ভুলে যান একঘেয়ে আলু-মাংসের ঝোল, চিকেন এইভাবে রাঁধলে স্বাদ মুখে লেগে থাকবে এক মাস

একঘেয়ে আলু-মাংসের ঝোল আর নয়, চিকেন এইভাবে রাঁধলে একথালা ভাত নিমিষেই হবে সাফ

ছুটির দিনে জমিয়ে রান্না হোক বা সপ্তাহের মধ্যেখানে জিভের স্বাদ বদলের জন্য বাঙালির পাতে চিকেন না হলে কি আর চলে? তবে মুরগির মাংস বলতে কেবল কষা কিংবা আলু দিয়ে মাংসের ঝোল, আর কত খাবেন একঘেয়ে খাবার? তাই আজ এই প্রতিবেদনে রইল খুব কম সময়ে কম উপকরণে কাশ্মীরি চিকেন (Kashmiri Chicken Recipe) তৈরির একটি দুর্দান্ত রেসিপি।

কাশ্মীরি চিকেন তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ : বাড়িতেই যদি রেস্টুরেন্টের মত কাশ্মীরি চিকেন তৈরি করতে চান তাহলে তার জন্য প্রয়োজন হবে চিকেন, টক দই, পেঁয়াজ বাটা, আদা-রসুন বাটা, কাজুবাদাম বাটা, পেঁয়াজ কুচি, টমেটো কুচি, আমন্ড বাদাম কুচি, মৌরি, ছোট এলাচ, দারচিনি, লঙ্কা গুঁড়ো, কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো, রান্নার জন্য তেল, পরিমাণ অনুসারে নুন এবং সামান্য চিনি।

কাশ্মীরি চিকেন রান্না করার পদ্ধতি : প্রথমে চিকেনের টুকরোগুলোকে খুব ভাল করে জল দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। এবার আসবে ম্যারিনেশনের পালা। তার জন্য একটি পাত্রে মাংস নিয়ে তার মধ্যে সামান্য নুন এবং দই মাখিয়ে রেখে দিন। এরপর কড়াইতে মৌরি, দারচিনি, এলাচ হালকা নেড়েচেড়ে নিয়ে মিক্সিতে গুঁড়ো করে একটা রোস্টেড মশলা বানিয়ে নিতে হবে।

পরের ধাপে কড়াইতে তেল গরম করে প্রথমে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভেজে নিন। এবার ভাজা হয়ে গেলে তার মধ্যে টমেটো কুচি দিয়ে দিন। সেই সঙ্গে পেঁয়াজ, আদা, রসুন বাটাটাও এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। এবার ম্যারিনেট করে রাখা মাংসটাও কড়াইতে দিয়ে ভাল করে কষতে থাকুন। এই সময় মাংসের মধ্যে লঙ্কার গুঁড়ো, আরেকটু টক দই এবং পরিমাণ অনুসারে নুন দিয়ে ঢাকা চাপা দিয়ে ১৫-২০ মিনিট রান্না হতে দিন।

মাংস সেদ্ধ হয়ে এলে ঢাকনা খুলে কাজুবাদাম বাটা, সামান্য জলের মধ্যে কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো গুলে নিয়ে রান্নার মধ্যে দিয়ে দিন। এবার সমস্ত উপকরণ একসঙ্গে ভাল করে নেড়েচেড়ে নিয়ে রান্না হতে দিন। এই সময় আঁচ থাকবে একেবারে মিডিয়াম। এইভাবে মিডিয়াম আঁচে চিকেনটা আরও ভাল করে রান্না করে নিতে হবে।

এবার রান্না শেষ হলে ঢাকনা খুলে আমন্ড কুচি এবং গুঁড়ো মশলা উপর থেকে ছড়িয়ে দিতে হবে। এইভাবে রান্না করে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে কাশ্মীরি চিকেন। খুব সহজে এবং চেনা উপকরণ ব্যবহার করেই রেস্টুরেন্টের এই রান্নাটা বাড়িতেই করা যায়। এবার কাশ্মীরি চিকেনের এই পথ ভাত কিংবা রুটির সঙ্গে পরিবেশন করুন। খেয়ে এবং খাইয়ে পাবেন দারুণ প্রশংসা পাবেন।