কাজের প্রলোভন দেখিয়ে লাগাতার ধর্ষণ, সলমান খানের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ অভিনেত্রীর

কাজের নামে লাগাতার ধর্ষণ, সলমান খানের পরিবারের কুকীর্তি ফাঁস করেন অভিনেত্রী

বলিউডের (Bollywood) বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন অভিযোগ এনেছেন অভিনেত্রীরা। কাস্টিং কাউচ, মিটু (Me Too) বিতর্কে কার্যত জেরবার ইন্ডাস্ট্রি। কিন্তু গোটা বলিউড যার অঙ্গুলিহেলনে চলে, সেই সালমান খানের (Salman Khan) পরিবারের বিরুদ্ধেই কিনা ধর্ষণের মতো ভয়ঙ্কর অভিযোগ! বলিউড অভিনেত্রী পূজা মিশ্রর (Puja Mishra) অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কার্যত রীতিমতো কেঁপে উঠেছিল বলিউড।

সম্পূর্ণ ঘটনা জানতে হলে পিছিয়ে যেতে হবে কয়েকটা বছর। ঘটনাটি আসলে ২০১৭-১৮ সালের। ওই সময় সারা দুনিয়া জুড়ে মিটু আন্দোলনে সামিল হয়েছিলেন মহিলারা। বলিউডের তাবড় তাবড় পরিচালক-প্রযোজকদের বিরুদ্ধেও উঠেছিল মারাত্মক অভিযোগ। এই সময় পূজা খান ভাই এবং তাদের বাবার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন।

পূজার অভিযোগ ছিল ২০০৯ সালে ‘দাবাং’ ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নাকি সালমান খান তাকে তাদের ফার্ম হাউসে নিয়ে গিয়েছিলেন। আর সেখানেই সালমান, সোহেল এবং আরবাজরা নিলে তাকে লাগাতার ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে তাদের বাবা সেলিম খানও।

পূজা আরও বলেন সেই সময় ওই ফার্ম হাউসে উপস্থিত ছিলেন শত্রুঘ্ন সিনহা এবং তার স্ত্রী পুনম। তারা নাকি এই কাজে মদত দিয়েছিলেন যাতে তার বদলে তাদের মেয়ে সোনাক্ষী ছবিতে সুযোগ পান। এমনকি শত্রুঘ্নের বিরুদ্ধেও কালাজাদু করে কেরিয়ার নষ্ট করে দেওয়ার অভিযোগ আনেন পূজা। সেই কারণেই নাকি দুর্বিষহ হয়ে ওঠে তার জীবন।

এই গুরুতর অভিযোগ আনার পর এফআইআরও দায়ের করেছিলেন পূজা। যদিও তার সত্যতা নিয়ে ওঠে প্রশ্ন। বলিউড থেকে কেউই তার পাশে এসে দাঁড়াননি। এমনকি পূজাকে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে কটাক্ষ করা হয়। পূজার বিরুদ্ধে পাল্টা মানহানির মামলা করেছিল খান পরিবারও। কিন্তু এই নিয়ে মিডিয়ার সামনে মুখ খোলেননি কেউই। বলিউডে রহস্য আজও অন্ধকারেই থেকে গিয়েছে।