কঙ্গনার মুখে ঝামা ঘষে দিল গঙ্গুবাই! প্রথম দিনেই উঠে এল কোটি কোটি টাকা

কথামতো ২৫শে ফেব্রুয়ারি মুক্তি পেল সঞ্জয় লীলা বানশালি পরিচালিত আলিয়া ভাট (Alia Bhatt) অভিনীত বহুল প্রতীক্ষিত ছবি ‘গঙ্গুবাই কাথিয়াওয়াড়ি’ (Gangubai Kathiawadi)। সঞ্জয় লীলা বানশালি পরিচালিত ছবি মানেই বড় বাজেটের ছবি। ঝাঁ-চকচকে অন্দরসজ্জা থেকে শুরু করে ধারালো সংলাপ, ছবির গান ছবির ইউএসপি। দর্শক নিঃসন্দেহে ভরিয়ে দেন বক্স অফিস। গঙ্গুবাইয়ের ক্ষেত্রেও তার অন্যথা হল না।

হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা সূত্রে খবর, প্রথম দিনেই দারুণ ব্যবসা করেছে এই ছবিটি। Boxoffice India.com এর রিপোর্ট থেকে জানা গেল প্রথম দিনেই নাকি ৯ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা থেকে শুরু করে ১০ কোটি টাকার আশেপাশে ব্যবসা করেছে ছবিটি। মুম্বাই এবং তার সংলগ্ন এলাকাতে ভাল ব্যবসা করেছে ছবিটি। প্রথম দিনের কালেকশনের হিসেবে বলা যায় ৮৩ কিংবা তার থেকে বড় কোনও সিনেমার মত ব্যবসা করেছে গঙ্গুবাই।

ছবি মুক্তি উপলক্ষে মুম্বাই খারের গ্যালাক্সি সিনেমা হলে দর্শকদের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন আলিয়া। ছবিটির মুক্তির আগেই বার্লিন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শন করা হয়। দর্শক মহলে ভালই প্রশংসা পাচ্ছে আলিয়ার অভিনয়। এই ছবিতে তুলে ধরা হয়েছে মুম্বাই তথা ভারতবর্ষের বৃহত্তম পতিতাপল্লী কামাথিপুরার চিত্র। সেখানকার মাফিয়া কুইন গঙ্গুবাইয়ের জীবনীই ছবির বিষয়বস্তু।

এই ছবি মুক্তি পেলে ছবি বানানোর জন্য ২০০ কোটি টাকা নষ্ট হবে বলে দাবি করেছিলেন কঙ্গনা রানাওয়াত। আলিয়া এবং তার বাবা মহেশ ভাটকে তুলোধোনা করেন বলিউড কুইন। আলিয়া তার নজরে রমকম বিম্বো! আলিয়াকে সোশ্যাল মিডিয়াতে চূড়ান্ত অপদস্থ করেন কঙ্গনা। যদিও প্রত্যুত্তরে আলিয়া গীতার বাণী তুলে ধরে তাকে সমুচিত জবাব দেন।

মুম্বাইয়ের বৃহত্তম পতিতাপল্লীর সর্দারনী ছিলেন গঙ্গুবাই। তবে পুলিশের কাছে তার পরিচয় ছিল এক নৃশংস গ্যাংস্টার হিসেবে। বাস্তবে তিনি মানুষটা কেমন ছিলেন? গুজরাটের গ্রামের এক সাধারণ পরিবারের মেয়ে কিভাবে হয়ে উঠলেন কামাথিপুরার রানী? কিভাবে ক্ষমতার লড়াইয়ে এগিয়ে এলেন? মুম্বাইয়ের আন্ডারওয়ার্ল্ডের সব খবর থাকতো তার কাছে। জহরলাল নেহেরুর চোখে চোখ রেখে কথা বলার সাহস ছিল তার। এহেন গঙ্গুবাই সম্পর্কে আরও জানতে হলে দেখুন ‘গঙ্গুবাই কাথিয়াওয়াড়ি’।