সর্বকালের সেরা নিঃস্বার্থ ক্রিকেটার নিয়ে গঠিত হলো ক্রিকেট একাদশ

most selfless 11 cricketers of all time

কোনও খেলা একা খেলা যায় না। ক্রিকেটও বিকল্ নয়। এগারো জন খেলোয়াড়কে নিয়ে খেলতে হয় ক্রিকেট। ব্যক্তিস্বার্থ নয়, খেলতে  হয়  দলের স্বার্থ ভুলে দলের স্বার্থে। এটাই টিমওয়ার্ক।

বর্তমানে ষ্টাটিক্স নির্ভর যুগে প্রতিটি খেলোয়াড়ের কাছে দলের স্বার্থের থেকেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ নিজের রেকর্ড। ক্রিকেটের ইতিহাসে খুব কম ক্রিকেটার আছেন যারা নিজের আগে নিজের দলের কথা ভেবেছেন। সর্বকালের এইরকম সেরা ১১ জন নিঃস্বার্থ ক্রিকেটারদের নিয়ে গঠন করা হলো ‘ক্রিকেট একাদশ’। দেখে নিন এই ১১ জন ক্রিকেটারের তালিকায় কোন কোন ক্রিকেটার রয়েছেন।

১) গ্রেম স্মিথ : এই তালিকার শীর্ষে রয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার গ্রেম স্মিথ। এই ক্রিকেট একাদশ দলের অধিনায়ক হিসেবে তাঁর থেকে ভালো ক্যাপ্টেন আর কেউ হতে পারে না। ভাঙ্গা কনুই নিয়ে ১৭ বল খেলেছিলেন শুধুমাত্র ড্র করার জন্য।

২) যুবরাজ সিং : এই তালিকায় যুবরাজ সিং এর নাম না থাকাটা সম্ভব নয়। তার প্রমান ২০১১ আইসিসি বিশ্বকাপে দেখিয়ে দিয়েছেন তিনি। ক্যান্সার ধরা পড়লেও মাঠে ব্যাট নিয়ে টিমের হয়ে লড়েছেন যুবরাজ। তিনি একবার বলেছিলেন, তিনি মারা গেলেও কোনও ক্ষতি নেই, কিন্তু ম্যাচের শেষ বল পর্যন্ত খেলে তিনি দেশকে চ্যাম্পিয়ন করতে চান।

৩) সুরেশ রায়না : খেলার মাঠে টিমের সাফল্যে সব থেকে বেশি খুশি হতেন সুরেশ রায়না। এমনকি অন্য ব্যাটসম্যানদের সেঞ্চুরিতেও তিনি বেশি আনন্দিত ও উচ্ছসিত হতে দেখা গেছে রায়না কে। আইপিএলের একটি ম্যাচে ঋষভ পান্তের দুর্দান্ত সেঞ্চুরির পর তাকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন রায়না।

৪) মহেন্দ্র সিং ধোনি : মহেন্দ্র সিং ধোনি একবার নয় বহুবার নাম নিঃস্বার্থ কাজের জন্য  শিরোনামে এসেছে। দলের স্বার্থে কঠোর সিদ্ধান্ত নিয়ে তিনি বার বার সমালোচিত হয়েছেন, তবুও তিনি কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে কখনও পিছুপা হননি। দলের স্বার্থে বারবার তরুণ ব্যাটসম্যানেদের টপ অর্ডারে সুযোগ দিয়ে নিজে শেষে ব্যাট করতে নেমেছেন বারবার।

৫) অ্যাডাম গিলক্রিস্ট : অ্যাডাম গিলক্রিস্ট ক্রিকেটের দুনিয়ায় একজন সেরা ক্রিকেটার পার্সোনালিটি। ১২ বার আম্পায়ারের আঙুল তোলার আগেই নিজেই মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে গেছেন তিনি, যেটা ক্রিকেটের ইতিহাসে সচরাচর দেখা যায় না।

৬) রিচার্ড হ্যাডলি : টেস্টের এক ইনিংসে একবার তিনি ৯টি উইকেট  নিয়েছিলেন। আর একটি উইকেট নিয়ে নিলে তিনি বিশ্বের দ্বিতীয় বোলার হিসেবে তিনি ১০ টি উইকেট নিয়ে নেওয়ার রেকর্ড করে ফেলতেন।   কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ক্যাচ মিস হয়ে যাওয়ার কারণে তাঁকে ৯ উইকেট নিয়েই শান্ত থাকতে হয়।  তবে এর জন্য কখনও তিনি কাউকে দোষারোপ না করে নিঃস্বার্থতার পরিচয় দিয়েছিলেন।

৭) শন পোলক : ক্রিকেটে স্লেজিং খুব কমন ব্যাপার। ক্রিকেটে স্লেজিং অতি নিয়মিত একটা ব্যাপার। যারা নিয়মিত ক্রিকেট দেখেন তারা জানেন স্লেজিং জিনিসটা কি। আর যারা জানেন না তাদের উদ্দেশ্যে বলি, ক্রিকেটে প্রতিপক্ষের বোলার বা ব্যাটসম্যানকে উদ্দেশ্য করে কটুক্তি করাকে বলা হয় স্লেজিং। স্লেজিং করে বোলার বা ব্যাটসম্যানকে উত্তেজিত করে আউট করানোর চেষ্টা করা হয়।

বিশ্বে হাতে গোনা মাত্র কয়েকটা  বোলার রয়েছে যারা কোনও দিনও ব্যাটসম্যানদের স্লেজিং করেননি। এদের মধ্যে অন্যতম হলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন অধিনায়ক তথা ফাস্ট বোলার শন পোলক। টেস্ট ক্রিকেটে স্লেজিং ছাড়াই তিনি ৪০০টি উইকেট দখল করেছেন।

আরও পড়ুন : ৫ ক্রিকেটার যারা ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে অন্য পেশা বেছে নিয়েছেন

৮) অনিল কুম্বলে : নিজের টিমের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটের সর্বাধিক ৬১৯টি উইকেট নিয়েছেন অনিল কুম্বলে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে একটি টেস্ট ম্যাচে ভাঙ্গা চোয়াল নিয়ে ব্রায়ান লারার উইকেট নেন তিনি।

৯) লাসিথ মালিঙ্গা : শ্রীলংকার টিমের কথা উঠলেই লাসিথ মালিঙ্গার নাম আসবেই। সব সময় নিজের দলের জন্য লড়েছেন তিনি। বর্তমানের সেরা বোলার জসপ্রিত বুমরাহকে নিজে হাতে ট্রেনিং দেন তিনি।

আরও পড়ুন : ভারতকে যে ৫ সেরা ক্রিকেটার উপহার দিয়ে গেলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি

১০) ওয়াসিম আক্রম : পাকিস্তানের ক্রিকেটে বোলিং  দুনিয়ায় সেরা করে তোলার পিছনে ওয়াসিম আক্রমের অবদান সবথেকে বেশি। কেবল পাকিস্তান নয় প্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের ফাস্ট বোলারদের জন্যও বারবার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার ইরফান পাঠান ও বর্তমান বোলার মহম্মদ শামিকে তিনিই ট্রেনিং দিয়েছিলেন।

১১) কেন উইলিয়ামসন : ২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে কেন উইলিয়ামসনের ভদ্রতার ও নম্রতার পরিচয় পেয়ে গোটা বিশ্ব।  বিতর্কিত নিয়মের কারণে বিশ্বকাপ হেরে যাওয়ার পরও তিনি যে নম্রতার পরিচয় দিয়েছিলেন তাতে এই ক্রিকেটারের প্রতি আমাদের সম্মান আরও অনেকখানি বেড়ে যায়।