লকডাউনে রাস্তায় বেরতে পাওয়া যাবে পাস, আবেদন করুন এইভাবে

লকডাউনে রাস্তায় বেরতে পাওয়া যাবে পাস, আবেদন করুন এইভাবে

করোনা মোকাবিলায় সারা ভারতে চলছে লকডাউন। সাধারন মানুষের যাতে অসুবিধা না হয় তাই পাওয়া যাচ্ছে সমস্ত অত্যাবশ্যকীয় পণ্য। তবে অনেক জায়গায় দেখা যাচ্ছে যে সাধারণ মানুষকে বাঁচাতে এই লকডাউন তারাই সচেতন নয়।  পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ শক্ত হাতে হাল ধরেছেন। অযথা কাউকে ঘুরতে দেখলেই শাস্তি দেওয়া হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে যাতে ক্রেতা বা অত্যাবশ্যকীয় পণ্য বিক্রির সাথে যুক্ত মানুষদের অসুবিধায় না পড়তে হয় তাই তাঁদের আলাদা পাস দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বৈঠকে সাফ জানিয়ে দেন রাস্তায় বেরোলে কলকাতা পুলিশের থেকে নির্দিষ্ট পাস যোগাড় করতে হবে। এদিন নবান্নে বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,”অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের হোম ডেলিভারি আটকাবেন না।পুলিশ সুপার, জেলাশাসক, মহকুমা শাসক, বিডিওকে ব্যপারটা দেখতে হবে।“ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হোম ডেলিভারি সংস্থার উদ্দ্যেশ্যে বলেন “হোম ডেলিভারি সার্ভিস দিতে গিয়ে বাধা পেলে পুলিশের সাথে দেখা করুন। পুলিশ একটি পাস দেবে। গোটা রাজ্যে একই পাস প্রযোজ্য থাকবে।“

আরও পড়ুন :- কোথায় কোথায় লকডাউন, কি কি বন্ধ থাকবে, কি কি খোলা থাকবে

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মতোই কাজ শুরু করেন কলকাতা পুলিশ। অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও অনলাইন ফুড ডেলিভারির সাথে যার যুক্ত তাঁদের পাস দেওয়ার কাজ শুরু হল। কলকাতা পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা এদিন টুইট করে বলেন, অনলাইনে পুলিশের কাছে আবেদন করতে হবে নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে। অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের সাথে যুক্ত ব্যক্তিকে বা ফুড হোম ডেলিভারির সাথে যারা যুক্ত তাঁদের সমস্ত তথ্য খতিয়ে দেখবেন পুলিশ।

সমস্ত তথ্য যথাযথ হলে কলকাতা পুলিশ ই-পাস দেবেন। যেহেতু প্রক্রিয়াটি অনলাইনে হবে তাই ই-পাস দেওয়া হবে ইমেইলের মাধ্যমে। লকডাউনের মধ্যে সেই ই-পাস সাথে রাখা আবশ্যিক। অথবা গাড়িতেও লাগানো যাবে। ফলে পুলিশ এই অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও ফুড ডেলিভারির সাথে যুক্তদের বাধা দেবেন না।

ই-পাস পাওয়ার পদ্ধতি

অনলাইনে এই সকল যানবাহনের ই-পাস পেতে কলকাতা পুলিশের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট https://coronapass.kolkatapolice.org এ যেতে হবে। তারপর ফর্মে দেওয়া সমস্ত বিবরণ ফিলাপ করতে হবে। আবেদনে জমা দিতে হবে সরবরাহকারী ও কর্মচারীর নাম। দিতে হবে ঠিকানা, মােবাইল, ই মেল, কারণ, গাড়ির মডেল, গাড়ির নম্বর, কোন অঞ্চলে সরবরাহ করা হবে। পাশাপাশি ছবিসহ পরিচয় পত্র ও প্রয়োজন সাপেক্ষে প্রমাণপত্র আপলোড করতে হবে।

আরও পড়ুন :- লকডাউন না মানলে কোন কোন ধারায় কি কি শাস্তি জানুন

আর এই ফর্ম পূরণ হলে ইমেইল এড্রেসে একটি QR কোড যুক্ত করোনা ই পাস চলে আসবে। যেটিকে আপনি যাতায়াতের সময় গাড়ীর কাঁচে লাগিয়ে নিশ্চিন্তে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহ করতে পারবেন। আর এই ই-পাস পাওয়া অথবা পরে কোন অসুবিধা হলে ৯৪৩২৬১০৪৪৬/ ৯৮৭৪৯০৩৪৬৫ নম্বরে ফোন করে সহযোগিতা পেতে পারেন।