বিয়ের পর বৌমা ঈশাকে শশুর মশাই যা উপহার দিলেন জানলে ভিরমি খাবেন

মুম্বাই ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানী ,তাই এই শহরে বাস করার মান সবার জন্য একরকম নয়, এখানে যেমন আছে ধারাভি নামের বিশ্বের সবচেয়ে বড় বস্তি তেমনি আছে ভারতের সবচেয়ে বিলাসবহুল প্রাসাদ আন্টিলা। আর এই প্রাসাদের মালিক হলেন ভারতের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি মুকেশ আম্বানি। একমাত্র মেয়ে ঈশার বিবাহের কার্ড বানাতে যে খরচ করা হয়েছে তা রীতিমতো চমকে দেওয়ার মতোই। শুধু প্রত্যেক আমন্ত্রণ পত্রেই খরচ ৩লক্ষ টাকা, ভাবা যায়? আর এবার যে খবর সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে তা যেন আবার আমাদের বারবার বুঝিয়ে দিচ্ছে এই বিবাহের রাজকীয়তার মাত্রা সম্পর্কে।

মুকেশ আম্বানির হবু বেহাই হলেন অজয় পিরামল।তিনিও একজন ভারতের নামজাদা শিল্পপতিদের মধ্যে পড়েন। তিনিও জানেন কীভাবে সংবাদের শিরোনামে থাকতে হয়।বৌমা ঈশা আম্বানির বাবা মুকেশ আম্বানির সঙ্গে যদিও তার অর্থ ,প্রভাব বা প্রতিপত্তি নিয়ে কোন তুলনা চলে না ,কিন্তু তার ক্ষেত্রেও যে ছেলে বৌমাকে ভালোবাসা প্রদর্শন করার সবরকম চেষ্টা চলছে তা বিভিন্ন ঘটনার মাধ্যমে ধীরে ধীরে প্রকাশিত হচ্ছে।

আগামী ১২ই ডিসেম্বর ঈশা আম্বানি এবং আনন্দ পিরামলের বিয়ের আগেই শশুর মশাই অজয় পিরামল ছেলে বৌমাকে দিলেন তার তরফ থেকে সেরা উপহার।বিয়ের পর ছেলে বৌমার নতুন সংসার জীবন নতুন ভবনে শুরু হোক তা চাই প্রত্যেক বাবা মা।

Loading...

কারন এতে যেমন নব বিবাহিত স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ভালোবাসার বন্ধন দৃঢ় হয় ,তেমনই একে অপরকে জানার ,প্রত্যেকের ভালোমন্দ বুঝে নেওয়ার দারুন একটা সুযোগ পাওয়া যায়।আর নিজেদের পছন্দের জিনিস দিয়ে যখন নতুন বাসভবন নিজেদের মতো করে সুন্দর করে সাজিয়ে নেওয়া হয় তখন তা এক চিরস্থায়ী স্মৃতি হয়ে থেকে যায়।

সেইসব ভেবেই ছেলে বৌমাকে নতুন এক বহুমূল্য প্রাসাদ প্রমোদ ভবন উপহার দিতে চলেছেন অজয় পীরামল। সূত্রের খবর অনুযায়ী এই বাসভবনটির যা বর্তমানে নতুন করে সাজানো হচ্ছে এবং বানানো হচ্ছে তার দাম প্রায়  ৪৫০কোটি টাকা।

নতুন অ্যাপার্টমেন্টের অবস্থান

মুম্বাইয়ের ওরলিতে সমুদ্রের দিকে মুখ  করে তৈরি করা হয়েছে এই নতুন অ্যাপার্টমেন্টটি যা এখন সম্পূর্ণভাবে নতুন করে বানানো হচ্ছে।

অ্যাপার্টমেন্টের নাম

প্রায় ৪৫০ কোটি টাকা খরচ করে অজয় পিরামাল ২০১২সালে যে অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছিলেন তার নাম “গুলিটা বিল্ডিং”। এই অ্যাপার্টমেন্টটি পূর্বে হিন্দুস্তান ইউনিলিভার কোম্পানির প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ছিল।

নতুন অ্যাপার্টমেন্ট এর বৈশিষ্ট্য

৫০,০০০ বর্গ ফুটের মতো জায়গায় ছড়িয়ে আছে এই অ্যাপার্টমেন্ট। অ্যাপার্টমেন্টটি পাঁচ তলা এবং আরব সাগরের দিকে মুখ করা। তাই অ্যাপার্টমেন্ট থেকে আরব সাগরের সুন্দর প্রাকৃতিক দৃশ্য দারুন ভাবে উপভোগ করা যাবে। এই বাংলোতে আছে সুইমিং পুল,বিশেষ ভাবে বানানো একটি ডায়মন্ড রুম , একটি বিশেষ মন্দির কক্ষ। বাংলোতে শুধু গাড়ি রাখার জন্যই বানানো হয়েছে তিনটি ফ্লোর বেসমেন্ট।

আরও পড়ুন : মুকেশ আম্বানির গাড়ির এই ১০টি বিশ্বেষত্ব জানলে অবাক হয়ে যাবেন

এছাড়াও বিশেষ অনুষ্ঠানের জন্য বানানো হয়েছে উচ্চ উচ্চতা বিশিষ্ট সিলিং যুক্ত বিরাট কক্ষ। লিভিং রুম, ডাইনিং রুমে,বৃত্তাকারে আবর্তিত স্টাডি রুম,এছাড়াও বহু ব্যবহারের উদ্যেশ্যে বিশেষ কিছু কক্ষ বানানো হয়েছে। এই বাংলোয় প্রতিটি তলেই বিশেষভাবে ড্রেসিং রুম বানানো হয়েছে ।এছাড়াও পরিচারক এবং পরিচারিকদের জন্যও বিশেষ কক্ষ বানানো হয়েছে। বাংলোতে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য বাংলোর মধ্যে খোলা স্থানে একটি কৃত্রিম জলাশয় নির্মাণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : প্রকাশ্যে এলো ঈশা আম্বানির ৩লাখ টাকার বিয়ের কার্ড! দেখুন ভিডিও

বাংলোটি বর্তমানে নতুন করে সাজানোর কাজ পুরোদমে চলছে। বিদেশ থেকে অন্দর সজ্জা করার সামগ্রী আনা হয়েছে।আগামী পয়লা ডিসেম্বরের আগেই বাংলো সম্পূর্ণ ভাবে ঝাঁ চকচকে করে তুলতে হবে।কারন পয়লা ডিসেম্বর বাংলোর মধ্যে বিশেষ পূজার আয়োজন করা হয়েছে।

নতুন জীবনের শুরুতে নতুন ঘর নতুন ভাগ্য বয়ে নিয়ে আসে। এবার দেখা যাক এই হবু সেলিব্রেটি দম্পতিদের জীবন কেমন কাটবে।

Loading...