দেখুন কীভাবে একটি দুর্ঘটনা বাঁচিয়ে দিল একটি মানুষের জীবন

বিপদ কখনও বলে আসে না। আর এই বিপদ যেমন না বলেই আসে, ঠিক তেমনই এই বিপদের হাত থেকে রক্ষা করে ভাগ্য। সম্প্রতি এমনই একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে যে ভিডিওতে দেখা গিয়েছে যে, এক যুবক নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেলেন। তাকে রক্ষা করলো আরেকটি গাড়ি। আর এই ভিডিওটি দেখার পরে সোশ্যাল মিডিয়ার নেটিজেনদের বক্তব্য, ‘ভাগ্য একেই বলে’।

সম্প্রতি দুর্ঘটনার যে ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে সেটি একটি সিসিটিভি ক্যামেরার। অলোক শ্রীবাস্তব নামে এক সাংবাদিক রবিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিওটি পোস্ট করেছেন। যে ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, এক যুবক রাস্তার ধারে মোটরবাইক নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন।

পাশ দিয়ে দ্রুত গতিতে বেরিয়ে যাচ্ছে অন্যান্য যানবাহন। আর তখনই ওঁৎ পেতে বসেছিল বিপদ। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই যুবক যে দিকে মুখ করে বসেছিলেন তার উল্টো দিক থেকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তার দিকে একটি জেসিবি মেশিন ছুটে আসতে শুরু করে। কিন্তু তা সত্ত্বেও রক্ষা পেয়ে গেলেন ওই যুবক।

রক্ষা পাওয়াটা নির্ঘাত ভাগ্য ছাড়া আর কিছু নয়। ওই যুবক যতক্ষণে টের পেয়ে ওই জেসিবি মেশিনের দিকে ঘুরে তাকিয়েছে ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গেছে। কিন্তু ওই যুবককে রক্ষা করার জন্য রক্ষাকর্তা হিসেবে ওই জেসিবি মেশিনের সামনে এসে হাজির হলো দ্রুতগতির আরও একটি বোলেরো গাড়ি।

আর ঐদিন গাড়ির ধাক্কায় নির্ঘাত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেলেন ওই যুবক। ভিডিও দেখে যেটুকু অনুমান করা যাচ্ছে তাতে এই দুর্ঘটনার কারণে কারোর প্রাণহানি হয়নি। তবে রক্ষাকর্তা হিসেবে হাজির হওয়া বোলেরো গাড়িরটি বিপুল ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অলোক শ্রীবাস্তব যে ভিডিওটি আপলোড করেছেন সেটিকে আবার শেয়ার করেন শিল্পপতি আনন্দ মাহিন্দ্রা। অলোক শ্রীবাস্তন ভিডিওটি আপলোড করার সাথে সাথে লেখেন, “ভগবান কাউকে বাঁচাতে চাইলে মাহিন্দ্রা বোলেরোকেও পাঠিয়ে দিতে পারেন।” আর আনন্দ মাহিন্দ্রা লেখেন, “দেখে মনে হচ্ছে বোলেরো গাড়িটি যেন রক্ষাকর্তা। আর যেন ওর একমাত্র লক্ষ্য ছিল ওই মোটরবাইক আরোহীকে বাঁচানো।”