ছাঁটাই করা হল করিনার নাম, সীতার চরিত্রে অভিনয় করবেন কঙ্গনা রানাউত

0

মহাভারতের পর বলিউডে (Bollywood) এবার রামায়ণের (Ramayana) গল্প তুলে ধরা হবে। সীতার দৃষ্টিভঙ্গিতে আধুনিক রামায়ণের গল্প নিয়ে আসছে বলিউড। “সীতা-দি ইনকারনেশন” (Sita : The Incarnation) ছবিতে সীতার চরিত্রে অভিনয় করবেন কে? স্বভাবতই নেটিজেনের মনে এই প্রশ্ন উঠেছিল। বলিউডে গুঞ্জন উঠেছিল, এই ছবিতে সীতার চরিত্রে অভিনয় করতে চলেছেন করিনা কাপুর খান (Kareena Kapoor khan)। ছবিতে অভিনয় করার জন্য মোটা টাকার পারিশ্রমিক চেয়েছেন করিনা, এমন গুঞ্জনও শোনা গিয়েছিল।

সীতার চরিত্রে করিনাকে কাস্ট করা হতে চলেছে, এই খবর জেনেই নেটিজেনরা কার্যত করিনার বিরুদ্ধে রে রে করে ওঠেন। “তৈমুরের মা” হয়ে করিনা কিভাবে “সীতা”র চরিত্রে অভিনয় করবেন? প্রশ্ন তুলেছেন একদল নেটিজেন। শুধু তাই নয়, সোশ্যাল মিডিয়ায় “বয়কট করিনা”র ট্রেন্ড তোলেন নেটিজেনরা। সীতার চরিত্রের অভিনেত্রী হিসেবে করিনাকে সরিয়ে সে জায়গায় কঙ্গনা রানাওয়াতকেই (Kangana Ranaut) কাস্ট করার দাবি তুলতে থাকেন নেটিজেনরা।

অবশেষে নেটিজেনদের ইচ্ছাই পূরণ হলো। বিতর্ক শুরু হওয়ার ঠিক এক সপ্তাহের মধ্যেই সীতার চরিত্রে রদবদল ঘটানো হলো। এখন জানা যাচ্ছে করিনা নয়, কঙ্গনা রানাওয়াতকেই সীতার চরিত্রের জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে। নেট মাধ্যমে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়ে “সীতা-দি ইনকারনেশন” ছবির চিত্রনাট্যকার কে.ভি.বিজেন্দ্রপ্রসাদ (K. V. Vijendraprasad) সম্প্রতি একটি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, সীতার চরিত্রে অভিনয় করার জন্য করিনাকে কখনোই প্রস্তাব পাঠানো হয়নি।

 

বরং সীতার চরিত্রের জন্য কঙ্গনাই ছিলেন তাদের প্রথম পছন্দ। “মণিকর্ণিকা”, “থালাইভি” ছবির চিত্রনাট্যকার কে.ভি.বিজেন্দ্রপ্রসাদ আরও জানালেন যে “সীতা-দি ইনকারনেশন” ছবির চিত্রনাট্যের কাজ এখনও শেষ হয়নি। শ্রীরামচন্দ্রের সঙ্গে বিয়ের আগে সীতার জীবন কাহিনী, তার চিন্তাধারাই তুলে ধরা হবে এই নতুন ছবিতে। সিনেমার নির্মাতারা জানাচ্ছেন, সীতার চরিত্রের তুলনায় করিনার বয়স অনেকটাই বেশি। সেই তুলনায় কঙ্গনা সীতার চরিত্রে অভিনয় করার জন্য সব দিক দিয়ে পারফেক্ট বলেই দাবি করেছেন তারা।

Kareena Kapoor’s Name Removed From ‘Sita’; Makers Want THIS Actress For The Role

অবশ্য সিনেমা নির্মাতাদের মধ্যে অনেকেই সীতার চরিত্রে আলিয়া ভাটকে (Alia Bhatt) দেখতে চেয়েছিলেন। তবে কে.ভি.ভিজেন্দ্রপ্রসাদের চাপের কাছে নতি স্বীকার করতে হয়েছে তাদের। প্রসঙ্গত কে.ভি.ভিজেন্দ্রপ্রসাদের “মণিকর্ণিকা” এবং “থালাইভি” ছবি দুটিতেও প্রযোজক এবং নায়িকা ছিলেন কঙ্গনা রানাওয়াত। অতএব তার আসন্ন ছবিতেও কঙ্গনার থাকাটা অস্বাভাবিক কিছু ছিল না। ফলে স্বভাবতই নেটিজেনের মনে প্রশ্ন উঠছে, সবটাই পাবলিসিটি স্টান্ট ছিল না তো?