সবাইকে খুশি করতে পারব না, সন্তানের পিতৃপরিচয় তরজায় সাফ জবাব নুসরাতের

0

নুসরাত জাহানের (Nusrat Jahan) পুত্র ঈশানের (Yishaan) পিতৃপরিচয় নিয়ে বাংলা জুড়ে এতদিন চলছিল তোলপাড়। নুসরাত যেহেতু তার সন্তানের পিতৃপরিচয় প্রকাশ্যে আনতে চাননি, তাই তাকে নিয়ে নেটমধ্যমে বইছিল সমালোচনার ঝড়। তার পুরুষ সঙ্গী যশ দাশগুপ্তও (Yash Dasgupta) সমালোচনার আওতার বাইরে ছিলেন না। পুত্রের বার্থ সার্টিফিকেটে বাবার পরিচয় জানালেন নুসরাত। সেখানে ঈশানের নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে যশের পদবী। এই নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন তরজা।

কলকাতা পুরসভার ওয়েবসাইট থেকে ফাঁস হয়ে গিয়েছে ঈশানের বার্থ সার্টিফিকেট। যদিও চারিদিকে এই নিয়ে হৈ চৈ শুরু হলেও যশরত এ সম্পর্কে টু শব্দটিও করতে নারাজ। কিন্তু প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও পরোক্ষে কিন্তু নিজের মনের ভাবনা নেটিজেনদের সামনে তুলে ধরলেন নুসরাত।

নুসরাতের ইনস্টাগ্রাম স্টোরি’তে ফুটে উঠলো লেখা, “আমার সব গল্প জানে আমার বালিশ। যা অন্য কেউ জানে না!” একই সঙ্গে আরও একটি স্টোরিতে তিনি লিখেছেন, “সবাইকে খুশি করতে পারব না, আমি নিউট্রেলার বোতল না।” এত দিন যখন তিনি নিজের সন্তানের পিতৃপরিচয় গোপন রেখেছিলেন, তখনও তাতে সমস্যা ছিল বেশ কিছু মানুষের। আবার এখন যখন নুসরাতের সন্তানের নামের পাশে যশের পদবী দেখা দিল, সেখানেও শুরু হয়েছে তাকে নিয়ে সমালোচনা।

প্রখ্যাত লেখিকা তসলিমা নাসরিনও নুসরাতের বিপক্ষে কলম ধরেছেন। তিনিও নুসরাতের সমালোচনায় মুখর। তার আশা ছিল, নুসরাত পুরুষতান্ত্রিক সমাজের মুখে ঝামা ঘষে নিজের সন্তানকে একার পরিচয়ে বড় করবে। তার সন্তান বড় করে তোলার পথে পুরুষ সঙ্গীর সাহচর্যের দরকার পড়বে না, এমনটাই আশা করেছিলেন তসলিমা।

কিন্তু তা যখন হল না তখন‌ নুসরাতকে নিয়ে হতাশ তসলিমা তার সামাজিক পাতায় লেখেন, “প্রচুর লেখালেখি, প্রচুর স্বাগত জানানো, শুভেচ্ছা জানানো, স্যালুট জানানো — এসব বরং এক্সট্রাঅরডিনারি সাহসী এবং পুরুষতন্ত্রের ছক ভাঙ্গা মেয়েদের জন্য তোলা থাকুক। ট্রাডিশানাল মেয়েদের পেছনে সময় নষ্ট করা, তাদের বাহবা দেওয়া আপাতত স্থগিত থাকুক।”

সন্তানের জন্মের ২০ দিন পরেও নুসরাত তার সন্তানের বাবার নাম প্রকাশ করতে চাননি। এমনকি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েও ঈশানের বাবার নাম নিয়ে প্রশ্ন উঠলে তিনি সটান বলে দেন, “বাবাই জানে বাবা কে!” অবশেষে সরকারি নথিতে তিনি নিজেই জানালেন তার সন্তানের বাবা যশ দাশগুপ্ত।

নুসরতের (Nusrat Jahan) স্বামী নিখিল জৈনের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়ে বিতর্ক থাকলেও যশের প্রথম পক্ষের স্ত্রীর সঙ্গে ডিভোর্স হয়ে গিয়েছে। যশের প্রাক্তন স্ত্রী মুম্বইয়ে থাকেন, এক পুত্রও রয়েছে যশের। এখন দেখার পুত্র ঈশানের সৌজন্যে যশ ও নুসরত কী শেষপর্যন্ত বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হবেন? নাকি লিভটুগেদারেই কাটিয়ে দেবেন বাকি জীবন? অপেক্ষায় অনুরাগীরা৷