লকডাউন পাল্টে দিয়েছে CID দয়ার জীবন! দরজা ভেঙে জনপ্রিয় ‘দয়া’র দিন কাটছে এইভাবে

CID-তে দরজা ভাঙার জন্য ছিলেন জনপ্রিয়, করোনায় দুর্বিষহ দিন কাটছে দয়ার

দীর্ঘ প্রায় দুই দশক ধরে টেলিভিশনের পর্দায় দাপট দেখিয়েছেন যারা তারা হলেন এসিপি প্রদ্যুমন (ACP Pradyumna) ও তার সহকারি দয়া (Daya)। টেলিভিশনের রহস্য-রোমাঞ্চ ধারাবাহিক সিআইডির (CID) এই দুই চরিত্রসহ অন্যান্য সব চরিত্রদের আজও অক্ষরে অক্ষরে মনে রেখেছেন দর্শক। ক্রাইম থ্রিলার সমন্বিত এই ধারাবাহিক নিয়ে আজও নস্টালজিয়ায় ভোগেন দর্শক। আর এই ধারাবাহিকে ‘দয়া’র চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন যিনি, তিনি তার ইউনিক দরজা ভাঙার স্টাইলের জন্য আজও বিখ্যাত।

ধারাবাহিকের এই বিশেষ চরিত্রটিকে পর্দায় ফুটিয়ে তুলেছিলেন জনপ্রিয় অভিনেতা দয়া নন্দ শেট্টি (Daya Nand Shetty)। তার নাম এবং ধারাবাহিকের চরিত্রের নাম ছিল একই। তিনি ১৯৯৮ সালে ধারাবাহিকে যোগ দিয়েছিলেন। এরপর ২০০৫ সাল পর্যন্ত তিনি একটানা ধারাবাহিকে কাজ করে গিয়েছেন। এই ধারাবাহিকের দৌলতে তিনি যতটা জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন, তার থেকেও বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন ধারাবাহিকের দরজা ভাঙার দৃশ্যে।

তবে শুধু ধারাবাহিকেই নয়, দয়া নন্দ শেট্টি সিআইডি ছাড়াও বলিউডের বেশ কিছু সিনেমাতে অভিনয় করেছিলেন। আবার বেশ কিছু টিভি সিরিয়ালেও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাকে। ধারাবাহিকের যে দরজা ভাঙার দৃশ্যের জন্য তিনি এত জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন, সেই সম্পর্কে তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন প্রথমদিকে এই দৃশ্য সম্পর্কে তার কোনও ধারণাই ছিল না। আসলে ধারাবাহিকের শুরুর দিকে অনেকবার ফ্রেডিও দরজা ভাঙ্গার কাজ করতেন।

তবে পরবর্তীকালে একটা সিকোয়েন্স চলাকালীন তাকে দরজা ভাঙতে বলা হয়। সেই দৃশ্যটি দর্শকদের বেশ পছন্দ হয়েছিল। তার পর থেকে তিনি তার ইউনিক স্টাইলেই দরজা ভাঙতেন। যা পরবর্তীতে দর্শকদের মনে গেঁথে যায়। তবে প্রভূত জনপ্রিয়তা থাকা সত্বেও শেষ কয়েকটা বছর তার পক্ষে বিশেষ সুবিধাজনক ছিল না। বিশেষত করোনাকালে সম্পূর্ণ ইন্ডাস্ট্রির সকল কলাকুশলীদের মতো তার কাছেও কোনও কাজ ছিল না।

শেষবার ২০১৯ সালে তাকে ক্যামেরার সামনে দেখা গিয়েছিল। তবে আগামী দিনে তার হাতে বেশ কিছু প্রজেক্টের কাজ রয়েছে। শোনা যাচ্ছে, এমএক্স প্লেয়ারের ক্রাইম থ্রিলার ওয়েবসাইটে কাজ করতে চলেছেন দয়া নন্দ শেট্টি। পছন্দের অভিনেতাকে আবারও ক্যামেরার পর্দার সামনে দেখার অপেক্ষায় দিন গুনছেন তার ভক্তরা।