২৪ ঘণ্টা মানুষের সেবায় ভারতের প্রথম মহিলা অ্যাম্বুলেন্স চালক এম বীরালক্ষ্মী

নারী বিশ্ব জয় করেছে। যুদ্ধক্ষেত্র থেকে মহাকাশ, সব খানেই আধুনিক নারীর অবাধ বিচরণ। নারীরা চাইলে পারেনা এমন কোনো কাজই আর নেই। এই কথাই আবারও চোখে আঙ্গুল দিয়ে মনে করিয়ে দিলেন তামিলনাড়ুর এম বীরালক্ষ্মী। কোরোনা পরিস্থিতিতে অ্যাম্বুলেন্সের স্টিয়ারিং হাতে নেমে পড়লেন রাস্তায়।

বীরালক্ষ্মীর অনেকদিনের ইচ্ছা ছিল অ্যাম্বুলেন্স চালাবেন কোনও দিন। লাগবেন মানুষের সেবাই। সেই স্বপ্ন পূরণ হওয়ার পর তিনি জানিয়েছেন, “আমি একজন গাড়ি চালক হিসেবে রাস্তাকে একেবারেই ভয় পাই না। কিন্তু আমি চাইতাম, শুধু রোজগার নয়, একই সঙ্গে মানুষের সেবাও করব। সেই সুযোগটাই পেয়ে গেলামা।”

বছর ৩০ এর বীরালক্ষ্মী দুই সন্তানের মা। এর আগে ক্যাব চালাতেন তিনি। এক সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানালেন, পদ খালি আছে জেনে তিনি আবেদন করেছিলেন। ইন্টারভিউতে যে তিনি পাশ করে যাবেন সেই কথাও জানতেন তিনি। তবে তার কথায় তিনিই যে দেশের প্রথম মহিলা অ্যাম্বুলেন্স চালক হতে চলেছেন, তা জানতেন না তিনি।

অনেকদিন ধরেই তার ইচ্ছা ছিল অ্যাম্বুলেন্স এর স্টিয়ারিং হাতে ধরার। তিনি জানান যে গাড়ি চালক হিসেবে রাস্তাকে কোনোদিন ভয় পাননি তিনি তবে তার ইচ্ছে ছিল রোজগারের সাথে সাথে মানুষের সেবা করতে। এবার অ্যাম্বুলেন্স এর চাবি হাতে পেয়ে সেই সুযোগই পেলেন তিনি।

নিজের অজান্তেই তিনি হয়ে উঠলেন দেশের প্রথম মহিলা অ্যাম্বুলেন্স চালক! এই কথা নিজে স্বীকার করেছে তামিলনাড়ু সরকারই। প্রেস বিবৃতি দিয়ে সরকার জানিয়েছে ৩০ বছরের বীরালক্ষ্মী ভারতবর্ষের প্রথম মহিলা অ্যাম্বুলেন্স চালক।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বর্তমান মহামারী পরিস্থিতিতে রাজ্যের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত জরুরি পরিষেবা আরও উন্নত করতে সম্প্রতি তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী কে পালানিস্বামী নতুন ১১৮ টি অ্যাম্বুলেন্স উদ্বোধন করেছেন। তামিলনাড়ুতে ১০৮ নম্বর ডায়েল করে যে জরুরি অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা পাওয়া যায়, সেই গুলির মধ্যে একটি চালাবেন বীরালক্ষ্মী।

গত ২৪ মার্চ তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী পালানিস্বামীর প্রেস বিবৃতি থেকে জানা যায় এই জরুরি পরিষেবার ৫০০ টি নতুন অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা যুক্ত করা হবে যাতে খরচ হবে মোট ১২৫ কোটি টাকা। কোরোনা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্যই এই নতুন পদক্ষেপ।

আরও পড়ুন : দেশের সেরা ৫ মহিলা IPS অফিসার, যাঁরা পিছনে ফেলে দিয়েছেন পুরুষদের

এই নতুন ভাবনার একটি অংশ হিসেবে ২০.৬৫ কোটি টাকা খরচ করে ৯০‌টি অ্যাম্বুলেন্স ও ৩.০৯ কোটি টাকা দামে ১০টি রক্ত সংগ্রহের গাড়ি চালু করেছেন তারা। একটি বেসরকারি সংস্থার তরফ থেকে আরও ১৮ টি অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হয়েছে রাজ্যকে। সেই ১১৮ টি  অ্যাম্বুলেন্স উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন : ভারতের একমাত্র রাজ্য যেখানে সব প্রশাসনিক পদে আছেন মহিলারা

তামিলনাড়ু সরকার বীরালক্ষ্মীকে দেশের প্রথম অ্যাম্বুলেন্স চালকের তকমা দিলেও এই বাংলাতেই কিন্তু রয়েছেন এক মহিলা অ্যাম্বুলেন্স চালক। উত্তর দিনাজপুর জেলার দক্ষিণ হেমতাবাদের বাসিন্দা এই মহিলা অ্যাম্বুলেন্স চালকের নাম সেলিনা বেগম।