একবার বেঁটে নিলেই থেকে যাবে ৬ মাস, রইল আদা-রসুনের পেস্ট সংরক্ষণের সহজ উপায়

একবার বানালেই ব্যবহার করতে পারবেন টানা ৬ মাস, রইল আদা-রসুনের পেস্ট সংরক্ষণের উপায়

How To Store Ginger Ginger And Garlic Paste For Several Months

দৈনন্দিন রান্নায় ব্যবহার করার জন্য আদা এবং রসুনের পেস্ট অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ উপকরণ। বর্তমান কর্মব্যস্ততার যুগে সকলেই রান্নায় ব্যবহার করছেন গুঁড়ো মশলা। তবে এতে রান্নার স্বাদ এবং গুণগত মান উভয়ই পরিবর্তন হয়। রান্নায় প্রকৃত স্বাদ আনতে বাটা মসলার জুড়ি নেই কোনও। রোজ রোজ আদা-রসুনবাটার ঝক্কি থেকে যদি মুক্তি চান তাহলে আজকের এই প্রতিবেদন শুধু আপনারই জন্য।

চটজলদি রান্না সেরে ফেলতে ইদানিং বাজারে হাজির রেডিমেড আদা এবং রসুনের পেস্ট। গৃহিনীদের রান্নাঘরেও ঠাঁই পেতে শুরু করেছে এই রেডিমেড বাটা মশলা। কেমন হবে যদি আপনি নিজে থেকেই বাড়িতে আদা এবং রসুনের পেস্ট বানিয়ে সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন? আজ এই প্রতিবেদনে রইল আদা ও রসুনের পেস্ট মাসের-পর-মাস সংরক্ষণ করে রাখার উপায়ের হদিশ (How To Store Ginger And Garlic Paste For Several Months)।

১-২ মাস পর্যন্ত সংরক্ষণের উপায় : আদা এবং রসুন বেঁটে যদি ১-২ মাস পর্যন্ত ব্যবহার করতে চান তাহলে প্রথমে আদা ও রসুনের খোসা ছাড়িয়ে মিক্সার গ্রাইন্ডারে দিন। এরপর এর মধ্যে ২ চামচ পরিমাণ সরষের তেল দিন। এইভাবে বেঁটে নেওয়ার সময় একটুও জল দেওয়া যাবে না। ভালো করে বেঁটে নেওয়ার পর সামান্য নুন মিশিয়ে এয়ারটাইট কন্টেইনারের মধ্যে ভরে রেখে দিন ফ্রিজের মধ্যে। ১-২ মাসের জন্য অনায়াসে ব্যবহার করতে পারবেন আদা ও রসুনের এই পেস্ট।

৪-৫ মাস পর্যন্ত সংরক্ষণের উপায় : একবার বেঁটে নিয়ে যদি ৪-৫ মাস পর্যন্ত ব্যবহার করতে চান তাহলে আগের মতোই আদা এবং রসুনের খোসা ছাড়িয়ে সরষের তেল সহযোগে বেঁটে নিন। এরপর এই পেস্ট ফ্রিজে ব্যবহৃত বরফের ট্রে-র মধ্যে রেখে প্লাস্টিকের র‌্যাপারে সম্পূর্ণ ট্রে মুড়ে ফেলুন। এবার এই ট্রে এয়ার টাইট জিপ ব্যাগে ভরে ফ্রিজে রেখে দিন। তারপর যখন প্রয়োজন তখন জিপ ব্যাগ থেকে বের করে ব্যবহার করুন রান্নায়।

৬ মাসের জন্য সংরক্ষণের উপায় : যদি ছয় মাস পর্যন্ত বাটনার ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে চান তাহলে সেই উপায়ও রয়েছে। এর জন্য আগের পদ্ধতিতে আদা এবং রসুনের পেস্ট বানিয়ে নুন ও তিন-চার চামচ ভিনিগার মিশিয়ে নিন। এবার এই পেস্ট এয়ারটাইট কন্টেইনারের মধ্যে ঢুকিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন ৬ মাস পর্যন্ত।