হাতে নেই কাজ, বিধ্বস্ত জীবন, ফেসবুক লাইভে আত্মহ’ত্যার চেষ্টা ‘মিঠাই’ খ্যাত অভিনেতার

হাতে নেই কাজ, আইনি জটিলতায় বিধ্বস্ত জীবন, লাইভে এসে আত্মহ'ত্যার চেষ্টা ‘মিঠাই’খ্যাত অভিনেতার

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে এক জনপ্রিয় টেলিভিশন (Bengali Telivision) অভিনেতার ভয়ঙ্কর লাইভ ভিডিও দেখে কার্যত আঁতকে উঠেছিলেন নেটিজেনরা। সেখানে দেখা যাচ্ছিল জনপ্রিয় অভিনেতা শৈবাল ভট্টাচার্য (Saibal Bhattacharya) নিজেকেই নিজে চপারের আঘাত করছেন! রক্তাক্ত শরীরে মোবাইল ক্যামেরার সামনে তাকে বলতে শোনা যায়, “আইন নিজের হাতে তুলে নিতে বাধ্য হলাম। এর জন্য আমার স্ত্রী শাশুড়ি…’’।

সম্পূর্ণ কথাটা তিনি শেষ করতে পারেননি। তবে এই ভিডিওটি সামনে আসার পর থেকেই শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে নানা ধরনের তরজা। ইনি হলেন বাংলা ধারাবাহিক খ্যাত অভিনেতা শৈবাল ভট্টাচার্য। কিছুদিন ‘মিঠাই’ ধারাবাহিকেও কাজ করেছিলেন তিনি। অপরাজিতার ছাত্রীর বাবার ভূমিকার জন্য তাকে তিন থেকে চার দিনের কাজের সুযোগ দিয়েছিলেন পরিচালক রাজেন্দ্র প্রসাদ দাস। এহেন অভিনেতা কেন হঠাৎ চরম পথ বেছে নিতে চাইলেন সেই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

আপাতত এই ঘটনা নিয়ে উদ্বিগ্ন টেলিপাড়া। গুরুতর আহত অবস্থায় শৈবাল ভট্টাচার্যকে উদ্ধার করে চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। সোমবার রাতে কসবার ফ্ল্যাটে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তিনি নিজেকে আঘাত করেন। তার শারীরিক অবস্থা সংকটজনক বলে জানা গিয়েছে। মাথায় এবং পায়ে গুরুতর আঘাত রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

একসময় বাংলা টেলিভিশনে প্রচুর কাজ করেছিলেন শৈবাল ভট্টাচার্য। তবে ইদানিং তার হাতে তেমন কাজ ছিল না। গত বছরই তিনি বিয়ে করেন স্নিগ্ধা বসুকে। শোনা যাচ্ছিল হাতে কাজ না থাকার জন্য নাকি অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। সেইসঙ্গে মদের নেশাও করতে শুরু করেছিলেন কয়েক মাস ধরে। এদিনও মাদকাসক্ত হয়েই তিনি এই কান্ডটি ঘটিয়েছেন বলে পরিবারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে।

মিঠাই ধারাবাহিকের পরিচালক রাজেন্দ্র প্রসাদ দাসের কথা অনুসারে সম্ভবত আইনি জটিলতাতেও জড়িয়ে পড়েছিলেন শৈবাল। পরিচালক বলেছেন, “এক দিন উনি একটু দেরিতে শ্যুটে আসেন। কারণ ওঁকে আদালতে যেতে হয়েছিল। উকিলের সঙ্গেও মনে হয় কথাবার্তা বলার ছিল। কিন্তু বিষয়টা ঠিক কী, তা জানি না। ওঁর মধ্যে কখনও কোনও অস্বাভাবিকত্ব দেখিনি। খুব মন দিয়ে কাজ করছিলেন। সব সংলাপও খুব ভালো ভাবে মনে রাখতেন। বারবার জানতে চাইতেন কাজ ভালো হচ্ছে কি না। বুঝতেই পারিনি এ রকম একটা পদক্ষেপ করবেন”।

‘প্রথমা কাদম্বিনী’ ধারাবাহিকের এই অভিনেতাকে গত বছর স্টার জলসাতে মহালয়ায় নারদের চরিত্রেও দেখা গিয়েছিল। বাংলা টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রিতে যেভাবে একের পর এক আত্মহত্যার মত ঘটনা ঘটে চলেছে তাতে শৈবাল ভট্টাচার্যের এই ঘটনাও উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। কিছুদিন আগেই পল্লবী, বিদিশাদের আত্মহত্যার খবর কার্যত নাড়িয়ে দিয়ে গিয়েছিল টলিউডকে। তার মধ্যেই শৈবাল ভট্টাচার্যের ঘটনা আরও একবার অভিনয় দুনিয়ার নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে।