বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস, চাপে পড়ে বোনকে বিয়ে! পাক অধিনায়কের কীর্তি জেনে ছিঃ ছিঃ করছে গোটা বিশ্ব

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস, লজ্জার মাথা খেয়ে নিজের বোনকে বিয়ে করেছেন পাক অধিনায়ক

Pakistani Cricket Captain Babar Azam's had various controversis in his personal life

রবিবার ফের ইংল্যান্ডের কাছে বিশ্বকাপ খুইয়ে বসেছে পাকিস্তান (Pakistan)। ফাইনালে পাকিস্তানের এই হার নিয়ে অধিনায়ক বাবরের (Babar Azam) অধিনায়কত্বের দিকে আঙুল তুলছেন পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটাররা। ঘরে বাইরে সমালোচিত হতে হচ্ছে পাক অধিনায়ককে। তবে শুধু পেশাগত ক্ষেত্রেই নয়, বাবর তার ব্যক্তিগত জীবনেও এরকম বারবার বহু বিতর্কে জড়িয়েছেন।

বিশেষত নারীঘটিত বিতর্কের জেরে বারবার সমালোচনার মুখে পড়েছেন পাকিস্তানের বর্তমান অধিনায়ক। তার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগ এনেছিলেন একজন মহিলা। সেই নিয়ে বিতর্কের জল বহুদূর পর্যন্ত গড়িয়েছিল। তিনি অভিযোগ করেছিলেন বারবার তাকে নাকি বিয়ের মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বাবর। তারা নাকি দীর্ঘ ১০ বছর সম্পর্কে ছিলেন।

বাবরের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলেছিলেন ওই মহিলা। এই নিয়ে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমগুলোতে বাবরের ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে অনেক কাটাছেঁড়া হয়েছিল। ওই পাকিস্তানি মহিলা এও বলেছিলেন তিনি নাকি বাবরের সন্তান গর্ভে ধারণ করেছিলেন। সে কথা জানতে পেরেই বাবরের ব্যবহার তার প্রতি বদলে যায়। গর্ভাবস্থাতেও তিনি নাকি বাবরের কাছে হেনস্থার শিকার হয়েছিলেন!

বাবরের প্রাক্তন ওই প্রেমিকা দাবি করেন পাক অধিনায়ক নাকি তাকে মারধর করেছেন। এমনকি তাকে খুনের হুমকি পর্যন্ত দিয়েছিলেন বাবর। তিনি গর্ভধারণ করলে বাবর তাকে সন্তান নষ্ট করার চাপ দেন। চাপে পড়ে তিনি সেটাই করতে বাধ্য হয়েছিলেন। ২০১৭ সালে বাবর তার মোবাইল নম্বরটাও বদলে ফেলেন। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রাক্তন প্রেমিকাকে ঠকিয়ে ছেড়েই দিয়েছিলেন বাবর।

বাবরের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠতেই ২০২০ সালের নভেম্বর মাসে লাহোরের অতিরিক্ত দায়রা আদালত তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির মামলা দায়ের করে। ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ। তবে বাবর অবশ্য পাল্টা অভিযোগ করে বলেন তাকে ব্ল্যাকমেইল করছিলেন ওই মহিলা। তার কাছ থেকে নাকি ৪৫ লক্ষ টাকা দাবী করা হয়েছে। টাকা না পেলে তাকে বদনাম করা হবে বলে হুমকিও দিয়েছিলেন অভিযোগকারীনী।

শেষমেষ এই মামলা থেকে অবশ্য রেহাই পেয়েছিলেন বাবর। এক বছর মামলা চলার পর আদালত তাকে নির্দোষ ঘোষণা করে। ওই মহিলাও মেনে নেন তিনি নাকি মিথ্যে অভিযোগ করেছিলেন। এখন শোনা যাচ্ছে খুড়তুতো বোন হামিজা মোক্তারের সঙ্গে সম্পর্কে রয়েছেন বাবর। ২০২১ সালে জুন মাসে তাদের বাগদান হয়েছে। এই বছরই নাকি বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন বাবর এবং তার খুড়তুতো বোন হামিজা।