কাল থেকে লাগু নয়া নিয়ম, দেখে নিন Unlock 2.0-র নতুন নিয়ম

7514

প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় তো দেশে ২০ হাজার ছুঁইছুঁই আক্রান্তের সংখ্যা। এমন পরিস্থিতিতে সোমবার দ্বিতীয় পর্যায়ের আনলকের (Unlock 2.0) নিয়ম কানুন ঘোষণা করল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। একইসঙ্গে দেশজুড়ে ৩১ জুলাই পর্যন্ত বাড়লো লকডাউন। কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে এই লকডাউন কার্যকর থাকবে।

দেশজুড়ে বাড়তে থাকা আক্রান্তের সংখ্যার মাঝেই তিন মাসের লক ডাউনের পর চলতি মাসে শুরু হয় আনলক করার পর্ব অর্থাৎ আনলক ১ যেখানে অনেক বিষয় ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছিল। এবার জারি হলো আনলক ২ অর্থাৎ পুরো দেশকে আনলক করার দ্বিতীয় ধাপ। ১ লা জুলাই থেকে দেশ জুড়ে এই আনলকের দ্বিতীয় পর্যায় শুরু হবে।এই ধাপে অতি সংক্রমিত এলাকা বা কনটেনমেন্ট জোন গুলি বাদে বাকি দেশকে ছন্দে ফেরানোর দ্বিতীয় ধাপ এটা।

আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত দেশ জুড়ে স্কুল কলেজ, সবরকম কোচিং ইনস্টিটিউট অর্থাৎ ইনস্টিটিউশনাল ইনস্টিটিউশন গুলি বন্ধ থাকবে। তবে অনলাইনে বা ডিসটেন্স লার্নিং প্রক্রিয়ায় পড়াশোনা চালু থাকবে। বন্ধ থাকবে  আন্তর্জাতিক উড়ান (বন্দে ভারত মিশন ব্যতিত), জিম, সুইমিং পুল, ধর্মীয়-সামাজিক জমায়েত। এগুলি কবে খোলা হবে, সে সম্পর্কে পরে দিনক্ষণ ছিক করা হবে। বন্ধ থাকবে মেট্রো পরিষেবা, সিনেমা-থিয়েটার হল, বার।

অতি সংক্রমিত এলাকা বা কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত চলবে কড়া লক ডাউন। এই বিষয় রাজ্যগুলিকে বিশেষ নজরদারির বার্তা দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে প্রয়োজনে এইসব অঞ্চলের জন্য নতুন নিয়ম লাগু হতে পারে।সরকারি ভাবে বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই এলাকাগুলোকে শনাক্ত করা হবে।

কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে বিধিনিষেধ মেনে রাজ্য এবং কেন্দ্রের ট্রেনিং ইনস্টিটিউশন গুলিকে ১৫ জুলাই এর পর থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হবে। কনটেনমেন্ট জোনে ৩১ জুলাই, ২০২০ পর্যন্ত কড়াভাবে লকডাউন পালন করতে হবে। কোনগুলি কনটেনমেন্ট জোন তা সরকারিভাবে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হবে।

 

কিছু বিষয় আগামী দিনে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কিন্তু আপাতত বন্ধই থাকবে। এগুলির মধ্যে আছে মধ্যে আছে – আন্তর্জাতিক উড়ান( ব্যতিক্রম – বন্দেভারত মিশন ), মেট্রো রেল,বার, সিনেমা হল,থিয়েটার জিম, সুইমিং পুল, বিনোদন পার্ক, অডিটোরিয়াম ইত্যাদি।যদিও অভ্যন্তরীণ বিমান ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে।

খেলার অনুষ্ঠান বা কোনো রাজনৈতিক অনুষ্ঠান বা ধর্মীয় সভা কবে থেকে করা যাবে সেই বিষয় এই আনলকের দ্বিতীয় পর্যায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

অতি সংক্রমিত এলাকার বাইরে কোনো দোকানে একসাথে পাঁচজনের বেশী গ্রাহক উপস্থিত থাকতে পারবেন না এবং সেক্ষেত্রেও বাধ্যতামূলক সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। বাকি বিষয় রাজ্যের সাথে আলোচনা করে পরবর্তীকালে ঠিক করা হবে বলেই জানা যাচ্ছে।

দেশজুড়ে নাইট কারফিউয়ের সময় কমানো হল। ১ জুলাই থেকে রাত ১০ টা থেকে ভোর পাঁচটা অবধি এই কারফিউ জারি থাকবে। তবে শর্তসাপেক্ষে অনেকেই এই কারফিউতে ছাড় পাবেন।  এর মধ্যে রয়েছেন শিফটিং ডিউটি থাকা অফিসের কর্মচারীরা, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য পরিবহণের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তি-সহ অন্যান্যরা। রাত ১০ টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত জরুরি পরিষেবা বাদে নাইট কার্ফু চলবে। শিফটিং ডিউটির আফিসার বা জরুরি প্রয়োজনের পরিষেবা চলবে।