পাকিস্তান জঙ্গীদের ভারতের বিরুদ্ধে কাজে লাগায় ! বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি পাক সেনাপ্রধানের

680

পারভেজ মোশারফ, যিনি শুধু পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্টই ছিলেন না, ছিলেন সেনাপ্রধানও। বর্তমানে তিনি স্বেচ্ছা নির্বাসনে নিজের দেশ পাকিস্তান ছেড়ে রয়েছেন বিদেশে। বিদেশে বসেই দেশের জঙ্গি কার্যকলাপ নিয়ে বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট পারভেজ মুশাররফের। তিনি বলেছেন, আইএসআই এর মত তার শাসনকালে মাসুদ আজহারের জঙ্গি সংগঠন জৈস-ই-মহম্মদকে ভারতে হামলা চালানোর জন্য ব্যবহার করা হতো।

সম্প্রতি এমন সাক্ষাৎকারটি নিয়েছিলেন নাদিম মালিক নামে পাকিস্তানের এক সাংবাদিক। প্রশ্ন ছিল মূলত জৈস-ই-মহম্মদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণকে কেন্দ্র করে। পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট পারভেজ মুশারফ এই ব্যবস্থা গ্রহণকে স্বাগত জানিয়েছেন। মুশারফের অভিযোগ, এই হল সেই সংগঠন, যে সংগঠন তাঁকে দুবার হত্যা করার চেষ্টাও করেছিল। পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন তাঁকে হত্যা করার চেষ্টা হয়েছিল এমনটাই জানান মোশারফ। সাক্ষাৎকারের সেই দুমিনিটের ভিডিও টুইটার হ্যান্ডেলে দিয়েছেন জনৈক ওই সাংবাদিক।

২০০৩ সালের ডিসেম্বর মাসে ঝান্ডা চিচি এলাকায় মুশারফ তৎকালীন প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন তার উপর হামলা চালানো হয়েছিল। সেই হামলায় প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন তিনি। তখনই জনৈক ওই সাংবাদিক মুশারফকে কে প্রশ্ন করেন, তাহলে আপনি প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন কেন জৈস-ই-মহম্মদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেননি? সেই প্রশ্নের উত্তরে মোশারফ জানান, পাকিস্তানের গোয়েন্দা বিভাগ আইএসআই জৈস-ই-মহম্মদ সংগঠনকে ভারতের বিরুদ্ধে কাজে লাগাতো। সাফাই দেওয়ার জন্য যুক্তি সাজিয়ে মোশারফ এও বলেন, ” ভারত যেমন পাকিস্তানে বিস্ফোরণ ঘটাতো, পাল্টা তেমনই ভারতেও করা হতো।”

দেখুন সেই ভিডিও …

Rear More : প্রাক্তন সেনপ্রধানের হুঁশিয়ারি ইমরানকে, সাবধান! ভারতের সাথে লড়লে পাকিস্তান শেষ

এ প্রসঙ্গে বলে রাখা ভালো, পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সরকারের তরফে গত মঙ্গলবার মাসুদ আজহারের ভাই আব্দুল রউফ আসগর সহ ৪৩ জনকে আটকের কথা জানায়। পাকিস্তানের মাটিতে বালাকোটে ভারতের বায়ু সেনার হামলার দশ দিন পর এমন পদক্ষেপ নেয় পাক সরকার।