সমস্ত জল্পনার অবসান, নুসরতকে বিবাহবিচ্ছেদের নোটিস পাঠালেন নিখিল

চির ধরেছিল আগেই ধীরে ধীরে এখন সেটা বড়োসড়ো ফাটলের চেহারা নিচ্ছে। আগে থেকে আঁচ পাওয়া গেলেও এবার সেটা প্রকাশ্যে এলো।   নিখিল জৈন স্ত্রী নুসরত জাহানের কাছে বিবাহবিচ্ছেদের দাবি জানালেন। সম্পর্কে ফাটল ধরলে ও নুসরত-নিখিল কেউই এতদিন পর্যন্ত পরস্পরবিরোধী কোন পোস্ট করেননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় কাদা ছোড়াছুড়ি করতেও দেখা যায়নি তাদের। নুসরত ও নিখিলের দাম্পত্য জীবনে যে তৃতীয় ব্যক্তি ঢুকেছে এই নিয়ে আর কোনো সন্দেহ নেই। টলিপাড়ায় কান পাতলেই শোনা যায় সেই গুঞ্জন। সেই জল্পনাকে বারবার উস্কে দিয়েছে নুসরত ও নিখিলের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল।

আনন্দবাজারে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, সম্পর্কে ফাটলের পরও নিখিলের ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেন নুসরত। কিন্তু এই নিয়ে নিখিল কোনও দিন বাধা দেননি। যশের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে কোনও দিন মুখ খোলেননি নিখিল।কিন্তু অবশেষে বাধ্য হয়ে তিনি এই পদক্ষেপ নিয়েছেন। মনে করা হচ্ছে, বিচ্ছেদের পর নুসরত মোটা টাকা খোরপোষ দাবি করবেন। কারণ তাঁর অতীতের সম্পর্কেও একই রকম ইতিহাস জানা যায়। বিয়ে না করলেও, বিচ্ছেদের সময় প্রেমিকদের সঙ্গে অনেক টাকার আদানপ্রদান হয়েছিল।

অবশেষে বিয়ের এক বছর নয় মাস পর সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বিবাহবিচ্ছেদের পথে হাঁটলেন নিখিল ও নুসরত। নুসরত ও নিখিলের সম্পর্কিয় দিনদিন যত ফিকে হয়েছে ততটাই গাঢ় হয়েছে যশ ও নুসরতের সম্পর্কের রসায়ন। দক্ষিণেশ্বরের মন্দির থেকে আজমেরের দরগা, যশ ও নুসরত এর উপস্থিতি বারবার উসকে দিয়েছে জল্পনা। সত্যিই কি নিখিল নুসরাতের বিচ্ছেদ হবে? নুসরাতের জীবনেও কি শুরু হবে নতুন অধ্যায়? তাহলে কি এই বিচ্ছেদের পর কী আরও গাঢ় হবে ‘যশরত’-এর সম্পর্ক?  যশের সঙ্গেই কি নতুন অধ্যায় শুরু হবে নুসরতের? এখন সেটাই দেখার।