সোনু সুদকে আগামী প্রধানমন্ত্রী করা হোক, সোশ্যাল মিডিয়ায় উটছে দাবী, পাশে প্রিয়াঙ্কা

গত বছর করোনা যখন নিজের সর্বশক্তি দিয়ে পৃথিবীর বুকে আক্রমণ করে বসেছিল তখন ভারতও মহামারীর সংক্রমণের হাত থেকে রেহাই পায়নি। দেশজুড়ে আচমকা লকডাউন হয়ে যাওয়ায় সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন ভিন রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকেরা। খাদ্যের অভাবে, অর্থের অভাবে এমনকি বাসস্থানের অভাবে তারা ঐ লকডাউনের মধ্যে চরম বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছিলেন।

সেই সময় থেকেই ভারতের করোনা যুদ্ধে প্রথম সারির লড়াইয়ে অংশগ্রহণ করেছিলেন বলিউড অভিনেতা সোনু সুদ। পরিযায়ী শ্রমিকদের নিরাপদে বাড়ি পৌঁছে দেওয়া তখন তার একমাত্র লক্ষ্য হয়ে উঠেছিল। যে প্রান্ত থেকেই ডাক আসুক না কেন, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের কাছে পৌঁছে যেতেন সোনু এবং তার টিম। সেই থেকে করোনার বিরুদ্ধে তার লড়াই শুরু। যা আজ পর্যন্ত অব্যাহত।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে জর্জরিত ভারতবর্ষ। এই দফায় সারা দেশজুড়েই গণচিতা জ্বলছে। প্রতিদিন সংক্রমণের হার বৃদ্ধির পাশাপাশি মৃতের হার পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। স্বজন হারানোর যন্ত্রণার করুণ আকুতিতে বাতাসে যেন কান পাতাই দায়। করোনা সংক্রমিত হয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। মা-বাবাকে হারিয়ে অনাথ হয়ে পড়ছে বহু শিশু। এই শিশুদের ভবিষ্যৎ কি হবে? কে নেবে এদের দায়ভার?

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে সওয়াল করেন ভারতের আর্তপীড়িত মানুষের “মসিহা” সোনু। নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে করোনাকালে অভিভাবক হারানো অনাথ শিশুদের দায়িত্বভার নিয়ে পোস্ট করেছেন সোনু। সেখানে তিনি লিখেছেন, মারণ ভাইরাস যে সকল শিশুদের মা-বাবাকে কেড়ে নিয়েছে, তাদের দায়িত্বভার নিক কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার। সোনুর এই ভাবনাকে সমর্থন জানিয়ে নেটদুনিয়ায় এখন তাকেই দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মনোনীত করার দাবি তুলছেন নেটিজেনরা!

সোনুর পোস্ট নেটদুনিয়ায় রীতিমতো সাড়া ফেলে দিয়েছে। নেটিজেনদের মধ্যে অনেকেই তাকে সমর্থন জানিয়েছেন। তবে এর মধ্যে সোনুর সর্বাধিক উল্লেখযোগ্য সমর্থক হলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস। প্রিয়াঙ্কা নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে সোনুর কাজের ভূয়সী প্রশংসা করে লিখেছেন, “আমার সহকর্মী @Sonu_sood একাধারে দার্শনিক অন্যদিকে সমাজসেবী, তিনি ভাবেন এবং এগিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা রাখেন।”

সোনুকে সমর্থন জানিয়ে তিনি লিখেছেন, “মহামারীর আমাদের অনেক ভয়াবহ কাহিনি সামনে এনেছে, বহু শিশু তাদের বাবা-মা হারিয়েছে, তাদের পড়াশোনা একেবারে থমকে যাবে এবার, তাদের ভবিষ্যৎ কী হতে পারে? সেই চিন্তা এখন থেকেই সোনু সুদ করছেন। আমি অনুপ্রাণিত হয়েছি ওর এই ভাবনাতে।”

এরপর কেন্দ্র এবং রাজ্যের প্রতি আবেদন করে প্রিয়াঙ্কা চোপড়াও নিজের পোস্টে লিখলেন, “সোনুর পরামর্শ রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় সরকার উভয়েরই বিবেচনা করা উচিত, এই বিপুল সংখ্যক শিশুদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে তাদের পড়াশোনার দায়িত্ব প্রশাসনকেই নিতে হবে”। প্রিয়াঙ্কার এই সমর্থন পোস্ট সোনু সুদের চোখে পড়তেই তিনি প্রিয়াঙ্কাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।

প্রিয়াঙ্কার প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে তিনি লিখেছেন, “তোমার সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ প্রিয়াঙ্কা, আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি আমরা সবাই মিলে এটা করে দেখাব”। সোনুর এই অঙ্গীকারে নেটিজেনদের তার প্রতি প্রত্যাশা আরও বেড়ে গেল। সোনুর অনুগামীরা সকলেই একবাক্যে বলতে শুরু করেছেন, “সোনু সুদের আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিত”। এই সংকটময় পরিস্থিতিতে সোনু সুদের মতোই প্রধানমন্ত্রী দরকার ভারতবর্ষের, এমনটাই মনে করছেন নেটিজেনদের একাংশ।

উল্লেখ্য, দেশ এবং দশের উপকারের জন্য সোনু সুদ ইতিমধ্যেই বহু জনকল্যাণমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের পড়ুয়াদের জন্য স্মার্ট ফোন, ল্যাপটপ, ইন্টারনেট ব্যবস্থা এবং মেডিকেল পড়ুয়াদের জন্য বিশেষ স্কলারশিপের ব্যবস্থাও করেছেন তিনি। পাশাপাশি করোনার বিরুদ্ধে তার লড়াই তো এখনও অব্যাহত। তাই তার অনুরাগীরা মনে করেন সোনু সুদের মতো ব্যক্তিত্বই দেশের সর্বোচ্চ প্রশাসনিক আসনে বসার দাবি রাখেন।