মদন মিত্রের দুর্গা হয়ে চরম বিপাকে মানসী, মাত্রাতিরিক্ত ট্রোলিংয়ে চটে লাল অভিনেত্রী

আর মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই দুর্গোৎসব শুরু হবে। আকাশে বাতাসে এখন পুজো পুজো গন্ধ। চারিদিকে চলছে পূজার প্রস্তুতি। দুর্গা পুজোর আগে পুজোর গান বাঙালির কাছে এক অন্যতম আকর্ষণ। সম্প্রতি কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্রের (Madan Mitra) গাওয়া পূজার গান ব্যাপকভাবে ভাইরাল হয়েছে নেট মাধ্যমে। মদন মিত্রের লেখা ও গাওয়া এই র‍্যাপ নিয়ে বানানো হয়েছে একটি গানের ভিডিও (Music Video)।

একদিকে দুর্গোৎসব আসন্ন, অপরদিকে ভবানীপুরের উপনির্বাচনও হতে চলেছে যেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাগ্য নির্বাচন হবে। তার আগে দেবী দুর্গা এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে গান বেঁধে ফেলেছেন কামারহাটির বিধায়ক। তার গাওয়া ‘India Wanna’ve Her Betiyaa’র মিউজিক ভিডিওটি সদ্য প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে মদন মিত্রের সঙ্গে টলিউড অভিনেত্রী পায়েল সরকার এবং টেলিভিশন তারকা মানসী সেনগুপ্তকেও (Manoshi Sengupta) দেখা গিয়েছে।

India Wanna’ve Her Betiyaa ft Madan Mitra

‘কি করে বলবো তোমায়’ এবং ‘উমা’ ধারাবাহিকের অভিনেত্রী মানসী সেনগুপ্ত এই গানে সেজেছেন দুর্গা। আর তারপরেই কার্যত তাকে নিয়ে ট্রোল এবং মিমের বন্যা বয়ে যাচ্ছে নেট মাধ্যমে। তিনি কেন এমন একটি গানের ভিডিওতে পারফর্ম করলেন? কেনই বা তিনি মদন মিত্রের গানের ভিডিওতে দুর্গা সাজলেন? প্রশ্নবানে বিদ্ধ হচ্ছেন অভিনেত্রী। শুধু তাই নয়, দুর্গাকে নিয়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক ট্রোলিং, এতে সোশ্যাল মিডিয়াতে চোখ রাখাই দায়!

India Wanna’ve Her Betiyaa ft Madan Mitra official

দুর্গা সাজে সেজে যে তাকে এইভাবে সমালোচনার মুখে পড়তে হতে পারে, এমনটা স্বপ্নেও ভাবেননি মানসী। এই মিউজিক ভিডিওর নির্মাতাদের উপর অসন্তুষ্ট অভিনেত্রী। তিনি মনে করছেন এই ভিডিওটিকে আরও ভালোভাবে বানানো যেতে পারতো। একই সঙ্গে নেটিজেনদের আচরণেও তিনি চরম বিরক্ত হয়েছেন। নেট দুনিয়ায় বিতর্কের মুখে পড়ে অবশেষে মুখ খুললেন তিনি।

একটি সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী বলেন, “আমাকে এই ভিডিয়োর জন্য ভালো পারিশ্রমিক দেওয়া হয়েছিল, তাই ব্যস্ত শেডিউল থেকেও সময়বার করে আমি কাজটা করবার জন্য রাজি হই। কিন্তু গতকাল গান মুক্তির পর থেকে যা ঘটছে সেটা নিয়ে আমি প্রচন্ড আপসেট। দাদার (মদন মিত্র) সঙ্গে কাজ করতে পেরে খুশি ছিলাম, কিন্তু দুর্গা সেজে ট্রোলড হবে সেটা ভাবিনি। দুর্গাকে নিয়ে মিম করা যায়? কিন্তু সেটাই হচ্ছে এই ভিডিয়োর সুবাদে”।

মানসী আশা করেছিলেন তার এই পুজোর গানের ভিডিওটি অন্যান্য পূজার গানের মতই হবে। তবে তার আশায় জল ঢেলে দিয়েছেন নির্মাতারা। মানসীর আক্ষেপ, “আরেকটু সতর্কভাবে কাজটা করা যেতে পারত। একটু পেশাদারভাবে এই মিউজিক ভিডিয়োটা তৈরি করা যেতে পারত”। তিনি তার ফেসবুক স্টোরিতেও লিখেছেন, “আমার সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই, এবং কোনওরকম রাজনৈতিক ইনফ্লুয়েন্সের মধ্যে আমি নিজেকে জড়াতেও চাই না”।

মানসীর সাফ কথা, ‘দাদার বিরুদ্ধে আমার কোনও অভিযোগ নেই। ওঁনার সঙ্গে আমার পারিবারিক সম্পর্ক। কিন্তু উনি তো এই ভিডিয়োটা বানাননি। আমার সমস্যাটা নির্মাতাদের সঙ্গে, দাদা যা গাইবেন তাই হিট, এর আগেও উনি ও লাভলির মতো গান বানিয়েছেন’। শেষে আক্ষেপের সুরে মানসী বললেন, ‘আমি নিজেকেও দোষ দিচ্ছি। পরেরবার থেকে কোনও প্রোজেক্টে হ্যাঁ বলবার আগে ভালো করে খোঁজখবর নিয়ে কাজটা করব’।