একটা নয়, দুটো নয়, তিনটি পুরুষাঙ্গ নিয়ে জন্মালো শিশু, ইতিহাসে এই প্রথম

অনেক সময় এমন অনেক ঘটনা ঘটে যেগুলো আমাদের বিশ্বাসযোগ্য বলে মনে হয় না কিন্তু তবুও সেগুলো সত্য হয়। সম্প্রতি ইরাকে এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে যা শুনে সকলেই চমকে যাবেন, কারণ অতীতে এই ঘটনা এর আগে কখনো ঘটেনি। ইরাকের দুহোকে তিনটি পুরুষাঙ্গ নিয়ে জন্মগ্রহণ করেছে এক শিশু যার কথা শুনে বিস্মিত হয়েছেন সকলে। কারণ তিনটি পুরুষাঙ্গ নিয়ে জন্মানো কোন স্বাভাবিক ঘটনা নয়, এটি একটি অস্বাভাবিকত্বের লক্ষণ। যদিও জন্মলগ্ন থেকে এই লক্ষণটি শিশুর মধ্যে লক্ষ্য করা যায়নি।

জন্মের সময় শিশুটি আর পাঁচজন স্বাভাবিক শিশুর মতোই জন্মগ্রহণ করে কিন্তু জন্মের ঠিক তিন মাস পরেই তার মূত্রথলি ফুলতে শুরু করে। নবজাতকের এই বিষয়টি লক্ষ্য করে চিন্তিত বাবা-মা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান। এরপর হাসপাতালে শিশুটির পরীক্ষা করা হলে চিকিৎসকরা বুঝতে পারেন যে শিশুটির শরীরে আরও দুটি নতুন পুরুষাঙ্গ গজাচ্ছে।

নতুন  দুটি পুরুষাঙ্গ গজানো প্রসঙ্গে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন যে-পুরুষাঙ্গের গোড়া থেকে একটি পুরুষাঙ্গ গজাচ্ছে আর অপর পুরুষাঙ্গটি গজাচ্ছে মূত্রথলির তলার দিক থেকে। এরপর চিকিৎসকরা লক্ষ করেন যে অন্য দুটি পুরুষাঙ্গতে কোনরকম মূত্রথলি গজায়নি তাই তারা অপর দুটি পুরুষাঙ্গ বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

সম্পূর্ণ ঘটনায় হতবাক হয়ে গেছেন চিকিৎসকরাই কারণ শিশুটির পরিবারের কোনো রকম জিনগত সমস্যা নেই আবার গর্ভবতী অবস্থায় শিশুটির মায়ের শরীরে কোনোরকম ক্ষতিকর ড্রাগের প্রভাব ও পড়েনি। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় একে‘ট্রাইফিলিয়া’ বলা হয়।এরকম ঘটনা ২০১৫ সালে একবার হলেও তা সেই সময় প্রকাশ্যে আসে নি সম্প্রতি এই ঘটনা আবার ঘটায় তা জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। চিকিৎসকদের কথা অনুযায়ী ৬০ লক্ষ মানুষের মধ্যে একজন এরকমভাবে ‘ট্রাইফিলিয়া’র শিকার হয়ে থাকেন।