মাত্র ৬টি মিসড কল, আর অ্যাকাউন্ট থেকে গায়েব ১.৮৬ কোটি

প্রথমে ফোনে পর পর ছটা মিসড কল। আর তার পরে হঠাৎই নিজের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১ কোটি ৮৬ লক্ষ টাকা খোয়ালেন মুম্বইয়ের এক ব্যবসায়ী। মুম্বই পুলিশের সাইবার দমন শাখায় মামলাও রুজু করেছেন ওই বস্ত্রব্যবসায়ী। ওই ব্যবসায়ী অভিযোগ করেছেন ২৭ ডিসেম্বর রাত ১১.৪৪ থেকে ২৮ ডিসেম্বর রাত ১.৫৮ পর্যন্ত তাঁর ফোনে মোট ৬টি মিসড কলস আসে। এর মধ্য ২টি ছিল ব্রিটেন থেকে

গত ২৭ ডিসেম্বর থেকে ২৮ ডিসেম্বর রাতে তাঁর ফোনে করা হয় মোট ৬টি মিসড কল। তার পরই তাঁর সিমকার্ডটি অচল হয়ে যায়। এরপরই তিনি দেখেন তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১.৮৬ কোটি টাকা গায়েব। এখন মুম্বই পুলিসের সাইবার ক্রাইম শাখায় তিনি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ওই ব্যবসায়ীর কথায়, ‘‘ছটা মিসড কল পাওয়ার সময়েই আমার মনে সন্দেহ জাগে।’’ যে মুহূর্তে তিনি বুঝতে পারলেন  যে, তাঁর ফোনটি আর কাজ করছে না, তখন তিনি সার্ভিস প্রোভাইডারকে ফোন করেন। আর তখনই সার্ভিস প্রোভাইডারের তরফে জানানো হয় যে, আপনার নম্বর থেকেই অনুরোধ এসেছে সিম কার্ডটি ব্লক করার।

তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ২৮টি ট্রানজাকশন হয়েছে। কিন্তু তিনি তা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি। কারণ, তাঁর ফোনের সিম কার্ডটিই ব্লক করা হয়েছিল।তাঁর কথায়, ‘‘অ্যাকাউন্ট চেক করার পর দেখতে পাই ২৮ বার ট্রানজাকশনের মাধ্যমে ১৫টি ভিন্ন ভিন্ন অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো হয়েছে।’’

ওই ব্যবসায়ী অভিযোগ করেছেন ২৭ ডিসেম্বর রাত ১১.৪৪ থেকে ২৮ ডিসেম্বর রাত ১.৫৮ পর্যন্ত তাঁর ফোনে মোট ৬টি মিসড কলস আসে। এর মধ্যে ২টি ছিল ব্রিটেন থেকে। সাইবার বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য এটি হল সিম সোয়াপ। এর পদ্ধতিতে একটি সিম কার্ড নকল করে দ্বিতীয় একটি সিম বানানো হয়। এবং লেনদেনের জন্য সেই সিম কার্ডেই ওটিপি নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : সিম জালিয়াতিতে ১৩ লাখ টাকা খোয়ালেন এক ব্যক্তি

আরও পড়ুন : ৩৫ টাকা রিচার্জ না করে ফ্রীতে SIM চালু রাখবেন কীভাবে? জানুন পদ্ধতি

এদিকে সিম কাজ না করায় নতুন সিম নিয়ে আসেন ওই ব্যবসায়ী। ২৯ ডিসেম্বর সেই সিম অ্যাক্টিভেট করেন। অন্যদিকে তাঁর কোম্পানির এক কর্মী টাকা তোলার জন্য ব্যাঙ্কে যান। সেখানে তাঁকে ওই বিপুল টাকা তুলে নেওয়ার কথা জানানো হয়। দেখা যাচ্ছে ওই কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মোট ২৮ বার তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে লেনদেন করা হয়েছে। তুলে নেওয়া হয়েছে ওই বিপুল টাকা।

Loading...