বাংলা ভাষার জয় জয়কার, নিউইয়র্কের মেট্রো রেলের ডিসপ্লেতে স্থান পেল বাংলা ভাষা

বাংলা ভুলি কি করে? বাংলা তো বুকের ভিতরে! কিন্তু এই বঙ্গভূমির প্রত্যেক বঙ্গসন্তান কি তেমনটা মনে করেন? এই বাংলা ভাষার ভিত্তিতেই যেন বঙ্গ সন্তানদের দুই ভাগে ভাগ করা যায়। এক পক্ষের কাছে “মোদের গরব মোদের আশা, আ মরি বাংলা ভাষা”। কিন্তু অপর পক্ষের কাছে আবার গর্বের বিষয় হলো “জানেন দাদা আমার ছেলের বাংলাটা ঠিক আসে না”!

প্রত্যেক বাঙালির কাছে গর্ব স্বরূপ হওয়া উচিত ঐতিহ্যবাহী এই বাংলা ভাষা। নিজের মাতৃভাষার প্রতি শ্রদ্ধা থাকাটাই বাঞ্ছনীয়। বিশেষত যে ভাষা দেশ-কাল-সীমানার গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশের মাটিতেও গুরুত্ব পায়, সেই ভাষা-ভাষির মানুষের গর্ব হওয়াটাই স্বাভাবিক। বাংলা ভাষার মাহাত্ম্য এমনই যে সুদুর ইউনাইটেড স্টেটস অফ আমেরিকা অব্দি পৌঁছে গিয়েছে এই ভাষা।

হ্যাঁ, আমাদের প্রিয় বাংলা ভাষা কেবল আমাদের মাতৃভূমির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেনি। এই ভাষার বিস্তার এতই ব্যাপক যে বিশ্বের সবথেকে উন্নত রাষ্ট্রের একটি মেট্রো স্টেশনেও স্বমহিমায় উজ্জ্বল বাংলা ভাষা। বিদেশ-বিভূঁইয়ে গিয়ে নিজ দেশের মানুষ দেখলে স্বভাবতই মনে স্বস্তি আসে। তবে বিদেশের মাটিতে নিজের মাতৃভাষার এমন “গরব” দেখলে যাদের “বাংলাটা ঠিক আসে না”, তাদেরও শ্রদ্ধায় মাথা নত হতে বাধ্য।

সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে প্রথম এই বিষয়টি সকলের নজরে আসে। সুদুর নিউইয়র্কের জামাইকা সেন্টার থেকে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার পর্যন্ত মেট্রো সাবওয়ে ট্রেনের এলইডি ডিসপ্লেতে জ্বলজ্বল করছে বাংলা অক্ষর। ট্রেনটি এই লাইনে প্রতিদিন যাতায়াত করে। অর্থাৎ প্রতিদিনই বিদেশের মাটিতে মেট্রো সাবওয়ে মারফত বাঙালির আবেগ, বাঙালির গর্ব বাংলা ভাষার চর্চা চলে।

এমন দৃশ্য দেখে স্বভাবতই আপ্লুত বাঙালি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে এই ভিডিও। বাংলা ভাষাপ্রেমী বাঙালি তো বটেই, যাদের বাংলা বলতে মাথাটা হেঁট হয়ে যায়, তারাও কিন্তু আজ মনে মনে গর্ব অনুভব করছেন এবং ইউনাইটেড স্টেটস অফ আমেরিকার এই সিদ্ধান্তের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছেন।