‘সিঁদুর, সন্তানের জন্য ট্রোলড হয়ে পিঠ বাঁচাতে উল্টোপাল্টা রটাচ্ছে নুসরাত’: নিখিল

ও নিজের মুখ লুকাতে আমাকে নিয়ে উল্টোপাল্টা রটাচ্ছে, নুসরাতের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন নিখিল

Nusrat Jahan and Nikhil Jain

নিখিল-নুসরাত বিতর্ক ক্রমে অন্যমাত্রা লাভ করছে। নিখিলের (Nikhil Jain) থেকে বিচ্ছেদের পর এতদিন নুসরাতের (Nusrat Jahan) দিকেই আঙুল তুলছিলেন নেটিজেনরা। বিবাহিত হওয়া সত্ত্বেও যশের সঙ্গে সম্পর্ক, যশের সন্তানের মা হওয়া থেকে শুরু করে নিখিলকে নিজের ‘সহবাস সঙ্গী’ হিসেবে উল্লেখ করা নিয়ে নুসরাতের সমালোচনায় মুখর ছিল নেট মাধ্যম। এই সময়কালে নেটিজেনদের সমস্ত সহানুভূতি গিয়ে পড়ে নিখিল জৈনের উপর।

বলতে গেলে নিখিল এতদিনে নেটিজেনদের চোখে নায়ক হয়ে উঠেছেন। ঠিক সেই মুহূর্তেই নুসরাতের একটি বক্তব্যে যেন রীতিমতো বিস্ফোরণ ঘটলো নেট মাধ্যমে। নিখিল উভকামী! তার বেশ কয়েকজন পুরুষসঙ্গী আছেন! এমনকি রূপান্তরকামীদের সঙ্গেও নাকি তার বেশ ভালো সম্পর্ক! এই খবর রটেছে নুসরাতের ঘনিষ্ঠমহল থেকে। এমন বিতর্ক নিখিলের কানে পৌঁছতেই যারপরনাই ক্ষুব্ধ হয়েছেন তিনি।

নুসরাতের তরফ থেকে যা কিছু রটছে তাতে কার্যত নিখিলের ব্যক্তিগত জীবন প্রভাবিত হচ্ছে। হিন্দুস্থান টাইমসের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে নিখিল বলেন, “ও (নুসরাত) নিজের মুখ লুকাতে চেষ্টা করছে, কারণ মাথার সিঁদুর এবং ওর সন্তানের জন্য ওকে ট্রোলড হতে হয়েছে। এখন আমার উপর ভুলভাবে আঙুল তোলবার চেষ্টা চালানো হচ্ছে, তাঁর সেই সঙ্গীর উপর যাঁকে একদিন নুসরাত বিয়ে করেছিল”।

এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “ক্ষমতার সঙ্গে সঙ্গে কিছু দায়িত্বও বর্তায়, আমি আশা করছি এবং অনুরোধ করছি যাতে বাড়ির বড়রা ওকে (নুসরাত জাহান) বলে দেয় নিজের ভাষার উপর একটু নিয়ন্ত্রণ আনতে। নিজে বাঁচতে, জনতার সামনে নিজেকে সঠিক প্রমাণ করতে ভুয়ো ও ভিত্তিহীন অভিযোগ একজন সাধারণ মানুষের উপর লাগানো হচ্ছে। সেই সব জনতা, যাঁদের কিনা সে একাধিকবার বোকা বানিয়েছে।”

নিখিল আরও বলেন, “এই সব অভিযোগ আসলে, তাঁর এবং যেসব মানুষদের সঙ্গে সে মেলামেশা করে তাঁদের চিন্তাভাবনার প্রতিফলন। নুসরাত একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, সেটা ভুললে চলবে না”। অন্যদিকে আনন্দবাজার অনলাইনের কাছে নুসরাত বলেন, “যে সম্পর্কে আমি নেই, তা নিয়ে কিছু বলতে চাই না। এই নিয়ে কোনও কথা বলব না। রিলেশনশিপ ওয়ার্ক না করলে বেরিয়ে আসতে হয়।”

শুধু তাই নয়, একসময় নিখিলকে ‘সহবাস সঙ্গী’ বলে উল্লেখ করে বেজায় বিপাকে পড়েছিলেন নুসরাত। এতদিনে নুসরাতের পাল্টা বিবৃতি, নিখিলের সঙ্গে সম্পর্ককে তিনি নিজে থেকে ‘সহবাস’ বলে উল্লেখ করেননি। নুসরাতের বক্তব্য, “নিখিল আমাকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছিল, সেখানে সহবাসের কথা লেখা ছিল। আমার মন্তব্য ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।”