কিভাবে অনলাইনে আবেদন করবেন জমির মিউটেশন (রেকর্ড)?

জমির আসল পরিচয় জমির পর্চা। তা সত্ত্বেও আমরা বার বার লক্ষ্য করে দেখেছি পর্চা নিয়ে মানুষের মাথা ব্যাথা সব থেকে কম এবং অজস্র পর্চা নির্দিষ্ট অফিসগুলোতে জমায় থেকে যায় বছরের পর বছর। আসলে মানুষ এখন এতটাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন যে সময় নষ্ট হওয়ার ভয়ে পর্চা সংগ্রহ করতে অফিসে যেতে চান না। এক্ষেত্রেও রয়েছে সমাধান। অনলাইনে খুব সহজেই যেটা পাওয়া সহজ।

আপনি eDistrict বা Banglarbhumi এই দুটি ওয়েবসাইট থেকে আবেদন করতে পারেন। আবেদন করার কয়েক দিন পর সেটা ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে নিতে পারেন। যেটাতে ডিজিটাল সিগনেচার করা থাকবে।

কি কি প্রয়োজন?

দলিল

দাগের তথ্য ( Plot Information)

আধার কার্ড ও ১ কপি ফটো

প্রয়োজন থাকলে পিঠ দলিল (যদি আছে)

প্রয়োজন থাকলে হেয়ার সার্টিফিকেট (যদি আছে)

কি করবেন ?

দলিল, পিঠ দলিল বা হেয়ার সার্টিফিকেট স্ক্যান করবেন। আলাদা আলাদা করে Pdf বানাবেন ২ এমবি সাইজের মধ্যে।

দলিল ও পিঠ দলিলের স্ক্যান করার ক্ষেত্রে একটা pdf ফাইলে সব পেজ রাখতে হবে ২ এমবি সাইজের মধ্যে।

এই ওয়েবসাইট খুলবেন। Land Website Link- https://banglarbhumi.gov.in

Online Application ক্লিক করে Mutation Application-এ ক্লিক করুন।

ফর্ম ফিলাপ করবেন। (তিনটি স্টেপ)

প্রথম স্টেপ জমি গ্রহীতার তথ্য।

দ্বিতীয় স্টেপ জমি দাতার তথ্য।

তৃতীয় স্টেপ pdf ডকুমেন্ট আপলোড।

ফর্ম ফিলাপ করার পর এপ্লিকেশন ফর্ম ও ডিক্লারেশন ফর্ম প্রিন্ট আউট করুন।

অ্যাপ্লিকেশন নম্বর গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

এবার Online Application ক্লিক করে Fees Payment করুন দেখবেন সাথে সাথে কেশ নম্বর জেনারেট হয়ে যাবে এরপর Acknowledgement Slip প্রিন্ট আউট করুন ।

অ্যাপ্লিকেশন ফ্রমে সিগনেচার করুন ও ডান পাশে ফাঁকা জায়গায় ফটো আটকান এবং ডিক্লারেশন ফরমের নিচের বাঁদিকে একটা ১০ টাকার কোর্ট ফি আটকান ও ডান দিকে সিগনেচার করুন

অ্যাপ্লিকেশন ফ্রম, ডিক্লারেশন ফ্রম, দলিলের জেরক্স, আধার কার্ডের জেরক্স ও দাগের তথ্য একসাথে পিন করুন। (পিঠ দলিল ও হেয়ার সার্টিফিকেট যদি লাগে তাহলে দেবেন)

এবার ওই পিন করা কাগজপত্র BL & LRO অফিসে জমা দিতে হবে।

কয়েক দিন পর সিটিজেন সার্ভিস অপশনে মিউটেশন স্ট্যাটাস এ দেখতে হবে হেয়ারিং নোটিশ দিয়েছে কিনা যদি দেয় তাহলে তিন কপি প্রিন্ট আউট করুন।

এক কপি হেয়ারিং নোটিস বিবাদিকে রেজিস্টার পোস্ট করতে হবে।

হেয়ারিং এর দিন হাজিরান ফর্ম(জেরক্সের দোকানে পেয়ে যাবেন), রেজিস্টার পোস্টের স্লিপ ও অরিজিনাল কাগজপত্র নিয়ে যাবেন।

বি: দ্র: – অসুবিধা ১ – অনেক সময় Fees Payment করার পর কেশ নম্বর জেনারেট হয় না। সেক্ষেত্রে Online Application এ “Application GRN Search” একটা অপশন আছে ওখানে ক্লিক করুন এরপর GRN নম্বর ও Application নম্বর দিয়ে Save করে Continue করুন দেখবেন কেশ নম্বর জেনারেট হয়ে যাবে। এরপর Online Application এ “Application/Receipt Reprint” অপশনে গিয়ে Receipt ডাউনলোড করে Acknowledgement Slip প্রিন্ট করুন। অনেক সময় Receipt ডাউনলোড হয় না সেক্ষেত্রে বার বার চেষ্টা করুন হয়ে যাবে।

অসুবিধা ২ – অনেক সময় দেখা গেছে যে ব্যাংক স্টেটমেন্ট এ GRN নম্বর পাওয়া যায় না তখন কি করবেন। সরাসরি চলে যাবেন এই লিঙ্কে https://wbifms.gov.in/GRIPS/ এখানে “Challan Search” একটা অপশন আছে ওখানে ক্লিক করুন  “Search Challan With Identification No” এ ক্লিক করুন Mutation Identification No ও Challan Fill up Date দিয়ে সাবমিট করলে GRN নম্বর টা পেয়ে যাবেন।