কীভাবে শুরু হয়েছিল প্রজাতন্ত্র দিবস? জানেন কি সেই ইতিহাস?

সংবিধান প্রবর্তনের স্মৃতিতে প্রতি বছর ২৬ জানুয়ারি তারিখটি প্রজাতন্ত্র দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়। এটি ভারতের একটি জাতীয় দিবস। ১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি ভারতীয় গণপরিষদ সংবিধান কার্যকরী হলে ভারত একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত হয়। ১৫ই আগস্ট ১৯৪৭ এ ভারত স্বাধীন হলেও দেশের প্রধান হিসেবে তখনও বহাল ছিলেন ষষ্ঠ জর্জ এবং লর্ড লুই মাউন্টব্যাটেন ছিলেন এর গভর্ণর জেনারেল।

তখনও দেশে কোনো স্থায়ী সংবিধান ছিল না; ঔপনিবেশিক ভারত শাসন আইনে কিছু রদবদল ঘটিয়েই দেশ শাসনের কাজ চলছিল। গোটা দেশকে সামলানোর জন্য একটি লিখিত নির্দিষ্ট সংবিধানের প্রয়োজন অনুভব করলেন রাষ্ট্রনায়করা। ঠিক হল সংবিধান লেখার কথা। তৈরি হল খসড়া কমিটি।১৯৪৭ খ্রিঃ ২৮শে আগস্ট একটি স্থায়ী সংবিধান রচনার জন্য ড্রাফটিং কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন ভীমরাও রামজি আম্বেডকর।

আরও পড়ুন ঃ প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে জেনে নিন জাতীয় পতাকা ব্যবহারের বিধিমালা ও আইনকানুন

৪ঠা নভেম্বর ১৯৪৭ তারিখে কমিটি একটি খসড়া সংবিধান প্রস্তুত করে গণপরিষদে জমা দেয়। চূড়ান্তভাবে সংবিধান গৃহীত হওয়ার আগে ২ বছর, ১১ মাস, ১৮ দিন ব্যাপী সময়ে গণপরিষদ এই খসড়া সংবিধান আলোচনার জন্য ১৬৬ বার অধিবেশন ডাকে। এই সমস্ত অধিবেশনে জনসাধারণের প্রবেশের অধিকার ছিল। বহু বিতর্ক ও কিছু সংশোধনের পর ২৪ শে জানুয়ারি ১৯৫০ এ গণপরিষদের ৩০৮ জন সদস্য চূড়ান্ত সংবিধানের হাতে-লেখা দু’টি নথিতে (একটি ইংরেজি ও অপরটি হিন্দি) স্বাক্ষর করেন। এর দু’দিন পর সারা দেশব্যাপী এই সংবিধান কার্যকর হয়।

আরও পড়ুন ঃ আমরা প্রজাতন্ত্র দিবস ২৬ শে জানুয়ারি পালন করি কেন ?

তার পর তা কার্যকর হয় ১৯৫০ সালেই ২৬ জানুয়ারি। সেই থেকেই এই ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবস হিসাবে পালিত হয়ে আসছে। সেই দিন থেকে ভারতবর্ষ পূর্ণ স্বরাজ বা সম্পূর্ণ স্বাধীন দেশ হিসাবে পরিগণিত হয়ে আসছে। এই দিনকে তাই পূর্ণ স্বরাজ দিবস হিসাবেও পালন করা হয়।