কোন হাসপাতালে বেড ফাঁকা, কোথায় অ্যাম্বুলেন্স, যোগাযোগ করুন এই নম্বরে

কোভিড ১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের আঘাতে পুরো দেশজুড়ে টালমাটাল অবস্থা। প্রতিদিন লক্ষাধিক হারে করোনায় সংক্রমিত হচ্ছেন মানুষ, তার‌ই সঙ্গে রীতিমতো পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। গত দুই দিনে দৈনিক সংক্রমিতের সংখ্যা ও মৃত্যুর সংখ্যা কিছুটা কম হলেও বুধবার আবার নিজের পূর্বতন রূপে ফিরে গিয়ে থাবা বসালো করোনা। ৫মে নতুন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন প্রায় ৪ লক্ষ মানুষ আর মৃত্যুর সংখ্যা ও প্রায় ৪ হাজার। দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুর এই সংখ্যাটা আবার নতুন করে উদ্বেগ বাড়িয়েছে।

আমাদের রাজ্যেই গত ২৪ ঘন্টায় সংক্রমিত হয়েছেন ১৭ হাজার ৬৩৯ জন। এই মুহূর্তে মোট ১ লক্ষ ২১ হাজার ৯৩১ জন করোনা সংক্রমিত রোগী চিকিৎসাধীন। ঊর্ধ্বমুখী করোনার গ্রাফের দিকে তাকালেই পরিস্থিতির ভয়াবহতা আন্দাজ করা যাচ্ছে আর সেইসঙ্গে সংক্রমনের সাথে পাল্লা দিয়ে পরিষেবা ব্যবস্থাকে আরও জোরদার করার দিকে নজর দেওয়া হচ্ছে।

করোনা সংক্রমিতদের মধ্যে দুইধরনের রোগীদের দেখা যাচ্ছে। একদল  উপসর্গহীন বা মৃদু উপসর্গযুক্ত,অন্যদলের সংকটজনক অবস্থা। এই দুই ধরনের রোগীদের মধ্যে কাকে কোথায় রাখা হবে সে বিষয়ে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর ও কলকাতা পৌরসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উপসর্গহীন বা মৃদু উপসর্গযুক্ত করোনা রোগীদের ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন স্থিতিশীল রোগীদের সেফ হোমে রাখা হবে। যে সকল করোনা রোগীর সংকটজনক অবস্থা তাদের হাসপাতালে রাখা হবে।

বিপুল সংখ্যক করোনা সংক্রামিতকে যাতে ঠিকঠাকমতো স্বাস্থ্য পরিষেবা দেওয়া যায় তার জন্য কলকাতা পুরসভা কিশোর ভারতী স্টেডিয়াম আর সায়েন্স সিটির কাছে একটি বেসরকারি সংস্থার অব্যবহৃত অফিসকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার ও সেফহোম হিসেবে চালু করেছে। এর পাশাপাশি   বেডের সংখ্যা বাড়ানোর কথা চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে‌।

৪০০ বেডের একটি সেফ হোম তৈরি করা হচ্ছে ও আনন্দপুর আর রাজারহাটে সেন্ট্রাল ফরেন্সিক ল্যাবরেটরির বিল্ডিংয়ে সেফহোম তৈরি করার একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। বিপুল সংখ্যক করোনা সংক্রমিতের এই ভিড় সামলাতে কলকাতাতেই প্রায়  ১৫০০ শয্যাবিশিষ্ট সেফ হোম,  সরকারি হাসপাতালে প্রায় সাড়ে ৫ হাজার বেড ও বেসরকারি হাসপাতালে প্রায়  ১৫০০ বেড কোভিডের জন্য নেওয়া হচ্ছে। এর পাশাপাশি গত মঙ্গলবার থেকে শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে জোরকদমে স্যানিটাইজেশনের কাজও শুরু করে দিয়েছে পৌরসভা।

কোভিড ইমারজেন্সি হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরও দেওয়া হয়েছে। টেলিপরিষেবা থেকে শুরু করে করোনা সংক্রান্ত যেকোনো রকম প্রয়োজনেই হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে যোগাযোগ করলেই সাহায্য পাওয়া যাবে। কলকাতা পুরসভার ফেসবুক পেজে গেলেই কোভিডের এই হেল্পলাইন নম্বর পাওয়া যাবে।

বিপুল সংখ্যক রোগীর কথা মাথায় রেখে  রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর ও কলকাতা পৌরসভা যৌথভাবে মোট ৮ টি হেল্পলাইন নম্বর ও হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর বের করেছে। যে নম্বরে যোগাযোগ করলেই সাহায্য পাওয়া যাবে।টেলিমেডিসিন পরিষেবা পাওয়ার জন্য ০৩৩-২৩৫৭-৬০০১ নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে আর করোনা সংক্রান্ত দরকারে  পুরসভার হোয়াটস অ্যাপ নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে। সেই হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরটি হল  ৮৩৩৫৯৮৮৮৮৮।