রুটি বানানোর সময় করুন এই একটি ছোট্ট কাজ, রুটি হবে তুলোর মত নরম

বিকেলে বানানো রুটি সকাল পর্যন্ত থাকবে নরম, মেনে চলুন এই দুর্দান্ত কার্যকরী ট্রিকস

ভাতের প্রতি বাঙালির দুর্বলতা থাকলেও সকাল-বিকেলের জলখাবারে কিংবা রাতের ডিনারে রুটি না হলে আবার বাঙালির চলে না। তবে রুটি খেতে যতটা মজা বানানো বেশ কষ্টকর। বিশেষত নরম তুলতুলে রুটি বানানোর জন্য বিশেষ সাবধানতা অবলম্বন করতে হয়। নতুবা রুটি হতে পারে শক্ত ইঁটের মতো! অনেক সময় দেখা যায় রুটি খুব তাড়াতাড়ি শক্ত হয়ে যাচ্ছে।

তখন এত শক্ত রুটি খেতে না পেরে ফেলে দেওয়া ছাড়া উপায় থাকে না। রুটি মাখার সময় ও তৈরির সময় কিছু সতর্কতা নিলে কিন্তু এই সমস্যা দূর হবে। জেনে নিন কোন কোন উপায় অবলম্বন করলে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত রুটি থাকবে নরম তুলতুলে (How To Make Soft Roti For Long Time)।

রুটির আটা মাখার সময় যা যা করতে হবে

ভুসিযুক্ত আটা ব্যবহার করলে রুটি নরম হবে। এর মধ্যে থাকে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার‌ যা স্বাস্থ্যের পক্ষেও ভালো। আটা মাখার সময় এক চিমটে নুন মিশিয়ে নিন। ১০ টা রুটি বানানোর জন্য প্রয়োজনীয় আটা নিলে তার মধ্যে এক চামচ সাদা তেল দিন। ইষদুষ্ণ উষ্ণ গরম জল দিয়ে আটা মাখলে রুটি যেমন নরম হবে, তেমনই হজম হবে খুব তাড়াতাড়ি। এই রুটির স্বাদও বেশ ভাল হয়।

আটা খুব শক্ত করে মাখা যাবে না। আবার খুব নরম করেও মাখা যাবে না। যখন আঙুলে একটুও আটা লেগে থাকবে না তখন বুঝবেন আটা মাখা হয়ে গিয়েছে। আটা মেখে নেওয়ার পর ১৫-৩০ মিনিট পর্যন্ত ঢেকে রাখুন। রুটি বেলার সময় লেচি ছোট ছোট করে কাটতে হবে। এতে রুটি পাতলা হবে। পাতলা রুটি ভালোভাবে ফোলে।

তাওয়া আগেই গ্যাসে বসিয়ে গরম করে রাখতে হবে। তারপর তার মধ্যে রুটি দিয়ে দুপিঠ ভালো করে সেঁকে নিতে হবে। এইভাবে রুটি বানালে জালি ব্যবহার করার প্রয়োজন পড়ে না। রুটি এমনিতেই ফুলে উঠবে। রুটি বানানো হয়ে গেলে ক্যাসারোলের মধ্যে ভরে ফেলুন।

রুটি শক্ত হয়ে যাওয়ার কারণ

আটা মাখার সময় ১৫-২০ শতাংশ জল ব্যবহার হয়। রুটি সেঁকার সময় আটার মধ্যে থাকা কার্বোহাইড্রেট, অ্যালবুমিন, ডায়েটারি ফাইবার এবং স্টার্চ জলের সঙ্গে বিক্রিয়া করে রুটি শক্ত করে তোলে। রুটি কখনও দ্বিতীয়বার গরম করা যাবে না। এতে আরও শক্ত হয়ে যায়। রুটি সেঁকা হলে তাওয়াতে সামান্য জল দিয়ে রুটিগুলো একবার ভিজিয়ে তুলে নিতে হবে।

তারপর হটপটে ভরে ফেলতে হবে। তাওয়া থেকে রুটি নামিয়ে একটি পাত্রে ভেজা কাপড় জড়িয়েও রুটি রেখে দিতে পারেন। এতে অনেকক্ষণ রুটি নরম থাকবে। রুটি গরম থাকতে থাকতে মাখন বুলিয়ে নিতে পারেন। এটাও রুটি নরম রাখবে। অফিসে লাঞ্চে রুটি নিয়ে গেলে গরম রুটি সঙ্গে সঙ্গেই ফয়েল পেপারে মুড়ে ফেলতে হবে।