রাশি অনুযায়ী কোন গণেশ মুর্তি পূজা করলে নিশ্চিত সাফল্য আসে দেখুন

আমরা সবাই জানি আমাদের প্রত্যেকের জীবনে রাশিফলের প্রভাব অবশ্যই আছে। আর তাই আমরা অনেকেই সবকিছুই রাশি অনুযায়ী করতে পছন্দ করি। অনেকেই যুক্তি এবং বিজ্ঞান দিয়ে বলতেই পারেন তারা রাশিফলে বিশ্বাস করে না, এটা তাদের একান্তই ব্যক্তিগত ব্যাপার।

আমরা আপনার ব্যক্তিগত রুচিকে অসম্মান করবো না। ঠিক তেমনই যারা রাশিফলে বিশ্বাস করেন। বিশ্বাস করেন যে ক্ষুদ্র মানব জীবনে বৃহৎ গ্রহ, নক্ষত্র,ইত্যাদির প্রভাব অবশ্যই আছে। যারা রাশিফল অনুযায়ী শুভ দিন, শুভ সংখ্যা ,শুভ রং ইত্যাদিতে বিশ্বাস করেন তাদের জন্য এই প্রতিবেদন।

সিদ্ধি বিনায়ক গণেশের পূজা উপলক্ষ্যে প্রত্যেকে হিন্দু বা ধর্মপ্রান সকল মানুষ গণেশের পূজা করেন ভক্তিভরে। তবে যদি রাশি অনুযায়ী নির্দিষ্ট গণেশ মূর্তির পূজা করেন তাহলে মনোস্কামনা দ্রুত পূরণ হবে। এমনই মত শাস্ত্র এবং জ্যোতিষ এবং বাস্তু বিশারদদের। তাই এই প্রতিবেদনে আমরা আজ আলোচনা করবো আপনার রাশি অনুযায়ী কোন ধরণের গণেশ মূর্তি পূজা করলে আপনি তাড়াতাড়ি ভগবান গণেশের আশীর্বাদ লাভ করতে পারবেন।

রাশি চক্রে মোট রাশির সংখ্যা ১২টি। তাই অনেক রাশির একই ধরনের গণেশ মূর্তি হতে পারে।তাই পাঠকদের সুবিধার্থে একই গণেশ ঠাকুর যাদের পূজা করতে হবে তা একসাথে দেওয়া হল।

রাশি অনুযায়ী গণেশ ঠাকুর নির্বাচন

মেষ এবং বৃশ্চিক রাশি

এইধরনের রাশি যুক্ত জাতক এবং জাতিকারা যদি কোরালের তৈরি গণেশের মূর্তি বাড়িতে এনে গণেশ চতুর্থীর দিন পূজা করেন তাহলে তাদের জন্য অত্যন্ত শুভ হবে।

বৃষ এবং তুলা রাশি

এই রাশির জাতক এবং জাতিকারা গণেশ চতুর্থীর দিন বাড়িতে কাঠের তৈরি গণেশ স্থাপন করে, ভক্তিভরে  পূজা করলে তাদের জন্য অত্যন্ত শুভ হবে।তাদের সকল মনোস্কামনা পূরণ হবে এই মূর্তি ভক্তি ভরে পূজা করার সময় বাড়ির সকলকেই পবিত্র থাকতে হবে এবং পূজার সময় সকলেই যেন মন্ডপে অবস্থান করে।

মিথুন এবং কন্যা রাশি

জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে এই রাশির জাতক জাতিকারা যেকোন ধরনের গণেশ মূর্তি বাড়িতে এনে পূজার ঘরে ভক্তিভরে স্থাপন করে পূজা করতে পারেন।তবে পূজার সময় এইসব রাশির জাতক  জাতিকারা পূজার সময় অবশ্যই হলুদ নতুন পোশাক পরবেন।

কর্কট এবং  সিংহ রাশি

এই দুই রাশির জাতক ,জাতিকারা প্রাকৃতিক উপাদান যেমন মাটি বা খড় বা অন্য যেকোনো প্ৰাকৃতিক বস্তু থেকে তৈরি গণেশ মূর্তি বাড়িতে নিয়ে এসে পূজা করলে তাদের সকল মনস্কামনা পূরণ হবে।

ধনু এবং মীন রাশি

এই দুই রাশির জাতক জাতিকারা বাড়িতে অবশ্যই  হলুদ রঙের গণেশ ঠাকুরের পূজা করতে পারেন।এই রঙের গণেশ ঠাকুরের পূজা করলে বিভিন্ন দিক থেকে উপকার আসতে থাকে।বাড়ির সবার মন শান্ত, হিংসা দ্বেষহীন হয়ে যায়।অনৈতিক কাজে মন থেকে বাধা আসে।তাই আপনি কোনোদিন কুকাজে জড়িয়ে পড়বেন না।

আরও পড়ুন : গণেশের জন্ম বৃত্তান্ত : সিদ্ধিদাতা গণেশের জন্মের অজানা ৭টি কাহিনী

মকর এবং কুম্ভ রাশি

এই দুই রাশির জাতক জাতিকারা যেকোন ধাতু যেমন তামা, পিতল ,দস্তা, আলুমিনিয়াম বা অন্য যেকোন মূল্যবান ধাতুর তৈরি গণেশ পূজা করলে শুভফল অবশ্যই পাবেন।তবে যদি তারা অষ্ট ধাতুর তৈরি গণেশ বাড়িতে এনে পূজা করতে পারেন  তাহলে তা অত্যন্ত শুভ বলে গণ্য হয়।

রং অনুযায়ী গণেশ ঠাকুর নির্বাচন

সাদা রঙের গণেশ ঠাকুর

যে সকল পরিবারে সুখ ,শান্তি ,সমৃদ্ধি আশানুরূপ হচ্ছে না তারা গণেশ চতুর্থীর পুন্য তিথিতে সাদা রঙের গণেশ ঠাকুর বাড়ির পূজা গৃহে স্থাপন করে ভক্তি ভরে পূজা করুন।দেখবেন আপনার মধ্যে যেসব আশা এখনও পূরণ হয় নি তা পুনরায় পূরণ হবে।

আরও পড়ুন : কোন গণেশ মূর্তির পূজা করলে কী মনস্কামনা পূর্ন হয়, জানুন সবকিছু

সিঁদুর রঙের বা কেশরী রঙের গণেশের মূর্তি

ব্যক্তিগত ভাবে যেসকল মানুষ নিজের উন্নতি বা সাফল্যের কামনার আশায় ,যেমন বেকার  বুদ্ধিমান ছেলেমেয়ে চাকরি পাবার ইচ্ছা, বা আপনি আপনার ব্যবসায় দ্রুত উন্নতি চাইছেন অন্যদের থেকে তারা এই রঙের গণেশ মূর্তি বাড়িতে গণেশ চতুর্থী বা অন্য যেকোন সময় নিত্য পূজার সময় বাড়িতে রেখে পূজা করতে হবে।তবে এইসব ক্ষেত্রে সাধারণত বুধবার নিরামিষ ভোজন করতে হবে। সব ক্ষেত্রেই গণেশ মূর্তির সাথে অবশ্যই তার বাহন ইঁদুর এবং হাতে থাকা মোদক এবং লাড্ডু অবশ্যই যেন থাকে ।