বাড়িতে থেকে করোনার চিকিৎসা করালে কী হেল্থ ইন্সুরেন্স ক্লেম করা যাবে?

প্রতিদিন দেশজুড়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের গ্রাফ। রাজ্যে করোনার পরিস্থিতিটাও খুব সংকটজনক। প্রতিদিন লক্ষাধিক মানুষ করোনাতে সংক্রমিত হচ্ছেন।গত ২৪ ঘন্টায় ৩ লক্ষ ৭৯ হাজার ২৫৭ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন আর মৃত্যুর সংখ্যা ৩৫০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। অক্সিজেনের অভাব ও চিকিৎসার জন্য অভাব দেখা দেওয়ায় এই পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে।

ঊর্ধ্বমুখী এই করোনা সংক্রমনের প্রভাবে রাজ্যজুড়ে চিকিৎসা পরিকাঠামোর অভাব দেখা দিচ্ছে তার থেকে রেহাই পেতে অনেক চিকিৎসক বাড়িতে থেকেই করোনার চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দিচ্ছেন। বাড়িতে থেকে টেলিমেডিসিন ও অন্যান্য উপায়ে অনেকেই তাই করোনার চিকিৎসা করাচ্ছেন এবং তাতে ইতিবাচক ফল পেয়ে সুস্থ‌ও হয়ে উঠছেন।

বাড়িতে থেকেই টেলিমেডিসিন ও অন্যান্য উপায়ে চিকিৎসা করানোর খরচ বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসা করানোর খরচের থেকে অনেক কম। কিন্তু বাড়িতে থেকে টেলিফোনিক পদ্ধতিতে করোনার চিকিৎসা করালে কি স্বাস্থ্য বীমার টাকা পাওয়া যাবে এই নিয়ে অনেকের মনেই প্রশ্ন সৃষ্টি হয়েছে।

বাড়িতে থেকে করোনার চিকিৎসা করালে স্বাস্থ্যবিমার প্ল্যানের টাকা পাওয়া যায় না ঠিকই,তবে এই ক্ষেত্রে ‘করোনা কবচ’ এর মতো যে বিশেষ স্বাস্থ্যবিমা রয়েছে তাতে বাড়িতে থেকে টেলিফোনিক পদ্ধতিতে করোনার চিকিৎসা করালেও টাকা পাওয়া যাচ্ছে। তবে এক্ষেত্রে ঐ বিমায় ঠিক কী কী খরচ পাওয়া যাবে, এবং বীমার টাকা পেতে গেলে কী কী কাগজপত্র জমা দিতে হবে তা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে নানারকম সংশয় ও প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। আসুন জেনে নিই ‘করোনাকবচ’ বিমা সংক্রান্ত এই সকল প্রশ্নের উত্তর

১) বাড়িতে থেকে করোনার চিকিৎসা করানোর সময় কখন বিমা সংস্থাকে জানাতে হবে?

করোনার বিশেষ স্বাস্থ্য বিমার গ্রাহককে বাড়িতে চিকিৎসা শুরু করার সঙ্গে সঙ্গেই জানাতে হবে। করোনার সংক্রমণ সেরে ওঠার পর জানালে বিমার টাকা পাওয়া যাবে না।

২) করোনা কবচের মত স্বাস্থ্য বিমাতে কী কী খরচের টাকা মিলবে?

টেলিফোনিক পদ্ধতিতে করোনার চিকিৎসা করালেও করোনা কবচের মতো যে বিশেষ স্বাস্থ্য বিমা রয়েছে, তাতে করে প্যাকেজ অনুযায়ী চিকিৎসকের ফি, ওষুধের খরচ, এক্সরে, সিটি স্ক্যান ও অন্যান্য পরীক্ষার টাকা পাওয়া যাবে।

৩) টেলিফোনিক পদ্ধতিতে করোনার চিকিৎসা করালে বিমার টাকা পেতে বিমা সংস্থাকে কোন কোন নথি দেখাতে হবে?

টেলিফোনিক পদ্ধতিতে করোনার চিকিৎসা করানোর সময় বিমার টাকা পেতে গেলে রোগীকে চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন, ওষুধপত্রের বিল সহ ICMR অনুমোদিত ল্যাব থেকে করোনা পরীক্ষা করিয়ে তার রিপোর্ট জমা দিতে হবে। এই সকল প্রয়োজনীয় বিষয়গুলি দেখাতে পারলেই বিমার টাকা পাওয়া যাবে‌