বেসরকারি ট্রেন চালিয়ে রেলের লাভ হল না ক্ষতি? প্রকাশ্যে এল তথ্য

ভারতীয় রেলের ইতিহাসে অক্টোবর মাসের ৪ তারিখ প্রথম রেল বেসরকারিকরণের পথে হাঁটে। বেসরকারি সংস্থার দ্বারা ভারতের শুরু হয় তেজস এক্সপ্রেস। বেসরকারি হাতে এই প্রথম রেল চালনা নিয়ে সকলের মধ্যেই কৌতুহল ছিল আদৌ এই রেল কতটা লাভ অথবা লোকসানের পথে যাবে। সেই তথ্যই এবার হাতে এলো।

বেসরকারি সংস্থার হাতে তেজস এক্সপ্রেস চালিয়ে আইআরসিটিসির লোকসানের তো কোন গল্প নেই, বরং তারা প্রথম মাসেই ৭০ লক্ষ টাকা লাভের সম্মুখীন। বিগত এক মাসে আইআরসিটিসি তেজস এক্সপ্রেসের টিকিট বিক্রি করে আয় করেছে ৩.৭ কোটি টাকা। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে প্রথম মাসে তেজস এক্সপ্রেস থেকে আইআরসিটিসি ৭০ লক্ষ টাকা লাভের সম্মুখীন। আর যাতে করে দেশে বেসরকারি ট্রেন চালানো লাভজনক বলে মনে করছে ওই সূত্র।

 

সূত্রের খবর, ভারতীয় রেল আগামী দিনে আরও ১৫০ টি রুটে বেসরকারি সংস্থার দ্বারা ট্রেন চালানোর উদ্যোগ নিয়েছে। সেই উদ্যোগেরই প্রথম পরীক্ষা ছিল তেজস এক্সপ্রেস। লখনউ থেকে দিল্লিগামী এই ট্রেনটি অক্টোবরের ৪ তারিখ যাত্রা শুরু করে তেজস। জানা গিয়েছে, ট্রেনের সব টিকিট বিক্রি না হলেও গড়ে ৮০-৮৫ শতাংশ আসনে যাত্রী ছিল প্রতিদিন।

আরও পড়ুন :- 

এমনকি এই ট্রেন ভারতীয় রেলের পদ্ধতিতে বিপ্লব এনে ট্রেন লেট করলে গ্রাহকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। পাশাপাশি এই ট্রেনের যাত্রীদের জন্য রয়েছে ২৫ লক্ষ টাকার বিমা। আইআরসিটিসি দাবি করেছে, প্রথম দিকে এই ট্রেন চালানোর জন্য একটু বেশি খরচ হচ্ছে, কিন্তু আগামী দিনের এই খরচ আরো কমে যাবে। অন্যদিকে ধীরে ধীরে যাত্রীদের সংখ্যাও বাড়বে। সব মিলিয়ে প্রথম বেসরকারি সংস্থার হাতে ট্রেন চালানোর অভিজ্ঞতা বেশ ভালই মনে করছে আইআরসিটিসি।