সৌজন্যকে নিয়ে বাজে কথা! মায়ের মিথ্যাচারের জন্য মাকে ধুয়ে দিল গুনগুন

সৌজন্যে সম্পর্কে কোনও বাজে কথা না! মাকে স্পষ্ট জানিয়ে দিল গুনগুন

Gungun reacted on Her Mother for Misbehaving with Her Husband Soujonyo

তিন্নিকে নিয়ে অশান্তি এমনিতেই কিছু কম নেই, তার উপর আবার মাঝেমধ্যেই বাপের বাড়িতে এলে সৌজন্য এবং তার পরিবারকে নিয়ে খোঁটা দেন গুনগুনের মা! এতে বেজায় বিরক্ত গুনগুন। অশান্তি, ভুল-বুঝাবুঝির কালো মেঘ সরিয়ে গোটা পরিবার এখন বেড়াতে যাওয়ার আনন্দে মেতে উঠেছে, তবে তাতেও অশান্তি ডেকে আনছেন গুনগুনের মা। খড়কুটোর (Khorkuto) একটি টুকরো ভিডিওতে ধরা পড়লো এই দৃশ্য।

সৌজন্যকে দু’চোখে সহ্য করতে পারেন না তিনি। এই নিয়ে মেয়ের সঙ্গেও ইতিপূর্বে কম অশান্তি হয়নি। এবার তিন্নিকে জড়িয়ে সৌজন্যকে নিয়ে যা নয় তাই বলে মেয়ের কাছেই দোষী হয়ে গেলেন তিনি। মায়ের ওপর ভীষণ রেগে গিয়ে গুনগুন তাকে স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, সে তার ক্রেজিকে নিয়ে একটাও বাজে কথা শুনবে না।

সৌজন্য এবং গুনগুনের মধ্যে দূরত্ব কমতেই তাদের সংসার ভাঙ্গার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে তিন্নি। নিজেকে সৌজন্যর স্ত্রী বলে দাবি করে এই যুক্তির পরিপ্রেক্ষিতে মিথ্যে, সাজানো প্রমাণ দেখিয়ে সে গুনগুনকে সৌজন্যর থেকে সরিয়ে নিতে চাইছে। তিন্নির জালে প্রথমে জড়িয়ে পড়লেও গুনগুন অবশ্য পরে নিজের ভুল বুঝতে পারে। এখন সে সৌজন্যর বিরুদ্ধে কোনও মিথ্যে কথা শুনতে নারাজ।

ধারাবাহিকের ফ্যান পেজ থেকে শেয়ার করা একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, সপরিবারে বাইরে বেড়াতে যাওয়ার আগে বাবার বাড়িতে এসে হাজির হয়েছে গুনগুন। সঙ্গে রয়েছে সৌজন্য। এদিকে সৌজন্যকে দেখেই গুনগুনের মা তেলেবেগুনে জ্বলে ওঠেন। তাকে যা নয় তাই বলে অপমান করে বসেন। বাবার বাড়িতে সৌজন্যের অপমান দেখে চুপ থাকতে পারেনা গুনগুন। সেও তার মাকে যোগ্য জবাব দেয়।

সৌজন্যের অপমান সহ্য হয়না গুনগুনের। সে ঠিক করেই নিয়েছে, সৌজন্য সম্পর্কে একটাও বাজে কথা শুনবে না সে। সে কথা সে নিজের মাকেও জানিয়ে দেয়। গুনগুন তার মাকে জানায়, সে মরে গেলেও বিশ্বাস করবে না তার স্বামী তাকে মিথ্যে কথা বলতে পারে। সৌজন্য অন্য একটা মেয়েকে ভালোবাসা সত্বেও তাকে বিয়ে করতে পারে, এ কথা সে বিশ্বাসই করবে না। মাকে কড়া ভাষায় জবাব দিল গুনগুন।