মদ কিনলে লাগবে ৭০ শতাংশ কর, কেন্দ্রের নির্দেশে বদলাচ্ছে সিগারেট-গুটখার প্যাকেটও

সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ত্রাস। এই মূহুর্তে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬,৪৩৩ মৃত্যু হয়েছে ১,৫৬৮ জনের। এই অবস্থায় করোনা সংক্রমন ছড়িয়ে পড়া রুখতে সারা দেশে চলছে লকডাউন। এতদিন অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ছাড়া অন্য কোনো পরিষেবা চালু ছিল না। তবে গতকাল অর্থাৎ সোমবার দিল্লিতে মদের দোকান খুলে যায়। ভিড় উপচে পড়ে মদের দোকানগুলিতে। দেশের আর্থিক পরিস্থিতি বর্তমানে বেশ খানিকটা সংকটে। কিন্তু মদের দোকানগুলি খোলার পর সাধারণ মানুষের আগ্রহ ও চাহিদা দেখে মদ বিক্রির মাধ্যমেই উপার্জনের পথ দেখলেন দিল্লি সরকার।

দিল্লি সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মদের উপর বসাবেন বিশেষ কর, “বিশেষ করোনা ফি”। মঙ্গলবার থেকেই মদ কিনতে গেলে দামের উপর ৭০ শতাংশ কর দিতে হবে। অর্থাৎ মদের উপর যে MRP লেখা থাকবে সেই দামের ৭০ শতাংশ হবে “বিশেষ করোনা ফি”। দিল্লি সরকারের অর্থ দফতরের তরফে মঙ্গলবার গভীর রাতে নির্দেশিকা জারি করে এই কর লাগু করার সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। অর্থাৎ এবার থেকে যদি একটি মদের বোতলের দাম ১০০০ টাকা হয় তাহলে বিশেষ কর যোগ করে এখন সেই মদের বোতলের জন্য এখন দাম দিতে হবে ১৭০০ টাকা।

গতকাল মদের দোকান খুলে যাওয়ার পর সেখানে ভেঙে পড়ে মানুষের ঢল। কোনো কোনো জায়গায় মদের দোকানের লাইন পৌঁছে যায় বহুদূর। ব্যাগ, চটি, বোতল দিয়ে লাইন রাখতে দেখা যায় অনেককে। সরকারের তরফে যদিও বলা হয় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা আবশ্যিক কিন্তু সেই নির্দেশিকার তোয়াক্কা না করেই মদ কেনার হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। জনতার ভিড় ছত্রভঙ্গ করে দিতে বেশ কিছু জায়গায় পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে দেখা যায়।

মদপ্রেমীদের এই মদ কেনার আগ্রহেই রাজ্যের অর্থনীতি খানিক চাঙ্গা করার পথ দেখছেন দিল্লি সরকার। যদিও করোনা বিপর্যয়ের মধ্যে সরকারের এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করছেন অনেকে। অনেকেই বলছেন সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফল বিপরীত হলে পরিস্থিতি আরও খারাপ দিকে মোড় নেবে।

অন্যদিকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের তরফে তামাকজাতীয় দ্রব্যের প্যাকেটের উপর থাকা স্বাস্থ্য সতর্কতা নিয়ে নতুন নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। কেন্দ্র সরকার ২০০৮ সালের তামাক উৎপাদন আইন সংশোধন করে বিধিবদ্ধ সতর্কীকরনে বদল আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ২০২০ সালের ১লা সেপ্টেম্বর থেকেই এই নতুন সতর্কীকরণ প্রয়োগ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নির্দেশিকায় বলা হয়েছে ২০২০ সালের ১লা সেপ্টেম্বরের আগে ও পরে তৈরী সমস্ত তামাকজাত প্যাকেটের উপর ১ নং চিত্র দিতে হবে। এবং ২০২১ সালের ১লা সেপ্টেম্বর থেকে সমস্ত তামাকজাত দ্রব্যের প্যাকেটের উপর ২ নং ছবি ব্যবহার করতে হবে। সমস্ত তামাকজাত দ্রব্যের উৎপাদক সংস্থাকে কেন্দ্রের এই নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে।