ফের বড় ঝটকা, চীন থেকে ফ্রিজ, AC আমদানি নিষিদ্ধ করল ভারত

মূলত জুন মাসে লাদাখে হওয়া ভারত চীন সংঘর্ষে ২০জন জোয়ানের মৃত্যুর পর থেকেই একের পর এক সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এর আগেও চীনা অ্যাপলিকেশনে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল ভারত সরকার। আবারও চীনের (China)  ওপর অর্থনৈতিক স্ট্রাইক করল ভারত সরকার।

এবার চীন থেকে রেফ্রিজারেটর-সহ এয়ার কন্ডিশনারের (Refrigerant Air Conditioner)  আমদানিতে সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারত সরকার। বলা হচ্ছে প্রতিবেশী দেশ চীন থেকে ভারতে আমদানি কমিয়ে প্রধানমন্ত্রীর “আত্মনির্ভর” ভারত তৈরির উদ্দেশ্যে দেশের অভ্যন্তরে উৎপাদনে উৎসাহিত করার জন্য এই নীতি প্রয়োগ করা হয়েছে।

তবে এর আগেও জুলাই মাসে টেলিভিশন আমদানির জন্য ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড(Director General of Foreign Tred)-এর কাছ থেকে আমদানিকারকদের লাইসেন্স নেওয়ার কথা জানানো হয় কেন্দ্রের থেকে। কিন্তু সম্প্রতি জারি হওয়া নিষেধাজ্ঞা ফ্রিজ-সহ এয়ার কন্ডিশনারের আমদানির ওপর জারি করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে এই নিষেধাজ্ঞা কেবলমাত্র ফ্রিজ-সহ এয়ারকন্ডিশনার আমদানির ক্ষেত্রে লাগু হবে। অন্যান্য এয়ার কন্ডিশনার (যেমন স্প্লিট এয়ার কন্ডিশনার) এর প্রভাব পড়বে না। কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী পীযূষ গয়ালের অনুমোদনে আমদানি সংক্রান্ত এই নতুন নিষেধাজ্ঞাটি জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : ভারত চীন দুই দেশের ঝামেলার পেছনে রয়েছে এই ৫টি কারণ

কিন্তু এখানে আরেকটি বিষয় বিশেষ উল্ল্যেখযোগ্য কে ভারতে আমদানি হওয়া বেশিরভাগ এয়ার কন্ডিশনারেই রেফ্রিজারেন্ট থাকে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০২০ অর্থ বর্ষে ভারত প্রতিবেশী দেশ চীন থেকে ৪৬.৯ কোটি ডলারের এই ধরনের এয়ার কন্ডিশনার আমদানি করেছিল।

আরও পড়ুন : ভারতের এই ৫ এলাকা দখল করতে চায় চীন

পাশাপাশি থাইল্যান্ড থেকেও আমদানি করা হয়েছে ২৪.১ কোটি ডলার মূল্যের এয়ার কন্ডিশনার। এছাড়াও এই একই অর্থবর্ষে ভারত চীন এবং থাইল্যান্ড থেকে যথাক্রমে ১.৪ কোটি এবং ১.৮ কোটি ডলারের উইন্ডো এয়ার কন্ডিশনার আমদানি করেছে।