চলবে লকডাউন, খোলা থাকবে এইসব দোকান, বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

চলবে লকডাউন, খোলা থাকবে এইসব দোকান, বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

রাজ্যের কোরোনা ভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে মঙ্গলবার ১২ তারিখ নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকেই তিনি জানান যে বর্তমান পরিস্থিতি দেখে এটাই ধারণা করা যায় যে কোরোনা ভাইরাসের প্রকোপ আরও দীর্ঘস্থায়ী হবে। এছাড়াও তিনি বলেন যে কড়া ভাবে চলতে থাকা লক ডাউনের মধ্যেই কাজ করতে হবে। আগামী তিন মাসের পরিকল্পনা প্রয়োজন বলেও জানালেন তিনি।  যেসব অঞ্চলগুলো রেড জোনের মধ্যে পড়ে সেগুলোতে আরও কিছু ছাড়ের কথা ঘোষণা করলেন তিনি।

সাংবাদিক বৈঠকে কি বললেন মুখ্যমন্ত্রী?

বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জানান যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও জানিয়েছেন যে এই অবস্থা অনেকদিন চলবে। এই অবস্থায় আগামী তিন মাসের পরিকল্পনা করতে হবে। এক্ষেত্রে রাজ্যের রেড জোন গুলিকে রেড জোন এ, রেড জোন বি এবং রেড জন সি এই তিন ভাগে ভাগ করার কথা বললেন মুখ্যমন্ত্রী।

কিভাবে রেড জোন ভাগ করা হবে?

রেড জোন এ – এই সমস্ত এলাকাগুলোতে কোনো পরিষেবা চালু করা হবেনা, কোনো ছাড়ও দেওয়া হবেনা।

রেড জোন বি – এই সমস্ত এলাকা গুলিতে বেশ কিছু ছাড় দেওয়া হলেও সেক্ষেত্রে মানতে হবে সামাজিক দূরত্বের নীতি। যে ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হলে সামাজিক দূরত্বের নীতি লঙ্ঘিত হবেনা শুধুমাত্র সেই বিষয়গুলিতে ছাড় দেওয়া হবে।

রেড জোন সি –   কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে ব্যারিকেড দেওয়া অংশ গুলি রেড জোন সি এর মধ্যে পড়বে।এই সব অঞ্চলকে কিছু কিছু জিনিস খোলা হবে। পুলিশ এই বিষয় নজর রাখবে।

কোন অঞ্চলে কি কি পরিষেবা চালু হবে সেই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে আগামী তিন দিনের মধ্যে। মুখ্যমন্ত্রী জানান যে ধাপে ধাপে অঞ্চলগুলোতে ছাড় দেওয়া হবে। প্রথম দফার ছাড় কালকে থেকে দেওয়া হবে এবং পরবর্তী ২১ মে থেকে।

করোনা রুখতে সিল হচ্ছে একাধিক এলাকা, লকডাউন আর সিলের পার্থক্য কি

লকডাউনে কোন কোন দোকান খোলা থাকবে?

  • সোনার দোকান, বৈদ্যুতিন সামগ্রীর দোকান খোলা থাকবে।
  • মোবাইল রিচার্জ এর দোকান খোলা থাকবে।
  • রেস্টুরেন্ট বাদে অন্যান্য খাবারের দোকান খোলা থাকবে।
  • ফিল্ম-টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রিতে এডিটিং, মিক্সিং, ডাবিং এর ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হবে তবে সেক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কাজ করতে হবে।
  • ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে বিড়ি শিল্পে ছাড়।
  • চা বাগান খোলা থাকবে। ( ৫০ শতাংশ শ্রমিক কাজ করতে পারবেন)
  • গ্রীন জোন এর ক্ষেত্রে বাস ও ট্যাক্সিতে ছাড়।
  • ১১ লক্ষ কিষাণ ক্রেডিট কার্ডকে অনুমোদন দেওয়ার ক্ষেত্রে ছাড়।
  • তাঁতের হাট খোলা থাকবে।

কখন দোকান খোলা থাকবে?

দোকান খোলা যাবে সকাল ৬টা থেকে ১২টা পর্যন্ত। দোকান খোলার ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব মানতে হবে।

১০০ দিনের কাজের ওপর জোর দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানান যে বাইরে থেকে যারা আসছেন তারাও ১০০ দিনের কাছে স্বেচ্ছায় যোগ দিতে পারবেন। রাজ্যের বাইরে আটকে থাকা ব্যাক্তিদের জন্য ১০০ টি ট্রেনের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী।