করিনার ‘কুটবুদ্ধি’তেই শেষ হয়ে যায় ববি দেওলের কেরিয়ার, বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন অভিনেতা

করিনার জেদেই ববির পেটে লাথি মারেন পরিচালক, শেষ হয়ে যায় অভিনেতার কেরিয়ার

bobby kareena

বলিউডের (Bollywood) ইতিহাসের অন্যতম সেরা ছবি ‘জব উই মেট’ (Jab We Met)। রোমান্টিক কমেডি নির্ভর এই ছবিটিকে পছন্দ করেছিলেন গোটা দেশের একটা বড় অংশের দর্শক। বিশেষ করে ছবির নায়িকার ‘রীত’ তো তরুণীদের কাছে একটা আইডিয়াল চরিত্র হয়ে দাঁড়িয়েছিল। করিনা কাপুর (Kareena kapoor) এবং শাহিদ কাপুর (Shahid Kapoor) অভিনীত আজও এই ছবিটি দর্শকদের একাংশের পছন্দের তালিকায় প্রথম সারিতে রয়েছে।

শাহিদ-করিনার জুটিতে এই ছবিটি যেন আলাদাই এক মাত্রা পায় দর্শকদের কাছে। তাদের ছাড়া এই ছবির কথা আজ ভাবতেও পারেন না দর্শকরা। তবে জানেন কি এই ছবিতে প্রথমদিকে কিন্তু শাহিদ কাপুরকে নায়কের চরিত্রে চূড়ান্ত করা হয়নি? শাহিদের বদলে ছবির প্রস্তাব গিয়েছিল অন্য আরেক অভিনেতার কাছে। ছবির কাস্টিং নিয়ে রয়েছে একটা বেশ আকর্ষণীয় গল্প।

এই ছবির নায়ক আদিত্য ছিল বড় ব্যবসায়ীর মানসিক অবসাদগ্রস্ত ছেলে। সে তার ব্যক্তিগত জীবনে ঘটে যাওয়া নানা দুর্ঘটনার জেরে জীবনকে ভালবাসতেই ভুলে গিয়েছিল। তখনই তার সঙ্গে দেখা হয় রীতের। রীত এসে জীবনকে দেখার তার দৃষ্টিভঙ্গিই বদলে দেয়। ছবিতে শাহিদ কাপুর ভীষণই ভাল অভিনয় করেন। তবে চরিত্রটি যাকে ভেবে বানানো হয়েছিল তিনি শাহিদ ছিলেন না।

এই চরিত্রের জন্য প্রথমে ববি দেওলের কথাই মাথাতে এসেছিল নির্মাতাদের। প্রযোজকরা এই নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে নেন। ববিকে যখন সেটা জানানো হয় তখন তিনিই প্রযোজকদের বলেন নায়িকা হিসেবে করিনাকে নেওয়া হোক। আর তিনি চেয়েছিলেন পরিচালক হিসেবে ইমতিয়াজ আলিকে যেন নেওয়া হয়। আসলে এর আগে ’আজনাবি’ ছবিতে অভিনয় করার দরুণ করিনার সঙ্গে ববির বন্ডিংটাও ছিল ভাল।

নির্মাতারা অবশ্য প্রথমে ছবির জন্য ইমতিয়াজকে নেওয়ার ব্যাপারে নিমরাজি ছিলেন। কারণ তিনি ছবিতে হাত দেওয়া মাত্র তার বাজেট বেড়ে যায়। অবশেষে ইমতিয়াজই ছবিটির পরিচালনা করলেন। করিনাও একটু দর কষাকষি করেই রাজি হয়ে গেলেন। কিন্তু মাথায় বাজ পড়লো ববির। তাকে বাদ দিয়েই শুরু হয়ে গেল ছবির শুটিং। নায়ক হিসেবে নেওয়া হল শাহিদ কাপুরকে।

shahid-kapoor-kareena-kapoor-kissing-scenes-

ববি বলেন করিনাই নাকি শর্ত দিয়েছিলেন ছবিতে তার তৎকালীন প্রেমিক শাহিদ কাপুরকেই নায়ক করতে হবে। তাই বাদ পড়ে যান ববি। যদিও জব উই মেটের শুটিং সেটেই তাদের চার বছরের মাখোমাখো প্রেম ভেঙে যায়। এমনকি শেষ দৃশ্যে যে চুম্বন দৃশ্য ছিল সেটাও নাকি তাদের বিচ্ছেদের পরেই শুট হয়েছিল।