পশ্চিমবঙ্গে কবে খুলবে স্কুল, কী বললেন শিক্ষামন্ত্রী, দেখে নিন কেন্দ্রের নির্দেশিকা

সোমবার থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল

আনলকের ৪ পর্যায়ে আজ অর্থাৎ ২১শে সেপ্টেম্বর থেকে কেন্দ্রের নির্দেশের ভিত্তিতে আংশিকভাবে স্কুল চালু করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে রাজ্যগুলিকে। সেইমতো দেশের বিভিন্ন রাজ্যে আংশিকভাবে খুলছে স্কুল। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৫০ শতাংশ শিক্ষক এবং অশিক্ষক কর্মীদের নিয়ে নবম-দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের অভিভাবকদের অনুমতি সাপেক্ষে উপস্থিতির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে এই নির্দেশ বাধ্যতামূলক নয়।

কেন্দ্রের নির্দেশিকা কী বলছে?

স্কুলের প্রবেশপথে থার্মাল গান রেখে শিক্ষক, অশিক্ষক কর্মীদের ও পড়ুয়াদের তাপমাত্রা মাপতে হবে।একমাত্র উপসর্গহীন দেরই ঢোকার অনুমতি দেওয়া হবে। সব ক্লাসরুম স্যানিটাইজ করতে হবে এবং বিশেষত যেগুলি কয়ারেন্টাইন সেন্টার হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল সেগুলিকে বিশেষ ভাবে জীবাণুমুক্ত করতে হবে।

সবার জন্যই বাধ্যতামূলক মাস্ক।কোনো পড়ুয়া স্কুলে আসতে চাইলে সাথে অভিভাবকের সম্মতিপত্র প্রয়োজন। ৫০ শতাংশ পড়ুয়া নিয়ে স্কুল চললেও সাথে অনলাইন ক্লাসও চলবে।  বন্ধ থাকবে স্কুলের ভেতরে মেস, ক্যান্টিন, জিম ও সুইমিং পুল। খোলা জায়গা থাকলে ক্লাসরুমের পরিবর্তে সেখানে ক্লাস করানো যেতে পারে এবং সবার চোখে পড়ে এমন স্থানে রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত হেল্পলাইন নম্বর রাখতে হবে।

ছিটকিনি বা সিড়ির হাতলের মতন যে জিনিসগুলি একাধিকবার স্পর্শ করা হয় সেগুলিকে বারবার জীবাণুমুক্ত করতে হবে জীবাণুমুক্ত করতে হবে পানীয় জলের জায়গা ও শৌচাগারও।এছাড়া এও বলা হয়েছে যে স্কুলে এমন কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যাবেনা যাতে এক স্থানে অনেকে একত্রিত হন। কম্পিউটার, প্রিন্টারের মতন শিক্ষা সম্পর্কিত উপকরণ বারবার জীবাণুমুক্ত করার কথাও বলা হয়েছে। কোনো বিদ্যালয় এয়ার কন্ডিশনার ব্যবহার হলে তার তাপমাত্রা ২৪ থেকে ৩০ ডিগ্রির মধ্যে রাখা বাধ্যতামূলক।

পানীয় জলের জায়গা, শৌচাগার, আবর্জনা ফেলার জায়গাগুলি নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে এবং জীবাণুমুক্ত করতে হবে সঠিক বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে।বয়স্ক, অন্ত:সত্ত্বা অথবা যাঁদের শারীরিক পরিস্থিতি ভালো নয়, এমন কর্মীদের বিশেষ স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিতে হবে। সরাসরি পড়ুয়াদের মুখোমুখি হতে হয়, এমন কাজ থেকে তাঁদের বিরত রাখতে হবে।

ক্লাসরুম স্যানিটাইজ করতে হবে। ১ শতাংশ হাইপোক্লোরাইট সলিউশন, মোছার জন্য অ্যালকোহল এবং স্যানিটাইজারের উপলব্ধতা নিশ্চিত করতে হবে। কোনো পড়ুয়া স্বেচ্ছায় স্কুলে আসতে পারে। তবে তাকে নিজের বাবা-মা অথবা অভিভাবকের কাছ থেকে লিখিত সম্মতিপত্র নিয়ে স্কুলে আসতে হবে। স্কুলের ভিতর মেস অথবা ক্যান্টিন বন্ধ থাকবে।

কোন কোন রাজ্য স্কুল খুলছে?

অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্নাটক, মধ্যপ্রদেশ, পঞ্জাব, হরিয়ানা, জম্মু ও কাশ্মীর, অসম, নাগাল্যান্ড এ আংশিক ভাবে স্কুল খোলা হচ্ছে। বাকি রাজ্যগুলির মধ্যে কিছু রাজ্য এখনও সিদ্ধান্ত নেয়নি নাহলে আগেই বলে দেওয়া হয়েছে যে স্কুল খুলবেনা।

কোন কোন রাজ্য স্কুল খুলছে না?

গুজরাত, উত্তরপ্রদেশ, কেরল, উত্তরাখণ্ড, দিল্লি, গোয়াতে আংশিকভাবে ২১ তারিখ থেকে স্কুল খোলা হচ্ছেনা।

পশ্চিমবঙ্গে স্কুল কবে খুলবে?

পশ্চিমবঙ্গের স্কুল কলেজ খোলা নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, যেভাবে হুহু করে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে, সেই পরিস্থিতিতে এখন কোনোভাবেই স্কুল খোলা হবে না। তিনি জানিয়েছেন, ছেলে মেয়েদের স্বাস্থ্য নিয়েই তারা বেশী চিন্তিত। ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বহাল থাকছে। পরিস্থিতির ওপর নজর রেখে কবে স্কুল খোলা হবে তা আগাম জানিয়ে দেওয়া হবে।