অভিনয় ছেড়ে পোলট্রির ব্যবসা করেই কোটিপতি এই বলিউড অভিনেত্রী

বলিউড নয়, চিকেনই ধ্যান জ্ঞান এই অভিনেত্রীর! পোলট্রির প্রেমে ছেড়েছেন বলিউডও

এমন অনেক তারকা রয়েছেন, বলিউডের (Bollywood) আকাশে যাদের আবির্ভাবটা ছিল একেবারে ধূমকেতুর মতো। স্বল্প সময়ে হাতেগোনা কিছু ছবিতে অভিনয় করার পর তাদের আর ক্যামেরার সামনে দেখা যায়নি। তাদের মধ্যে একজনের নাম পেরিজাদ জোরাবিয়ান (Perizaad Zorabian)। অভিনেত্রী একসময় বলিউডে বেশ কিছু ছবিতে অভিনয় করেছিলেন ঠিকই, তবে তিনি মূলত খ্যাতি অর্জন করেছেন বলিউড ত্যাগ করার পর। বলিউড ত্যাগ করে পোলট্রির ব্যবসা খুলে কোটিপতি হয়েছেন পেরিজাদ।

তার জন্ম মুম্বাইয়ের একটি সম্ভ্রান্ত পার্সি পরিবারে। খুব ছোট বয়স থেকেই তিনি মডেলিং করতেন। সেই সময় একটি ব্রণ কমানোর ওষুধের বিজ্ঞাপনের মুখ হয়েছিলেন পেরিজাদ। তবে বিজ্ঞাপনে মুখ দেখানোর পরপরই তিনি বলিউডে প্রবেশ করেননি। বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে মাস্টার্স করার জন্য তিনি চলে যান নিউইয়র্কে। ভর্তি হন বারুখ কলেজে। তারপর নিউইয়র্কের লি স্ট্রাসবার্গ থিয়েটার অ্যান্ড ফিল্ম ইনস্টিটিউট থেকে তিনি পড়াশোনা করেন। এরপর তিনি দেশে ফিরে আসেন এবং আবার মডেলিং শুরু করেন।

Perizaad Zorabian

১৯৯৭ সালে লাকি আলীর ভিডিও ‘নেহি রাখতা দিল মে কুছ’ তাকে প্রচারের আলোয় নিয়ে আসে। তারপর তিনি ‘হাম পরদেশী হো গ্যায়ে’ সিরিয়ালে অভিনয় করার সুযোগ পান। বলিউডে অভিনয়ের প্রথম সুযোগ পান ২০০১ সালে, নাগেশ কুকুনুরের ‘বলিউড কলিং’ ছবিতে। তার অভিনীত ছবিগুলোর মধ্যে সুভাষ ঘাইয়ের ‘জগার্স পার্ক’, ‘মুম্বাই ম্যাটিনি’, ‘মর্নিং রাগা’, ‘ধুম’, ‘এক আজনবি’, ‘সালাম এ ইশক’, ‘জাস্ট ম্যারেড’ উল্লেখযোগ্য। তিনি একটি চীনা ভাষার ছবি ‘বানদুং সোনাটা’তে ইন্দিরা গান্ধীর ভূমিকাতে অভিনয় করেছিলেন।

বলিউডে অভিনয় করার পাশাপাশি তিনি তার বাবার পোলট্রির ব্যবসা ‘জোরাবিয়ান চিকেন’ এর ব্যাবসায়িক দিকটাও সামলান। এই ব্যবসা তিনি উত্তরাধিকারসূত্রে পেয়েছেন। তিনি বহুদিন থেকেই বাবাকে ব্যবসার কাজে সাহায্য করতেন। তারপর ২০০৮ সালে এই ব্যবসা পুরোপুরি তার হাতে চলে আসে। জোরাবিয়ান চিকেন গুণমানের দিক থেকে বেশ জনপ্রিয়।

মুম্বাইতে ‘গন্ডোলা’ নামের একটি রেস্তোরাঁও খুলেছেন পেরিজাদ।পেরিজাদ বিয়ে করেছেন শিল্পপতি বোমান রুস্তম ইরানিকে। তার মেয়ে জায়া এবং ছেলে জায়াদকে নিয়ে সুখে সংসার করছেন তারা। দেশের সফলতম ব্যবসায়ীদের মধ্যে অন্যতম নাম পেরিজাদ। অভিনেত্রীর ইমেজ ছেড়ে বেরিয়ে তিনি আজ উদ্যোগপতির পরিচয়ে খ্যাতি পেয়েছেন গোটা বিশ্বে।