‘শাঁখা-সিঁদুর পরে হিন্দুদের বোকা বানিয়ে ভোট নিলেন, আজ অস্বীকার করছেন’, বিস্ফোরক দিলীপ ঘোষ

অভিনেত্রী নুসরাত জাহানের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বিবাদ বাড়ছে বৈ কমছে না। প্রেম এবং বিবাহ সম্পর্ক (?) নিয়ে বরাবরই বিতর্কের শীর্ষে অবস্থান করেছেন টলিউডের এই অভিনেত্রী। প্রথমে সাম্প্রদায়িকতার ঊর্ধ্বে উঠে নিখিল জৈনকে জীবনসঙ্গী হিসেবে নির্বাচন, বিয়ের ঠিক এক বছরের মাথাতেই বিচ্ছেদ এবং বিয়ের ২ বছরের মাথায় এসে বিবাহ সম্পর্কটিকেই অস্বীকার করছেন অভিনেত্রী!

সূদুর তুরস্কে গিয়ে হিন্দু রীতি অনুযায়ী বিবাহ ‌অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নিখিলের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধতে দেখা গিয়েছিল তাকে। এরপর সিঁথিতে সিঁদুর, হাতে শাঁখা-পলা পড়ে বারংবার ক্যামেরায় ধরা দিয়েছেন নুসরাত। এমনকি লোকসভার সাংসদ হিসেবে ফর্ম পূরণ করার সময়েও তিনি নিজেকে “বিবাহিতা” এবং তার স্বামীর নাম নিখিল জৈন বলে উল্লেখ করেছিলেন। সংসদে দাঁড়িয়ে বক্তৃতা রাখার সময়েও তিনি নিজেকে “নুসরাত রুহি জৈন” বলে পরিচয় দিয়েছিলেন!

তাই আজ যখন তিনি বলেন যে তিনি এতদিন নিখিলের সঙ্গে “সহবাস” করেছেন, তাকে বিয়ে করেননি, তখন স্বভাবতই তাকে কেন্দ্র করে বিতর্কের ঝড় উঠতে থাকে নেট দুনিয়ায়। নুসরাতের অনুরাগীরা কিন্তু তার এই বক্তব্যকে সমর্থন করছেন না। নেটদুনিয়ায় অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এবার নুসরাতের ব্যক্তিগত সম্পর্কের আঁচ এসে লাগলো রাজনীতিতেও। তৃণমূল সাংসদ হিসেবে নুসরাতের এই বক্তব্য রাজনীতির পারদও চড়াচ্ছে।

Nusrat Jahan Nikhil Jain

বিশেষত বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ নুসরাতের এমন কার্যকলাপের পেছনে গুঢ় রাজনৈতিক অভিসন্ধি খুঁজে পাচ্ছেন। তার দাবি, “বিয়ে না করে সিঁদুর লাগিয়ে হিন্দুদের বোকা বানিয়ে ভোট নিলেন। খুবই লজ্জার বিষয়। আমার মনে হয় নির্বাচনের জন্য বিয়ে করেছিলেন। নির্বাচন হয়ে গিয়েছে সত্য কথা বেরিয়ে এসেছে”।

এখানেই শেষ নয়, বসিরহাটের তৃণমূল প্রার্থী নুসরাত জাহানকে সাংসদ হিসেবে নির্বাচন করার ক্ষেত্রেও ওই এলাকার বাসিন্দাদের সতর্ক করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। তিনি বলেছেন, “বসিরহাটের লোকেরা তাঁকে সাংসদ করেছেন। আপনারাই ঠিক করুন, উনি বিয়ে করেছেন কিনা কাকে করেছেন, কবে করেছেন! ছেলের মা হতে যাচ্ছেন সে নিয়েও প্রশ্ন আছে। ভেবে দেখুন যাঁকে আড়াই লাখের ভোটে জিতিয়েছেন, তিনি কে বা তাঁর কী পরিচয়?”

আরও পড়ুন : সব জল্পনার অবসান, হবু সন্তানকে নিয়ে প্রথম প্রকাশ্যে এলেন নুসরাত

নুসরাতের ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে জল্পনার আঁচ যখন রাজনীতির গায়ে এসে লাগছে, তখন তৃণমূলের তরফের এই সাংসদ সম্পর্কে কোনও দায়ভার নিতে রাজি নয় রাজ্য শাসক দল। তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ সরাসরি একটি টুইট বার্তায় উল্লেখ করে দিয়েছেন যে নুসরাতের ব্যক্তিগত জীবনের সঙ্গে তৃণমূল শিবিরের কোনও যোগাযোগ নেই। তবে তাতেও অবশ্য বিতর্কের অবসান হচ্ছে না। এখন নুসরাতের ব্যক্তিগত জীবনের রেশ তার রাজনৈতিক কেরিয়ারের উপরেও পড়তে চলেছে কিনা, তা সময় বলবে।

আরও পড়ুন : ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা নুসরতের! কাঠগড়ায় স্বামী নিখিল