নোট সরিয়ে বাজারে আসছে ২০ টাকার কয়েন! দেখুন Exclusive ছবি

119

নরেন্দ্র মোদি ২০১৪ সালে দেশের প্রধানমন্ত্রী পদে বসার পর তাঁর আমলে সবথেকে বড় পদক্ষেপ হলো ‘নোটবন্দি’। যে ‘নোটবন্দি’ আলোচনা সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে দাঁড়িয়েছিল বিশ্ব জুড়ে। আর এই নোটবন্দির পর থেকে দেশে নতুন নতুন রঙের, নতুন নতুন ঢঙের নানান নোট মানুষের হাতে আসতে থাকে। কখনো ২০০০ টাকা, কখনো ৫০০ টাকা। কখনো আবার ১০ টাকার নতুন নোট, কখনো আবার ১০০ টাকার নতুন নোট। তবে এবার নোটের দিন শেষ। নোটকে সরিয়ে বাজারে আসতে চলেছে ২০ টাকার নতুন কয়েন।

 

বুধবার অর্থমন্ত্রকের তরফে বিবৃতি জানিয়ে এই খবর দেওয়া হয়ে। নতুন এই কয়েনটি হবে ২৭ মিলিমিটারের। কয়েনটির বিশেষত্ব হলো কয়েনটি গোল হলেও তার চারপাশ একাধিক সরলরেখায় ভাঙা থাকবে। মোট ১২ টি ভূজ থাকবে কয়েনে। যে ২০ টাকার নতুন কয়েনটি বাজারে আসতে চলেছে, সেটির প্রান্তে কোনপ্রকার চিহ্ন থাকবে না।

এই কয়েনটি ১০ টাকার কয়েনের মতোই দু’রকম ধাতব রঙের হবে বলে জানা গিয়েছে। কয়েনটিতে দু’টি স্তর থাকবে।  মাঝে এক রকম রং আর বাইরের দিকে অন্য রকম রং।

বাইরের দিকে থাকবে ৬৫% তামা, ১৫% দস্তা ও ২০% নিকেল। ভিতরের অংশটি তৈরি হবে ৭৫% তামা, ২০% দস্তা ও ৫% নিকেল দিয়ে। তবে এই কয়েনটি দেখতে কেমন হবে, তা এখনও সঠিকভাবে জানা যায়নি। তবে শুধু ২০ টাকার কয়েনই নয়, সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে নতুন এক টাকা, দুই টাকা, পাঁচ টাকা এবং দশ টাকার কয়েনও শীঘ্রই আসতে চলেছে।

এই সংক্রান্ত আরও খবর : –

১ টাকার কয়েন নিয়ে বড় ঘোষণা ! এড়িয়ে গেলে বিপদে পড়বেন

আসছে ওয়ান নেশান ওয়ান কার্ড কি কি সুবিধা পাবেন এই কার্ডে ?

ছেঁড়া নোট বদলের ক্ষেত্রে RBI এর নয়া ফরমান জানা আছে?

১০ বছর আগে ২০০৯ সালের মার্চে রিজ়ার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ১০ টাকার কয়েন চালু করে। এখনও পর্যন্ত ১৩ বার এই কয়েনটির আকার বদলানো হয়েছে। এর জেরে অনেক বিভ্রান্তিও তৈরি হয়েছে। সাধারণ মানুষের অভিযোগ,  অনেক সময়েই ১০ টাকার কয়েনকে জাল বলে দাবি করেন কিছু ব্যবসায়ী। নিতে চায় না। যদিও গতবছর আরবিআই জানিয়েছে, এই চোদ্দো ধরনের কয়েনই বৈধ।

কিন্তু কেন হঠাৎ ২০ টাকার নোটের সিদ্ধান্ত? এই বিষয়ে আরবিআই জানিয়েছে, নোটের থেকে কয়েন বেশি টেকসই। এগুলি দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকে। এর আগে গত বছর ডিসেম্বর মাসে ২০ টাকার নতুন নোটের কথা ঘোষণা করেছিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। অর্থাত্‍ সব ঠিক থাকলে ১০ টাকার মতো ২০ টাকারও নোট এবং কয়েন দুটোই চালু থাকবে বাজারে।