বন্ধ হবার মুখে ‘মিঠাই’, ‘খড়কুটো’, ‘মোহর’ সহ ২০টি ধারাবাহিক, চরম সিদ্ধান্ত নিল ফেডারেশন

Federation prohibited technicians from working on 20 popular bengali mega serials

ফেডারেশনের (Federation) সঙ্গে প্রোডিউসর্স গিল্ডের (Producer’s Guild) তরজা যেন কিছুতেই থামছে চাইছে না। প্রথমে শুট ফ্রম হোম (shoot from home) নিয়ে আর্টিস্ট ফোরামের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়েছিল ফেডারেশন। বাড়ি থেকে শুটিং করার ক্ষেত্রে অভিনেতা এবং অভিনেত্রীরা ছাড়া আর কারোর কাজের সুযোগ থাকবে না বলে দাবি তুলে অবিলম্বে শুটিং বন্ধ করার দাবি তুলেছিল ফেডারেশন। এখন আবার লকডাউনের মধ্যেও কাজ করা নিয়ে টেকনিশিয়ানদের বিরুদ্ধে তোপ দাগলো ফেডারেশন।

জি বাংলা এবং স্টার জলসাসহ বেশকিছু চ্যানেলের ২০টি ধারাবাহিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছে ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস এন্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া। মঙ্গলবার এই মর্মে ধারাবাহিকগুলির একটি তালিকা প্রস্তুত করে তা প্রকাশ করেছে ফেডারেশন। ফেডারেশনের বক্তব্য, যে ২০টি ধারাবাহিকের নাম তালিকায় উল্লেখিত আছে, তারা লকডাউনের মধ্যেও শুটিং চালিয়ে গিয়েছে।

এই ২০টি ধারাবাহিকে ফেডারেশনের কোনও সদস্য কাজ করতে পারবেন না বলে স্পষ্ট উল্লেখ করা হয়েছে। ১৫ই জুনের মধ্যে প্রযোজকদের তরফ থেকে উত্তর না পেলে লকডাউনের পর ধারাবাহিকগুলির বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারিও দিয়েছে ফেডারেশন।

Shooting from Home

ফেডারেশনের স্পষ্ট নির্দেশ, যতক্ষণ পর্যন্ত না প্রোডিউসার গিল্ডের সঙ্গে ফেডারেশনের নতুন চুক্তি কার্যকর হচ্ছে, ততক্ষণ নির্দেশ কার্যকর থাকবে। অন্যথায় অন্য ব্যবস্থা নেবে ফেডারেশন। প্রসঙ্গত, সোমবার প্রোডিউসার গিল্ডের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছিল ফেডারেশন। এর ঠিক ২৪ ঘন্টার মাথাতেই ফেডারেশনের তরফ থেকে টেকনিশিয়ানদের জন্য নতুন নির্দেশিকা লাগু করা হলো।

যে ২০টি ধারাবাহিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে চলেছে ফেডারেশন, সেগুলি হল – ‘কৃষ্ণকলি’, ‘তিতলি’, ‘অপরাজিতা অপু’, ‘গ্রামের রানী বিনাপানি’, ‘বরণ’, ‘খেলাঘর’, ‘যমুনা ঢাকি’, ‘গঙ্গারাম’, ‘জীবন সাথী’, ‘মিঠাই’, ‘সাঁঝের বাতি’, ‘খড়কুটো’, ‘শ্রীময়ী’, ‘মোহর’, ‘দেশের মাটি’, ‘রিমলি’, ‘ওগো নিরুপমা’, ‘ফেলনা’, ‘কি করে বলবো তোমায়’, ‘ধ্রুবতারা’। এছাড়াও নতুন ধারাবাহিকের মধ্যে টেন্ট সিনেমার ‘রিসতো কি মাঞ্জা’, অর্গানিক টেনিশিয়ান স্টুডিয়োর ‘সুন্দরী’, অ্যাক্রপলিস এন্টার্টেইনমেন্টের ‘মন ফাগুন’ এবং ম্যাজিক মোমেন্টের ‘ধূলোকনা’ও রয়েছে এই নিষিদ্ধ ধারাবাহিকের তালিকায়।

Federation Notice

ফেডারেশনের অন্তর্ভুক্ত সংগঠন সিনে মেকআপ আর্টিস্ট অ্যাসোসিয়েশন মঙ্গলবার একটি জরুরী বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানিয়েছে, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদকের অনুমতি ছাড়া নতুন বা পুরনো, কোনও ধারাবাহিকেই কাজ করতে পারবেন না ফেডারেশনের সদস্যরা। অন্যথায় তাদের সদস্যপদ বাতিল করে দেওয়া হবে। আবার কোনও প্রযোজক যদি সংগঠনের সদস্যদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠান, তাহলে সেই ছবি তুলে তা সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বাপি মালাকারের কাছে মেসেজ করে পাঠাতে হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রাজ্য সরকারের নির্দেশে করোনা সতর্কতা বিধি হিসেবে বিগত প্রায় ১ মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ রয়েছে স্টুডিও পাড়া। ১৬ই জুন থেকে ১লা জুলাই পর্যন্ত অবশ্য ৫০ জনের ইউনিট নিয়ে শ্যুটিং শুরু করার পক্ষে অনুমোদন দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মাস্ক পড়ে, শারীরিক দূরত্ববিধি বজায় রেখে এবং করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে তবেই কলাকুশলীরা কাজে যোগ দিতে পারবেন বলে জানিয়েছে রাজ্য সরকার। ফেডারেশন অবশ্য লকডাউনবিধি শিথিল হলে দ্রুত শুটিং ফ্লোরে গিয়ে শুটিংয়ের অনুমোদন চাইবে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে।