Breaking  News : মাসুদ আজহার মৃত না জীবিত? জেনে নিন আসল সত্য

871

জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারের মৃত্যু হয়েছে বলে সূত্রের খবর। পাকিস্তানের একাধিক সূত্র মারফত এই খবর পাওয়া যাচ্ছে। পুলওয়ামা ও মুম্বাই হামলার মাথা জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহার কি মৃত? আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সিএনএন ও আই এস-এর রিপোর্ট অনুযায়ী কিডনি ফেল করে শনিবার রাতেই মারা গিয়েছে এই জঙ্গি নেতা।

তবে পাকিস্তান কোনওভাবেই এখন এই খবর বাইরে আসতে দিতে চাইছে না। তবে একটি সূত্রের খবর, এয়ার স্ট্রাইকেই মারা গিয়েছে মাসুদ। এর আগে শোনা গিয়েছিল, তার কিডনির চিকিৎসা চলছে। তবে এখন মাসুদের মৃত্যু খবরের সত্যতা জানা যায়নি।

দিন কয়েক আগে পাকিস্তানের তরফ থেকে স্বীকার করা হয়েছিল মাসুদ গুরুতর শারীরিক অবনতির কারণে রাওয়ালপিণ্ডি সেনা হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। ডায়ালাইসিস চলছিল এমনও খবর পাওয়া যায়। কিন্তু মাসুদ এর মৃত্যুর খবর এখন পাকিস্তান ঘোষণা না করলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে তার মৃত্যু খবর।

গত ১৪ই ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় সিআরপিএফ জওয়ানদের কনভয়ে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার পর সেই হামলার দায়ভার নেয় জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ। তারপর ১২ দিন মাথায় সেই জঙ্গি হামলার বদলা নিতে ভারতীয় বায়ুসেনা পাকিস্তানের মাটিতে চালায় এয়ার স্ট্রাইক। বোমার আঘাতে গুঁড়িয়ে দেয় বালাকোটে অবস্থিত জইশের সবচেয়ে বড় এবং অন্যতম ঘাঁটি বালাকোট ঘাঁটিতে|  এয়ারস্ট্রাইকের পর খবর আসে মাসুদের ২ আত্মীয় সহ ৫ জইশ কম্যান্ডারের মৃত্যু হয়েছে।

তবে ভারতীয় বায়ুসেনা দের হামলার সময় মাসুদ ওই ঘাঁটিতে ছিলেন বলেই বিভিন্ন সূত্র দাবি করছে। আর হামলার পরই আহত হন ওই জঙ্গি নেতা। যদিও অন্য সূত্র এমনটা দাবি উড়িয়ে দিয়েছে। তাদের দাবি হামলার সময় সেখানে ছিলেন না মাসুদ। শারীরিক অসুস্থতার কারণে তার চিকিৎসা চলছিল।

Read More : ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গির তালিকায় কারা? দেখে নিন তালিকা

আল্লার দয়াতে বহাল তবিয়তে রয়েছেন জইশ-ই-মহম্মদ সুপ্রিমো মাসুদ আজহার। জইশের তরফে বিবৃতি দিয়ে জইশ প্রধানের মৃত্যুর খবর পুরোপুরি অস্বীকার করা হয়। একই সঙ্গে জানানো হয় যে, আল্লাহ কৃপায় ভালোই রয়েছেন জইশ প্রধান। শুধু তাই নয়, তিনি চিকিৎসায় ধীরে ধীরে সাড়া দিচ্ছেন বলেও জইশের তরফে দেওয়া বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ২৬ তারিখের ভোরে ভারতীয় বায়ুসেনার হামলার পর বৃহস্পতিবার পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি টেলিভিশনে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে স্বীকার করে নিয়েছিলেন যে, “মাসুদ বর্তমানে পাকিস্তানেই রয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ। এই মুহূর্তে চিকিৎসা চলছে। শারীরিক অবস্থা এতটাই খারাপ যে বাড়ি থেকে বের হওয়ার মত ক্ষমতাও তার নেই।”