ফের বাড়লো লকডাউন, জারি হল একাধিক বিধি-নিষেধ

11459

পশ্চিমবঙ্গে আগামী ৩০ শে জুন পর্যন্ত বাড়ানো হলো লকডাউনের মেয়াদ। মে মাসে চতুর্থ দফা লকডাউন শেষ হওয়ার সময় কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে ঘোষণা করা হয়েছিল পঞ্চম দফার লকডাউন চলবে ৩০ শে জুন পর্যন্ত।

এর পরেই সোমবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, পশ্চিমবঙ্গে ৩০ শে জুন পর্যন্ত চলবে লকডাউন। তবে এই লকডাউনে সব বন্ধ থাকবে না, বরং ধাপে-ধাপে তালা খোলার পর্যায়।

পঞ্চম দফার লকডাউন চলাকালীন জুন মাসের ৮ তারিখ অর্থাৎ আজ থেকে শুরু হয়েছে ‘আনলক ফেজ ১’। সেই মতো আজ থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তালা খুলতে শুরু করেছে।

চলবে লকডাউন, খোলা থাকবে এইসব দোকান, বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

কেন্দ্র সরকারের ঘোষণা মতোই আজ থেকে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় শপিংমল ও রেস্তোরাঁ খুলছে। ব্যবসা-বাণিজ্যের জায়গায় তালা খুলতে শুরু করলেও অবাধ চলাচলের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা থাকছে আগামী ৩০ শে জুন পর্যন্ত। এছাড়াও থাকছে একগুচ্ছ বিধি-নিষেধ।

পঞ্চম দফার লকডাউন চলাকালীন বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ছাড় মিললেও এখনো পর্যন্ত কড়াভাবে মেনে চলতে হবে কয়েকটি ক্ষেত্রকে। যেমন এখনো বন্ধ থাকবে আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা, সিনেমা হল, মেট্রো রেল, জিমনাশিয়াম, সুইমিং পুল, বিনোদন পার্ক, থিয়েটার, বার, অডিটোরিয়াম। পাশাপাশি বন্ধ থাকবে যে কোনো রকমের জমায়েত, তা ধর্মীয় অথবা রাজনৈতিক যাই হোক না কেন।

করোনা রুখতে সিল হচ্ছে একাধিক এলাকা, লকডাউন আর সিলের পার্থক্য কি

তবে এই দফায় আন্তঃরাজ্য যাতায়াতের ক্ষেত্রে কোনরকম বিধিনিষেধ থাকছে না। আর এপ্রসঙ্গেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন জানান, শ্রাদ্ধানুষ্ঠান ও বিয়ে বাড়িতে ২৫ জনের বেশি জমায়েত করা যাবে না।আর এই পঞ্চম দফার লকডাউনকে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে কঠোরভাবে মেনে চলার কথা বলা হয়েছে কনটেইনমেন্ট জোন এলাকায়।

এই সকল এলাকায় কেবলমাত্র জরুরী পরিষেবা ছাড়া আর অন্য কিছু খোলা থাকবে না। আর এই কনটেইনমেন্ট জোন কোন কোন এলাকাকে চিহ্নিত করা হবে অথবা তার পরিধি কতটা হবে তা চিহ্নিত করবে রাজ্য সরকার ও স্থানীয় প্রশাসন। সেমতই মুখ্যমন্ত্রী এদিন জানিয়ে দেন, কনটেইনমেন্ট জোন এলাকায় সমস্ত রকম নিষেধাজ্ঞা জারী থাকবে।