসিন্দা ছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে৷ অন্তত নাম দেখে সেই পরিচয় প্রকাশ পাচ্ছে৷ অভিশপ্ত বাসটিতে থাকা ওই বাঙালি জওয়ানের নাম বাবলু সাঁতরা৷ তবে তিনি ঠিক কোথাকার বাসিন্দা বা কোন জেলায় তার বাড়ি, তা এখনও জানা যায়নি৷ যে তালিকা প্রকাশ পেয়েছে, সেখানে ৪২ জনের নাম তুলে ধরা হয়েছে৷ তালিকাটি হল..