বেড়ে গেল গ্যাসের দাম, জানুন আপনার জেলায় সিলিন্ডার পিছু নতুন দাম

4882

পেট্রোল ডিজেল অথবা সোনার দামের মত রান্নার গ্যাসের দামও বাড়া কমা হয়। তবে রান্নার গ্যাসের দামের ক্ষেত্রে মাসের প্রথমেই দাম বৃদ্ধি অথবা কম হিসাব করে রান্নার গ্যাস সিলিন্ডারের দাম নির্ধারণ করা হয়। আর এই হিসাব মত দেখা যায় প্রতি মাসেই রান্নার গ্যাস সিলিন্ডারের দাম কমে অথবা বাড়ে। আর সেই হিসাবে জুলাই মাসে কিছুটা হলেও রান্নার গ্যাস সিলিন্ডারের দাম বাড়ল।

গত মাসের মত জুলাই মাসেও রান্নার গ্যাসের দাম বেড়েছে। তবে এমাসে দাম বৃদ্ধি পেলেও তা অন্যান্য মাসের তুলনায় অনেকটা কম। ১লা জুলাই অর্থাৎ বুধবার থেকে ভর্তুকিহীন ১৪.২ কেজি রান্নার গ্যাস সিলিন্ডারের দাম বেড়েছে সাড়ে চার টাকা। দাম বৃদ্ধির পর ভর্তুকিহীন রান্নার গ্যাসের দাম বেড়ে দাঁড়াচ্ছে সিলিন্ডার প্রতি ৬২০ টাকা ৫০ পয়সা।

অন্যদিকে ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে ব্যবহৃত বাণিজ্যিক ১৯ কেজি রান্নার গ্যাসের দাম সিলিন্ডার প্রতি ৭ টাকা বেড়ে দাঁড়াচ্ছে ১২০০ টাকা ৫০ পয়সা। জুলাই মাসের শুরুতে রান্নার গ্যাসের দাম সিলিন্ডার প্রতি বাড়ার পর পরপর দুমাস গ্যাসের দাম বাড়লো। তবে জুলাই মাসে সিলিন্ডার প্রতি কতটা করে ভর্তুকি দেওয়া হবে তা এখনো পর্যন্ত স্পষ্ট করে কিছু জানায়নি কর্তৃপক্ষ।

গত মাসে অর্থাৎ জুনে দেশের বিভিন্ন জায়গায় এক ধাক্কায় গ্যাসের দাম বেড়েছিল সিলিন্ডার প্রতি ৩৭ টাকা। আর কলকাতায় দাম বেড়েছিল সিলিন্ডার প্রতি ৩১ টাকা ৫০ পয়সা। তবে এ মাসে গত মাসের তুলনায় দাম বাড়লেও তা অনেকটা কম। তা সত্ত্বেও পরপর দুমাস এই ভাবে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বর্তমান পরিস্থিতিতে মধ্যবিত্তদের নাভিশ্বাস অবস্থা হবে তা নিশ্চিত।

একদিকে জ্বালানির দাম বৃদ্ধি, আর তার কারণে প্রতিনিয়ত বেড়ে চলেছে শাকসবজি থেকে শুরু করে অন্যান্য জিনিসপত্রের দাম। এমত অবস্থায় রান্নার গ্যাসের দাম বৃদ্ধি মধ্যবিত্তদের মাথায় বাড়তি বোঝা হয়ে দাঁড়াবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

পশ্চিমবঙ্গে জেলাভিত্তিক সিলিন্ডার পিছু নতুন দাম

এই সম্পর্কিত আরও পড়ুন :-

 সস্তায় গ্যাস সিলিন্ডার পেতে চাইলে মেনে চলুন এই পদ্ধতি

রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডারে আর কতটা গ্যাস বেঁচে আছে বুঝবেন কীভাবে

গ্যাস সিলিন্ডার ডেলিভারী দিতে বাড়তি টাকা দেন? কি জানাচ্ছে LPG সংস্থা

জুলাই মাসে সিলিন্ডার প্রতি রান্নার গ্যাসের দাম বৃদ্ধি প্রসঙ্গে আইওসি’র তরফ থেকে জানানো হয়েছে আন্তর্জাতিক বাজারে এলপিজির দাম বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে এই মূল্য বৃদ্ধি ঘটেছে। প্রতি মাসে আন্তর্জাতিক বাজারে এলপিজি দামের পরিপেক্ষিতে দেশে সিলিন্ডার প্রতি গ্যাসের দাম নির্ধারণ করা হয়।